‘বিএনপিপন্থী’ আইডি দিয়ে কোটা আন্দোলনের ফেসবুক গ্রুপ হ্যাক!

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৫ জুলাই ২০১৮, ১৬:৫৪ | অনলাইন সংস্করণ

‘বিএনপিপন্থী’ আইডি দিয়ে কোটা আন্দোলনের ফেসবুক গ্রুপ হ্যাক! কোটা সংস্কার চাই (সব ধরনের চাকরির জন্য)
ছবি: ফেসবুক

সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে কোটা সংস্কার আন্দোলনের কার্যক্রম প্রচারে ব্যবহৃত গ্রুপ হ্যাকাররা দখল করে নিয়েছে।

বৃহস্পতিবার ভোর ৪টায় ‘কোটা সংস্কার চাই (সকল ধরনের চাকরির জন্য)’ নামক গ্রুপটিকে হ্যাক করা হয়েছে। এ কাজে ব্যবহার করা হয়েছে ‘বিএনপিপন্থী’ একটি ফেসবুক আইডি।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, তাদের গ্রুপটি দখলে নেয়ার পর থেকে হ্যাকাররা বিভ্রান্তিকর নানা পোস্ট দিচ্ছে।

শিক্ষার্থীরা জানান, আগে ‘কোটা সংস্কার চাই’ গ্রুপে ১০০ অ্যাডমিন ও মডারেটর ছিলেন। তারা আন্দোলন-সংক্রান্ত তথ্য, ছবি ও ভিডিও মডারেট করতেন।

এর ফলে সেখানে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত কোনো পোস্ট গ্রুপটিতে প্রকাশ করা সম্ভব হতো না। কেউ প্রকাশ করলেও সঙ্গে সঙ্গেই তা মুছে ফেলা হতো।

কিন্তু বৃহস্পতিবার ভোরে ‘কোটা সংস্কার চাই’ গ্রুপ থেকে আন্দোলনকারী সব অ্যাডমিন ও মডারেটরদের বাদ দেয়া হয়।

এরপর নতুন করে তিনটি আইডিকে অ্যাডমিন করা হয়। তা হলো ‘কামরুল ইসলাম’, ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’ ও ‘জনতার কণ্ঠ’।

শিক্ষার্থীরা জানান, প্রথমে কামরুল ইসলাম নামের একটি বিএনপিপন্থী আইডি হ্যাক করা হয়। পরে আইডিটি দিয়ে ‘কোটা সংস্কার চাই’ গ্রুপ হ্যাক করা হয়।

ভোর থেকে গ্রুপ করার বিষয়টি নিয়ে শিক্ষার্থীরা সরব হলে বিকালে ‘কামরুল ইসলাম’ আইডিটি অ্যাডমিন তালিকা থেকে বাদ দেয়া হয়।

গ্রুপ হ্যাক করার বিষয়ে বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৩টায় কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্লাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুনের সঙ্গে এই প্রতিবেদকের কথা হয়।

‘কোটা সংস্কার চাই’ গ্রুপটি হ্যাকাররা দখল করে নিয়েছে বলে যুগান্তরের কাছে নিশ্চিত করেন মামুন।

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার ভোর থেকে বিএনপিপন্থী একটি ফেসবুক আইডির মাধ্যমে আমাদের গ্রুপটি হ্যাক করে আন্দোলনকে ভিন্নখাতে পরিচালিত করার চেষ্টা চলছে।

গ্রুপটি হ্যাকে কে বা কারা জড়িত জানতে চাইলে মামুন বলেন, ছাত্রলীগ, তারা ছাড়া আর কেউ এই কাজ করতে পারে না।

আর এই দোষ বিএনপির ঘাড়ে চাপানোর জন্য তারা বিএনপির একটি ফেসবুক আইডি হ্যাক করে ওই আইডি দিয়ে আমাদের ফেসবুক গ্রুপ হ্যাক করেছ। তারা আমাদের সব অ্যাডমিন ও মডারেটরদের বের করে দিয়ে গ্রুপটির কর্তৃত্ব নিয়েছে।

হাসান আল মামুন বলেন, তারা আমাদের আন্দোলনকে রাজনৈতিক পক্ষপাতদুষ্ট হিসেবে রং লাগাতে চেষ্টা করছে। পাশাপাশি আন্দোলন নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। তবে সাধারণ শিক্ষার্থীরা সচেতন থাকায় তাদের কেউ বিভ্রান্ত করতে পারবে না।

ঘটনাপ্রবাহ : কোটাবিরোধী আন্দোলন ২০১৮

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter