মারা গেলেন পিডিএফ ও ফটোশপের উদ্ভাবক চার্লস গ্যাসকি
jugantor
মারা গেলেন পিডিএফ ও ফটোশপের উদ্ভাবক চার্লস গ্যাসকি

  অনলাইন ডেস্ক  

১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৩:১৭:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

সফটওয়্যার কোম্পানি এডোবির সহপতিষ্ঠাতা চার্লস গ্যাসকি মারা গেছেন। শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় তার মৃত্যু হয়েছে।

তার বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। ১৯৮২ সালে তিনি এডোবির প্রতিষ্ঠা করেন। পোর্টেবল ডকুমেন্ট ফরমেট বা পিডিএফ উদ্ভাবনেও সহায়তা করেন গ্যাসকি।

তবে বছর দশেক পরে তিনি পত্রিকার খবরের শিরোনাম হন। তখন বন্দুকের নলের মুখে তাকে অপহরণ করে নিয়ে মুক্তিপণ দাবি করা হয়।

যদিও চার দিনের অগ্নিপরীক্ষার পর তিনি অক্ষত ফিরে আসতে সক্ষম হন।

এডোবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শান্তানু নারায়ন বলেন, ডেস্কটপ প্রকাশনায় তিনি বিপ্লব এনে দিয়েছেন। তার মৃত্যু পুরো এডোবি পরিবার ও প্রযুক্তি শিল্পের জন্য বড় ক্ষতি। গত কয়েক দশক ধরে তিনি ছিলেন এ জগতের নির্দেশক ও নায়ক।

তিনি আরও বলেন, গ্যাসকি ও জন ওয়ারনক এমন সফটওয়্যার উদ্ভাবন করছেন, যা সবকিছু বদলে দিয়েছে। মানুষের যোগাযোগের ক্ষেত্রে যা বিপ্লবী ভূমিকা রেখেছে।

পিডিএফ, অ্যাকরোব্যাট, ইল্লাসট্রেটর, প্রিমিয়ার প্রো ও ফটোশপের মতো সফটওয়্যার উদ্ভাবনে তারা ভূমিকা রেখেছেন।

২০০৯ সালে গ্যাসকি ও ওয়ারনককে জাতীয় প্রযুক্তি মেডেল দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

গ্যাসকির স্ত্রী ন্যান বলেন, তিনি ছিলেন খুবই বিনয়ী একজন মানুষ। তার সফলতার জন্য তিনি গর্বিত।

মারা গেলেন পিডিএফ ও ফটোশপের উদ্ভাবক চার্লস গ্যাসকি

 অনলাইন ডেস্ক 
১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৩:১৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সফটওয়্যার কোম্পানি এডোবির সহপতিষ্ঠাতা চার্লস গ্যাসকি মারা গেছেন। শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় তার মৃত্যু হয়েছে।

তার বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। ১৯৮২ সালে তিনি এডোবির প্রতিষ্ঠা করেন। পোর্টেবল ডকুমেন্ট ফরমেট বা পিডিএফ উদ্ভাবনেও সহায়তা করেন গ্যাসকি।

তবে বছর দশেক পরে তিনি পত্রিকার খবরের শিরোনাম হন। তখন বন্দুকের নলের মুখে তাকে অপহরণ করে নিয়ে মুক্তিপণ দাবি করা হয়।

যদিও চার দিনের অগ্নিপরীক্ষার পর তিনি অক্ষত ফিরে আসতে সক্ষম হন।

এডোবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শান্তানু নারায়ন বলেন, ডেস্কটপ প্রকাশনায় তিনি বিপ্লব এনে দিয়েছেন। তার মৃত্যু পুরো এডোবি পরিবার ও প্রযুক্তি শিল্পের জন্য বড় ক্ষতি। গত কয়েক দশক ধরে তিনি ছিলেন এ জগতের নির্দেশক ও নায়ক।

তিনি আরও বলেন, গ্যাসকি ও জন ওয়ারনক এমন সফটওয়্যার উদ্ভাবন করছেন, যা সবকিছু বদলে দিয়েছে। মানুষের যোগাযোগের ক্ষেত্রে যা বিপ্লবী ভূমিকা রেখেছে।

পিডিএফ, অ্যাকরোব্যাট, ইল্লাসট্রেটর, প্রিমিয়ার প্রো ও ফটোশপের মতো সফটওয়্যার উদ্ভাবনে তারা ভূমিকা রেখেছেন।

২০০৯ সালে গ্যাসকি ও ওয়ারনককে জাতীয় প্রযুক্তি মেডেল দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

গ্যাসকির স্ত্রী ন্যান বলেন, তিনি ছিলেন খুবই বিনয়ী একজন মানুষ। তার সফলতার জন্য তিনি গর্বিত।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন