হুয়াওয়ে নোভা থ্রিআই’র নজরকাড়া গ্রেডিয়েন্ট কালার

প্রকাশ : ৩০ আগস্ট ২০১৮, ১৭:২৬ | অনলাইন সংস্করণ

  আইটি ডেস্ক

হুয়াওয়ে নোভা থ্রিআই’র নজরকাড়া গ্রেডিয়েন্ট কালার। ছবি: যুগান্তর

২০১৭ সালে যখন থেকে বেজেল-বিহীন ডিসপ্লে জনপ্রিয়তা পায় তখন থেকেই স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো প্যানেল টেকনোলজিতে জোর দেয়। 

যার ফলে, স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো হ্যান্ডসেটের পেছনের অংশ আকর্ষণীয় করে গ্রাহকদের সেবার মান বৃদ্ধিতে আরো মনোযোগ বাড়ায়। 

অত্যাধুনিক প্রযুক্তিগুলোর মধ্যে অন্যতম এনসিভিএম কোটিং যা হ্যান্ডসেটের পেছনের অংশের রঙ ক্ষণে ক্ষণে ভিন্ন ভিন্ন রূপে উপস্থাপন করতে সহায়তা করে।    

সব ধরনের রঙ সম্পর্কিত শীর্ষস্থানীয় গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্যানটোন সম্প্রতি নীলাভ বেগুনি, আল্ট্রা ভায়োলেটকে ২০১৮ সালের সর্বোৎকৃষ্ট রঙ হিসেবে আখ্যায়িত করেছে।  

হুয়াওয়ে নোভা থ্রিআই’র আইরিশ বেগুনি রং-এর হ্যান্ডসেটটি নির্মাণে এই কালার টোন অনুসরণ করা হয়েছে। 

নজরকাড়া নোভা থ্রিআই’র পেছনের অংশে আলো পড়লেই দেখা যায় গোধূলিলগ্নের আকাশের মত চমৎকার নীল ও বেগুনি রংয়ের খেলা। 

প্রকৃতি এবং শিল্পের এক অদ্ভুত সংমিশ্রণ আইরিশ বেগুনি রঙ। গ্রেডিয়েন্ট কালারের এই রহস্যের পেছনের গল্প জানা যাক এবার। 

প্রাকৃতিক রঙ থেকে অনুপ্রাণিত 

গবেষণার মাধ্যমে বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করেছেন যে গুবরে পোকার ডানায় থাকা ধাতব প্রলেপের সঙ্গে পোকামাকড়ের চোখের রঙ এবং ঝিনুকের গায়ের রংধনুর মত মিশ্রণেরই একটি ফল এই কাঠামোগত রঙ।   
    
কাঠামোগত রঙ কি? 

ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অস্বাভাবিকতা যখন আলোর মাধ্যমে আমাদের চোখে দেখা রঙকে নানানভাবে উপস্থাপন করে তখনই প্রকৃতপক্ষে কাঠামোগত রং-এর সৃষ্টি হয় এবং নতুন সৃষ্ট রঙটি আসল রঙ এর চেয়ে বেশ আলাদা। 

একজন মানুষ যখন সেই রঙকে বিভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে দেখতে চান, তিনি সেটি একেক সময় একেক রং-এ দেখে থাকেন।  

প্রাকৃতিক কাঠামোগত রং-এর উপর ভিত্তি করেই হুয়াওয়ে নোভা থ্রিআই-তে ব্যবহার করা হয়েছে গ্রেডিয়েন্ট কালার। 

হ্যান্ডসেটটির পেছনের অংশে যখন আলো পড়ে তখন পাঁচ স্তরের ন্যানো কোটিং দেখা যায় এবং আলো যখন এই স্তরগুলো অতিক্রম করে তখন দৃষ্টিনন্দনভাবে হ্যান্ডসেটটির পেছনের অংশে লাল, কমলা, হলুদ, সবুজ রঙ-এর নানান খেলা প্রদর্শিত হয়। 


যার ফলে, আমাদের খালি চোখে শুধুমাত্র নীলাভ বেগুনি রঙয়ের আকর্ষণীয় আস্তরণ আমরা দেখতে পাই। হুয়াওয়ে নোভা থ্রিআই-তে ব্যবহৃত আইরিশ বেগুনি রঙ এতটাই শক্তিশালী যা কখনো বিবর্ণ হবেনা।  

শৈল্পিক উদ্যম পুরোপুরি প্রদর্শন করে এনসিভিএম

এনসিভিএম পদ্ধতিতে হুয়াওয়ে নোভা সিরিজের হ্যান্ডসেটগুলোতে ব্যবহার করা হয়েছে গ্রেডিয়েন্ট কালার। মহাকাশ এবং পারমাণবিক শিল্পে ব্যবহৃত প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে গ্রেডিয়েন্ট কালার বানানো হয়েছে। 

প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষা করেই এই অত্যাধুনিক প্রযুক্তি কাজে লাগানো হয়। সম্পূর্ণ ধুলোমুক্ত পরিবেশে রঙ এর আস্তরণের কাজ করা হয় নয়তো একটি ধুলোকণাই যথেষ্ট পুরো কোটিং প্রসেসকে নষ্ট করার জন্য।