অনলাইন হোটেল ব্যবসায় এলো গো যায়ান
jugantor
অনলাইন হোটেল ব্যবসায় এলো গো যায়ান

  অনলাইন ডেস্ক  

১৮ নভেম্বর ২০২০, ১৪:৪৪:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশের অনলাইন ট্রাভেল এজেন্সি গো যায়ান সম্প্রতি দেশব্যাপী দেড় শতাধিক হোটেলের সঙ্গে ব্যবসায়িক চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। দেশব্যাপী ছড়িয়ে থাকা সব হোটেল এবং রিসোর্টসমূহকে অনলাইনে অনলাইন হোটেল বুকিং প্ল্যাটফর্ম তৈরির কাজ শুরু করেছে গো যায়ান।

এই চুক্তির ফলে এখন থেকে গ্রাহকরা কক্সবাজার, সেন্টমার্টিন দ্বীপ, সিলেট, শ্রীমঙ্গল, কুয়াকাটা, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি, সাজেক ও বান্দরবনের অধিকাংশ স্বনামধন্য পাঁচ তারকা, চার তারকা ও তিন তারকা হোটেল এবং রিসোর্টের পাশাপাশি ঢাকা ও চট্টগ্রামের বিখ্যাত হোটেলগুলো গো যায়ানের ওয়েবসাইটে সরাসরি বুকিং দিতে পারবেন। এছাড়া ঢাকার আশেপাশের গাজীপুর, মুন্সিগঞ্জ ও নরসিংদীর বেশ কিছু রিসোর্ট গো যায়ানের ওয়েবসাইটে সরাসরি বুক করা যাবে।

এ ব্যাপারে গো যায়ানের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও রিদওয়ান হাফিজ বলেন, “পুরো বিশ্বের কাছে বাংলাদেশকে একটি জনপ্রিয় ভ্রমণ গন্তব্য হিসেবে গড়ে তুলতে এবং দেশের পর্যটনকে আরও আধুনিকায়নে এটি আমাদের অন্যতম একটি পদক্ষেপ। পর্যটন শিল্পেও ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমরা অবিরাম কাজ করে যাচ্ছি।”

দেশে সর্বপ্রথম সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয় হোটেল বুকিং ও ব্যবস্থাপনার প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে হোটেল বুকিংকে আরও সহজ এবং সুবিধাজনক করাই গো যায়ানের অন্যতম লক্ষ্য। তাদের ওয়েবসাইট ব্যবহার করে হোটেল কর্তৃপক্ষ নিজেদের হোটেলকে গো যায়ানের প্ল্যাটফর্মের অন্তর্ভুক্ত করার পাশাপাশি সম্ভাব্য সকল বিকল্প সুযোগ-সুবিধা সংযোজন করতে পারবেন।

একবার একটি হোটেল গো যায়ানের তালিকাভুক্ত হয়ে যাওয়ার পর যে কেউ www.gozayaan.com থেকে ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড কিংবা বিকাশ ব্যবহার করে হোটেল বুক করতে পারবেন।

ব্যাপারটা অনেকটা এমন, কোনো একজন গ্রাহক কক্সবাজারে এমন হোটেলে রুম নিতে চাচ্ছেন যে হোটেলে সুইমিং পুল, জিম এবং ব্রেকফাস্টের সুবিধা রয়েছে, তিনি এই প্ল্যাটফর্মের ফিল্টার ও সার্চিং সুবিধা নিয়ে তা খুঁজে বের করতে পারবেন এবং সহজেই হোটেল রুম বুক ও পেমেন্ট সম্পন্ন করতে পারবেন।

এছাড়াও গ্রাহকরা হোটেল থেকে দেয়া সব সুবিধা যেমন ফ্রি ক্যান্সেলেশন, এয়ারপোর্ট শাটল, কমপ্লিমেন্টারি ব্রেকফাস্ট, সুইমিংপুল সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।

গো যায়ানের চীফ মার্কেটিং অফিসার ইমামুল ইসলাম বলেন, “আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছি যেন আমাদের দেশের ভ্রমণপিপাসুরা হোটেল কিংবা ফ্লাইটের টিকেট বুকিং খুব সহজে নিজেই করে নিতে পারেন। প্রযুক্তি আমাদের অন্যতম মূল শক্তি, যা ব্যবহার করে আমরা দেশের ভ্রমণ সংক্রান্ত সমস্যার সমাধানে চেষ্টা করে যাচ্ছি।”

দেশের প্রখ্যাত ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড, সিটি অ্যামেক্স, ইবিএল, ইউসিবি, ব্র্যাক ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, লঙ্কাবাংলা, বিকাশের সঙ্গে গো যায়ানের চুক্তি রয়েছে। যার ফলে ভ্রমণকারীরা বেশিরভাগ সময় বিভিন্ন সেবার উপর আকর্ষণীয় ছাড় উপভোগ করতে পারেন।

এছাড়াও আইপিডিসি ইজি ও গো যায়ানের যৌথ উদ্যোগে একজন ভ্রমণকারী ট্রাভেল লোন সুবিধা গ্রহণ করতে পারেন। একজন চাকরিজীবী খুবই সহজে অনলাইনে ট্রাভেল লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন যা অনুমোদিত হয় মাত্র ৭২ ঘণ্টার মধ্যে। এর আওতায় একজন গ্রাহক সর্বোচ্চ ৬ মাসের জন্য বিনা সুদে এ ঋণ সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন।

অনলাইন হোটেল ব্যবসায় এলো গো যায়ান

 অনলাইন ডেস্ক 
১৮ নভেম্বর ২০২০, ০২:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশের অনলাইন ট্রাভেল এজেন্সি গো যায়ান সম্প্রতি দেশব্যাপী দেড় শতাধিক হোটেলের সঙ্গে ব্যবসায়িক চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। দেশব্যাপী ছড়িয়ে থাকা সব হোটেল এবং রিসোর্টসমূহকে অনলাইনে অনলাইন হোটেল বুকিং প্ল্যাটফর্ম তৈরির কাজ শুরু করেছে গো যায়ান।  

এই চুক্তির ফলে এখন থেকে গ্রাহকরা কক্সবাজার, সেন্টমার্টিন দ্বীপ, সিলেট, শ্রীমঙ্গল, কুয়াকাটা, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি, সাজেক ও বান্দরবনের অধিকাংশ স্বনামধন্য পাঁচ তারকা, চার তারকা ও তিন তারকা হোটেল এবং রিসোর্টের পাশাপাশি ঢাকা ও চট্টগ্রামের বিখ্যাত হোটেলগুলো গো যায়ানের ওয়েবসাইটে সরাসরি বুকিং দিতে পারবেন। এছাড়া ঢাকার আশেপাশের গাজীপুর, মুন্সিগঞ্জ ও নরসিংদীর বেশ কিছু রিসোর্ট গো যায়ানের ওয়েবসাইটে সরাসরি বুক করা যাবে। 

এ ব্যাপারে গো যায়ানের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও রিদওয়ান হাফিজ বলেন, “পুরো বিশ্বের কাছে বাংলাদেশকে একটি জনপ্রিয় ভ্রমণ গন্তব্য হিসেবে গড়ে তুলতে এবং দেশের পর্যটনকে আরও আধুনিকায়নে এটি আমাদের অন্যতম একটি পদক্ষেপ। পর্যটন শিল্পেও ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমরা অবিরাম কাজ করে যাচ্ছি।”

দেশে সর্বপ্রথম সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয় হোটেল বুকিং ও ব্যবস্থাপনার প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে হোটেল বুকিংকে আরও সহজ এবং সুবিধাজনক করাই গো যায়ানের অন্যতম লক্ষ্য। তাদের ওয়েবসাইট ব্যবহার করে হোটেল কর্তৃপক্ষ নিজেদের হোটেলকে গো যায়ানের প্ল্যাটফর্মের অন্তর্ভুক্ত করার পাশাপাশি সম্ভাব্য সকল বিকল্প সুযোগ-সুবিধা সংযোজন করতে পারবেন। 

একবার একটি হোটেল গো যায়ানের তালিকাভুক্ত হয়ে যাওয়ার পর যে কেউ www.gozayaan.com থেকে ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড কিংবা বিকাশ ব্যবহার করে হোটেল বুক করতে পারবেন। 

ব্যাপারটা অনেকটা এমন, কোনো একজন গ্রাহক কক্সবাজারে এমন হোটেলে রুম নিতে চাচ্ছেন যে হোটেলে সুইমিং পুল, জিম এবং ব্রেকফাস্টের সুবিধা রয়েছে, তিনি এই প্ল্যাটফর্মের ফিল্টার ও সার্চিং সুবিধা নিয়ে তা খুঁজে বের করতে পারবেন এবং সহজেই হোটেল রুম বুক ও পেমেন্ট সম্পন্ন করতে পারবেন। 

এছাড়াও গ্রাহকরা হোটেল থেকে দেয়া সব সুবিধা যেমন ফ্রি ক্যান্সেলেশন, এয়ারপোর্ট শাটল, কমপ্লিমেন্টারি ব্রেকফাস্ট, সুইমিংপুল সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন। 

গো যায়ানের চীফ মার্কেটিং অফিসার ইমামুল ইসলাম বলেন, “আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছি যেন আমাদের দেশের ভ্রমণপিপাসুরা হোটেল কিংবা ফ্লাইটের টিকেট বুকিং খুব সহজে নিজেই করে নিতে পারেন। প্রযুক্তি আমাদের অন্যতম মূল শক্তি, যা ব্যবহার করে আমরা দেশের ভ্রমণ সংক্রান্ত সমস্যার সমাধানে চেষ্টা করে যাচ্ছি।”

দেশের প্রখ্যাত ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড, সিটি অ্যামেক্স, ইবিএল, ইউসিবি, ব্র্যাক ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, লঙ্কাবাংলা, বিকাশের সঙ্গে গো যায়ানের চুক্তি রয়েছে। যার ফলে ভ্রমণকারীরা বেশিরভাগ সময় বিভিন্ন সেবার উপর আকর্ষণীয় ছাড় উপভোগ করতে পারেন। 

এছাড়াও আইপিডিসি ইজি ও গো যায়ানের যৌথ উদ্যোগে একজন ভ্রমণকারী ট্রাভেল লোন সুবিধা গ্রহণ করতে পারেন। একজন চাকরিজীবী খুবই সহজে অনলাইনে ট্রাভেল লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন যা অনুমোদিত হয় মাত্র ৭২ ঘণ্টার মধ্যে। এর আওতায় একজন গ্রাহক সর্বোচ্চ ৬ মাসের জন্য বিনা সুদে এ ঋণ সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন। 

 
আরও খবর