বুধবার ঢাকায় পরীক্ষামূলক চালু হচ্ছে ফাইভজি

  এম. মিজানুর রহমান সোহেল ২৪ জুলাই ২০১৮, ১৮:০৯ | অনলাইন সংস্করণ

বুধবার ঢাকায় পরীক্ষামূলক চালু হচ্ছে ফাইভজি
বুধবার ঢাকায় পরীক্ষামূলক চালু হচ্ছে ফাইভজি

প্রজন্মের তারবিহীন সুপার স্পিড যোগাযোগ পদ্ধতি বা ফাইভজি ইন্টারনেট পরীক্ষা হবে আগামীকাল বুধবার। রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে চীনা প্রযুক্তি কোম্পানি হুয়াওয়ে এ পরীক্ষা চালাবে।

এ ক্ষেত্রে সহায়তা দেবে দুই মোবাইল ফোন অপারেটর রবি ও টেলিটক। একই দিন একই ভেন্যুতে ‘বাংলাদেশ ফাইভজি সামিট’ এর আয়োজন করা হয়েছে।

ইতিমধ্যে এ সংক্রান্ত দাওয়াতপত্রও বিলি করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় প্রধান অতিথি থেকে ওই সামিটের উদ্বোধন করবেন।

বিশেষ অতিথি থাকবেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করবেন।

গত মাসের শেষ দিকে দেশের তথ্যপ্রযুক্তি সাংবাদিকদের সংগঠন বিআইজেএফের এক আলোচনায় টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার প্রথম ফাইভজি’র পরীক্ষা চালানোর ঘোষণা দেন।

এদিকে ফাইভজির পরীক্ষা চালাতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন-বিটিআরসি হুয়াওয়েকে এক সপ্তাহের জন্য স্পেকট্রাম বরাদ্দ দিয়েছে।

বিটিআরসির সর্বশেষ কমিশন বৈঠকে এ জন্য অনুমোদন দেয়া হয়। হুয়াওয়ে অবশ্য তিন মাসের জন্য স্পেকট্রামের আবেদন করেছিল।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, ইতিমধ্যে এ জন্য প্রস্তুতি চলছে জোরেশোরে। চীন থেকে হুয়াওয়ে প্রযুক্তি আনার অনুষ্ঠানিকতা শুরু করেছে। টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার প্রথম ফাইভজির পরীক্ষা চালানোর ঘোষণা দেন।

বিভিন্ন উন্নত দেশে ইতিমধ্যে পরীক্ষামূলকভাবে ফাইভজি চলছে। চলতি বছরের শেষের দিকে অনেক বড় শহরে এর বাণিজ্যিক ব্যবহার শুরু হবে।

তবে বাংলাদেশের বাজার এখনও ফাইভজি প্রযুক্তি ব্যবহারের পর্যায়ে যায়নি বলে মনে করেন টেলিকম খাত সংশ্লিষ্টরা। তারা বলছেন, পঞ্চম প্রজন্মের প্রযুক্তি সেবা ব্যবহারে আরও অন্তত চার-পাঁচ বছর অপেক্ষা করতে হবে।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে মাত্র ফোরজির ব্যবহার শুরু হয়েছে। এখনও অনেক শহরে ফোরজি প্রযুক্তির ইন্টারনেট ব্যবহার শুরু হয়নি। আর সব মিলে মাত্র ৪০ লাখের মতো সিম ফোরজিতে রূপান্তর কিংবা নতুন করে যুক্ত হয়েছে।

নিয়মিত ব্যবহারকারী আরও কম। এর আগে ২০১৩ সালের ৮ সেপ্টেম্বরে দেশে থ্রিজির ব্যবহার শুরু হয়। নতুন নেটওয়ার্ক নিয়ে গবেষণায় হুয়াওয়ে ৬ হাজার ৪৭৮ কোটি টাকা বিনিয়োগ করছে।

হুয়াওয়ের পাশাপাশি টিম, টেলুস ও অন্যান্য নেটওয়ার্ক সেবাদাতারাও ফাইভজি নিয়ে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে।

চলতি বছর থেকেই কোয়ালকম, স্যামসাং ও ইন্টেল ফাইভজি নেটওয়ার্ক ব্যবহারের উপযোগী ফোন নিয়ে হাজির হতে যাচ্ছে। পরবর্তী প্রজন্মের এই ওয়্যারলেস প্রযুক্তি দৈনন্দিন জীবনযাত্রাকে অনেকখানিই পাল্টে দেবে বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

প্রযুক্তি-বিশ্লেষকরা বলছেন, বর্তমানে সর্বাধুনিক ফোরজি এলটিই প্রযুক্তিকে ছাপিয়ে যেতে হবে ফাইভজিকে। তারা বলছেন, ফাইভজির অর্থ যাই দাঁড়াক না কেন ২০২০ সালের মধ্যেই ফাইভজি প্রযুক্তির উন্নয়ন সম্পন্ন করে ফেলতে হবে।

স্বয়ংক্রিয়ভাবে গাড়ি চালানো, ভার্চুয়াল রিয়েলিটি, স্মার্ট সিটি ও নেটওয়ার্ক যুক্ত রোবট চালাতে ভূমিকা রাখবে ফাইভজি। এর বাইরেও অভাবনীয় কিছু কাজে ব্যবহার করা যাবে উচ্চগতির এ ইন্টারনেট প্রযুক্তি।

যদিও গত মার্চে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বিটিআরসিকে এক নির্দেশনায় বলেন, ২০২১ সালের ১৬ ডিসেম্বরের মধ্যে পঞ্চম প্রজন্মের (ফাইভজি) টেলিযোগাযোগ সেবা চালুর প্রস্তুতি নিতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, ফোরজি সেবা চালুর ক্ষেত্রে পার্শ্ববর্তী অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশ পিছিয়ে পড়েছিল। ফাইভজি চালুর ক্ষেত্রে আর পিছিয়ে পড়া যাবে না।

২০২০ সালের মধ্যে ফাইভজি চালু হবে অধিকাংশ দেশে। তাই ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশেও এই সেবা চালু করতে হবে।

বিটিআরসিকে এ সংক্রান্ত প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানিয়ে মোস্তাফা জব্বার বলেন, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি খাতে সময়োপযোগী অগ্রগতি ছাড়া কোনো দেশ এগোতে পারবে না।

তাই উন্নয়ন, অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির ধারা অব্যাহত রাখতে মানসম্পন্ন তথ্যপ্রযুক্তি সেবা নিশ্চিত করার তাগিদ দেন টেলিযোগাযোগমন্ত্রী। এদিকে দেশে পরীক্ষামূলক ফাইভজি চালুর বিষয়ে মঙ্গলবার একটি ফেসবুক স্ট্যাটাসে প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি–বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, এই মুহূর্তে আমি ট্রাফিকে আটকে আছি কিন্তু ঢাকাতে বসেই ঠিক আমেরিকার মতোই ফোরজি ইন্টারনেট সেবা পাচ্ছি।

আমরা কয়েকমাস আগে ফোরজি সেবা চালু করলেও ইতিমধ্যেই কাভারেজ বেশ ভালো বলে মনে হচ্ছে। এর জন্য টেলিকম কোম্পানিগুলোকে আমি ধন্যবাদ জানাই। আওয়ামী লীগ সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে আরেকটি মাইলফলক অর্জন।

সব শেষে তিনি লিখেছেন, আগামীকাল সকালে আমরা ফাইভজি প্রযুক্তির পরীক্ষামূলক প্রদর্শনী করবো।

ঘটনাপ্রবাহ : ফাইভজি

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter