কোটা সংস্কার নিয়ে যা বললেন ফারুকী

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৯ এপ্রিল ২০১৮, ১৯:৪৯ | অনলাইন সংস্করণ

মোস্তফা সরয়ার ফারুকী
মোস্তফা সরয়ার ফারুকী। ফাইল ছবি

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন নিয়ে মন্তব্য করেছেন জনপ্রিয় চলচ্চিত্র নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী।

কোটা সংস্কারের পক্ষে রোববার রাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন এই নির্মাতা। তিনি বলেন, সরকারি চাকরিতে নিয়োগ হওয়া উচিত মেধার ভিত্তিতে।

স্টাটাসে ফারুকী লিখেন, ‘অনেকগুলা চিঠি আসছে। কোটা সংস্কার আন্দোলন বিষয়ে। আমি জানি কখনো কখনো নীরবতা অপরাধের শামিল।’

‘বেশ কয় বছর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে কথা বলতে হয়েছিল। আরেফিন স্যারও (তৎকালীন উপাচার্য ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক) ওই অনুষ্ঠানে ছিলেন। সেখানে কথা প্রসঙ্গে মেধাবী শিক্ষার্থীদের সরকারি চাকরিতে আকৃষ্ট করার প্রয়োজনীয়তা নিয়ে কথা বলেছি। কারণ সরকারি চাকরিতে যদি মেধাশূন্যতা তৈরি হয়, তাহলে ভবিষ্যতে পলিসি নিয়ে আলোচনা এবং সময়োপযোগী পলিসি নির্ধারণে আমরা নিদারুণ ব্যর্থ হব।’

আলোচিত এই নির্মাতা আরও লিখেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ের কোটাবিষয়ক আলোচনা দেখে সেই কথাটা আবার মনে পড়লো। মুক্তিযোদ্ধারা আমাদের শ্রেষ্ঠ সন্তান। তাদের নানান সুযোগ-সুবিধা দেয়ার পক্ষে আমি। বাড়ি দেন, চিকিৎসা সেবা দেন, ভালো ভাতা দেন।’

‘কিন্তু সরকারি চাকরিতে নিয়োগ হওয়া উচিত মেধার ভিত্তিতে। এই বক্তব্যের সঙ্গে আমি একমত। তবে অতি উৎসাহীদের কাছ থেকে সাবধান থাকা উচিত এই আন্দোলনে শামিল ভাইবোনদের। মেধাভিত্তিক নিয়োগের দাবির মধ্যে কেউ যেন এমন অপ্রয়োজনীয় কিছু না বলেন, যাতে মনে হয় ‘মুক্তিযোদ্ধাদের’ ব্যাপারে কোনো অ্যালার্জি আছে।’

সবশেষে এই নির্মাতা লিখেন, ‘আমি আশা করি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কোটার ব্যাপারটা একটা যৌক্তিক জায়গায় নিয়ে আসবেন।

ঘটনাপ্রবাহ : কোটাবিরোধী আন্দোলন ২০১৮

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.