ভিডিও স্ট্রিমিং জুমে নতুন ফিচার
jugantor
ভিডিও স্ট্রিমিং জুমে নতুন ফিচার

  আইটি ডেস্ক  

২৮ মে ২০২২, ০০:০০:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

ভিডিও স্ট্রিমিং জুমে নতুন ফিচার

বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে দ্রুততম সময়ে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা পাওয়া অ্যাপের তালিকা করলে ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ জুম থাকবে শুরুর দিকে। করোনাকালীন জুমই ছিল একমাত্র ভরসা। সবকিছু থমকে গেলেও লকডাউনে ঘরে বসেই অফিস, মিটিং সব সেরে নেওয়া গেছে জুমের মাধ্যমে। উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়িক ক্রেতাদের জন্য ২০১১ সালে অ্যাপটি তৈরি হলেও খুব কম মানুষই ব্যবহার করত করোনার সময় অনলাইন ক্লাস শুরু হওয়ার পরই বিশ্বে পরিচিত হলো জুম অ্যাপ।

জনপ্রিয়তা যেমন বাড়ছে তেমনি নতুন নতুন ফিচারে ঢেলা সাজাচ্ছে প্ল্যাটফরমটিকে। ব্যবহারকারীদের মিটিংয়ের একঘেয়েমি কাটাতে সম্প্রতি যুক্ত হয়েছে একাধিক নতুন ফিচার।

কোড অ্যাপ ফর জুম : কোড অ্যাপ ফর জুমের মাধ্যমে জুম কলের প্রতিটি অংশগ্রহণকারীদের বলার সুযোগ করে দেওয়া হবে। এ জন্য তাদের আলাদা করে আর কোনো ট্যাব ওপেন করতে হবে না। এ ছাড়া এ ফিচারের মাধ্যমে নিয়ে আসা হয়েছে একটি নতুন কোড #askwhy। এর মাধ্যমে প্রতিটি অংশগ্রহণকারী একে অপরের সম্পর্কে কিছু জানলে তা বাকিদের জানাতে পারবেন।

জুম ব্যাকগ্রাউন্ড রুমস : এটি জুমের একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ফিচার। এর মাধ্যমে জুম কলের অংশগ্রহণকারীরা ছোট ছোট গ্রুপে বিভক্ত হয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করতে পারবেন।

মাইরো : এটি একটি অনলাইন হোয়াইট বোর্ড। এর মাধ্যমে জুম কলের প্রতিটি অংশগ্রহণকারীদের কোলাবোরেটিভ ওয়ার্কস্পেস দেওয়া হয়। এর উদ্দেশ্য হলো প্রতিটি অংশগ্রহণকারী যেন সেই কলে অংশগ্রহণ করতে পারেন, কোক্রিয়েট করতে পারেন এবং রিয়েল টাইম আইডিয়া ক্যাপচার করতে পারেন। এ ছাড়া এ ফিচারের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের টুলসের সাহায্য পাওয়া যাবে।

টুইন ফর জুম : এটি জুমের অল ইন ওয়ান রুম ম্যানেজমেন্ট ফিচার। এটির মাধ্যমে যে কোনো মিটিংয়ের হোস্ট ক্রিয়েট করতে পারেন রুম বেসড মিটিং। এর মাধ্যমে অন কাস্টম রুলস, রোটেট বিটুইন টাইমড, ব্যাক টু ব্যাক ব্রেকআউট, চ্যাট অ্যাক্রস রুম ইত্যাদির সুবিধা পেতে পারেন ব্যবহারকারী।

ভিডিও স্ট্রিমিং জুমে নতুন ফিচার

 আইটি ডেস্ক 
২৮ মে ২০২২, ১২:০০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ভিডিও স্ট্রিমিং জুমে নতুন ফিচার
ভিডিও স্ট্রিমিং জুমে নতুন ফিচার

বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে দ্রুততম সময়ে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা পাওয়া অ্যাপের তালিকা করলে ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ জুম থাকবে শুরুর দিকে। করোনাকালীন জুমই ছিল একমাত্র ভরসা। সবকিছু থমকে গেলেও লকডাউনে ঘরে বসেই অফিস, মিটিং সব সেরে নেওয়া গেছে জুমের মাধ্যমে। উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়িক ক্রেতাদের জন্য ২০১১ সালে অ্যাপটি তৈরি হলেও খুব কম মানুষই ব্যবহার করত করোনার সময় অনলাইন ক্লাস শুরু হওয়ার পরই বিশ্বে পরিচিত হলো জুম অ্যাপ।

জনপ্রিয়তা যেমন বাড়ছে তেমনি নতুন নতুন ফিচারে ঢেলা সাজাচ্ছে প্ল্যাটফরমটিকে। ব্যবহারকারীদের মিটিংয়ের একঘেয়েমি কাটাতে সম্প্রতি যুক্ত হয়েছে একাধিক নতুন ফিচার।

কোড অ্যাপ ফর জুম : কোড অ্যাপ ফর জুমের মাধ্যমে জুম কলের প্রতিটি অংশগ্রহণকারীদের বলার সুযোগ করে দেওয়া হবে। এ জন্য তাদের আলাদা করে আর কোনো ট্যাব ওপেন করতে হবে না। এ ছাড়া এ ফিচারের মাধ্যমে নিয়ে আসা হয়েছে একটি নতুন কোড #askwhy। এর মাধ্যমে প্রতিটি অংশগ্রহণকারী একে অপরের সম্পর্কে কিছু জানলে তা বাকিদের জানাতে পারবেন।

জুম ব্যাকগ্রাউন্ড রুমস : এটি জুমের একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ফিচার। এর মাধ্যমে জুম কলের অংশগ্রহণকারীরা ছোট ছোট গ্রুপে বিভক্ত হয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করতে পারবেন।

মাইরো : এটি একটি অনলাইন হোয়াইট বোর্ড। এর মাধ্যমে জুম কলের প্রতিটি অংশগ্রহণকারীদের কোলাবোরেটিভ ওয়ার্কস্পেস দেওয়া হয়। এর উদ্দেশ্য হলো প্রতিটি অংশগ্রহণকারী যেন সেই কলে অংশগ্রহণ করতে পারেন, কোক্রিয়েট করতে পারেন এবং রিয়েল টাইম আইডিয়া ক্যাপচার করতে পারেন। এ ছাড়া এ ফিচারের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের টুলসের সাহায্য পাওয়া যাবে।

টুইন ফর জুম : এটি জুমের অল ইন ওয়ান রুম ম্যানেজমেন্ট ফিচার। এটির মাধ্যমে যে কোনো মিটিংয়ের হোস্ট ক্রিয়েট করতে পারেন রুম বেসড মিটিং। এর মাধ্যমে অন কাস্টম রুলস, রোটেট বিটুইন টাইমড, ব্যাক টু ব্যাক ব্রেকআউট, চ্যাট অ্যাক্রস রুম ইত্যাদির সুবিধা পেতে পারেন ব্যবহারকারী।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন