সামান্য বেতনে কাজ করা এই যুবকই এখন বিশ্বের শীর্ষ ধনী
jugantor
সামান্য বেতনে কাজ করা এই যুবকই এখন বিশ্বের শীর্ষ ধনী

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৫ এপ্রিল ২০২১, ১৯:৫৬:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ছবিটি দেখে নিশ্চয়ই চিনতে পারছেন না। অবশ্য না চেনারই কথা। কেননা হ্যাংলা-পাতলা সেই যুবকের ছিল না তখন কাড়ি কাড়ি টাকা, ছিল না কোনো জশ-খ্যাতি। তখনকার সেই যুবক সামান্য বেতনে একটা কোম্পানিতে চাকরি করতেন। তবে স্বপ্ন এবং কাজের প্রতি ডেডিকেশনটা ছিল তার। সেই স্বপ্নই তাকে বানিয়েছে বিশ্বের শীর্ষ ধনী। বলছিলাম বিশ্বের শীর্ষ ধনী টেসলা ও স্পেসএক্সের মালিক এলন মাস্কের কথা।

এলন মাস্কের পুরনো এ ছবিটি টুইটার দুনিয়ায় ভাইরাল। ছবিটি শেয়ার করেছেন প্রণয় পাথলে নামের এক ব্যক্তি। এরপই সেটি হাজার হাজার মানুষ রিটুইট করেছেন। বিষয়টি নজরে এসেছে এলন মাস্কেরও। সেটিকে তিনি সোনালি অতীত হিসেবে অভিহিত করেছেন।

ভাইরাল হওয়া ছবিটি ৯০ এর দশকের। তখন এলন মাস্ক ‘রকেট সায়েন্স’ নামের এক কোম্পানিতে জুনিয়র কর্মী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। এই যুবকই নিজ কর্মগুণে পরে হয়ে উঠলেন মিলিয়ন মিলিয়ন ডলারের মালিক।

জানা গেছে, ৯০ এর দশকে ওই ভিডিও কোম্পানির চাকরিটি এক সময় ছেড়ে দেন এলন মাস্ক। পরে তৈরি করেন নিজের কোম্পানি স্পেসএক্স। পরে প্রতিষ্ঠা করেন টেসলা নামে আরও একটি প্রতিষ্ঠান। এরপর আর কখনও পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। এলন মাস্ক বনে গেছেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী।

এলন মাস্ক বর্তমানে পৃথিবীর অন্যতম শীর্ষ ধনী। আমাজনের প্রধান নির্বাহী কর্তা জেফ বেজোস আর এলন মাস্কের সম্পদের লড়াই সবসময়ই চলতে থাকে। সর্বশেষ হিসাবে এলন মাস্কই বিশ্বের শীর্ষ ধনী। যার সম্পদের পরিমাণ ১৮ হাজার ৫০০ কোটি ডলার। তার বৈদ্যুতিক কার ব্যবসা রমরমা, এছাড়াও ফুলে ফেঁপে উঠেছে শেয়ারবাজারের দর। সবকিছু মিলিয়েই এগিয়ে যাচ্ছেন এলন মাস্ক।

সামান্য বেতনে কাজ করা এই যুবকই এখন বিশ্বের শীর্ষ ধনী

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৭:৫৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ছবিটি দেখে নিশ্চয়ই চিনতে পারছেন না। অবশ্য না চেনারই কথা। কেননা হ্যাংলা-পাতলা সেই যুবকের ছিল না তখন কাড়ি কাড়ি টাকা, ছিল না কোনো জশ-খ্যাতি। তখনকার সেই যুবক সামান্য বেতনে একটা কোম্পানিতে চাকরি করতেন। তবে স্বপ্ন এবং কাজের প্রতি ডেডিকেশনটা ছিল তার। সেই স্বপ্নই তাকে বানিয়েছে বিশ্বের শীর্ষ ধনী। বলছিলাম বিশ্বের শীর্ষ ধনী টেসলা ও স্পেসএক্সের মালিক এলন মাস্কের কথা।

এলন মাস্কের পুরনো এ ছবিটি টুইটার দুনিয়ায় ভাইরাল। ছবিটি শেয়ার করেছেন প্রণয় পাথলে নামের এক ব্যক্তি। এরপই সেটি হাজার হাজার মানুষ রিটুইট করেছেন। বিষয়টি নজরে এসেছে এলন মাস্কেরও। সেটিকে তিনি সোনালি অতীত হিসেবে অভিহিত করেছেন।

ভাইরাল হওয়া ছবিটি ৯০ এর দশকের। তখন এলন মাস্ক ‘রকেট সায়েন্স’ নামের এক কোম্পানিতে জুনিয়র কর্মী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। এই যুবকই নিজ কর্মগুণে পরে হয়ে উঠলেন মিলিয়ন মিলিয়ন ডলারের মালিক।

জানা গেছে, ৯০ এর দশকে ওই ভিডিও কোম্পানির চাকরিটি এক সময় ছেড়ে দেন এলন মাস্ক। পরে তৈরি করেন নিজের কোম্পানি স্পেসএক্স। পরে প্রতিষ্ঠা করেন টেসলা নামে আরও একটি প্রতিষ্ঠান। এরপর আর কখনও পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। এলন মাস্ক বনে গেছেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী।

এলন মাস্ক বর্তমানে পৃথিবীর অন্যতম শীর্ষ ধনী। আমাজনের প্রধান নির্বাহী কর্তা জেফ বেজোস আর এলন মাস্কের সম্পদের লড়াই সবসময়ই চলতে থাকে। সর্বশেষ হিসাবে এলন মাস্কই বিশ্বের শীর্ষ ধনী। যার সম্পদের পরিমাণ ১৮ হাজার ৫০০ কোটি ডলার। তার বৈদ্যুতিক কার ব্যবসা রমরমা, এছাড়াও ফুলে ফেঁপে উঠেছে শেয়ারবাজারের দর। সবকিছু মিলিয়েই এগিয়ে যাচ্ছেন এলন মাস্ক।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন