এশিয়ায় মাইক্রোসফটের এয়ারব্যান্ড পুরষ্কার পাচ্ছে একমাত্র বাংলাদেশ

প্রকাশ : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৬:৩৪ | অনলাইন সংস্করণ

  আইটি ডেস্ক

এশিয়ায় মাইক্রোসফটের এয়ারব্যান্ড পুরষ্কার পাচ্ছে একমাত্র বাংলাদেশ। ছবি: সংগৃহীত

উদীয়মান স্টার্টআপের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র, আফ্রিকা ও এশিয়ার সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর কাছে ইন্টারনেট সুবিধা ও ক্লাউড সমাধান পৌঁছে দিতে মাইক্রোসফটের তৃতীয় বার্ষিক এয়ারব্যান্ড গ্রান্ট ফান্ডের জন্য মনোনীত প্রাথমিক পর্যায়ে থাকা আটটি স্টার্টআপের নাম ঘোষণা করেছে প্রতিষ্ঠানটি। 

মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের কাছে সৌরবিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়া এমই সোলশেয়ার এ ফান্ড পাওয়ার জন্য এশিয়ার একমাত্র প্রতিষ্ঠান হিসেবে মনোনীত হয়েছে। 

মাইক্রোসফট নির্বাচিত এ স্টার্টআপগুলোর প্রকল্পে অর্থ বিনিয়োগ করবে পাশাপাশি তাদের প্রযুক্তি ব্যবহারের সুবিধা দিবে, প্রশিক্ষণ দিবে, নেটওয়ার্কিংয়ে সুযোগ করে দিবে এবং তাদের কানেক্টিভিটি সল্যুশন সেবাকে গতিশীল করতে সার্বিক অন্যান্য সহায়তা প্রদান করবে। 

যেসব স্টার্টআপ সুবিধাবঞ্চিত ও প্রত্যন্ত অঞ্চলে সাশ্রয়ী ইন্টারনেট সল্যুশন উন্নয়নের মাধ্যমে মানুষদের সংযুক্ত করবে এবং ইন্টারনেটচালিত এমন সব অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করবে।

এর মাধ্যমে শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা ও ক্ষুদ্র ব্যবসার উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে- সেসব স্টার্টআপকেই এ বছর অনুদান দেয়ার জন্য নির্বাচিত করা হয়। 

এমই সোলশেয়ার বাংলাদেশে ওয়াই-ফাই টাওয়ার সংযুক্ত পিয়ার টু পিয়ার সোলার এনার্জি ট্রেডিং প্ল্যাটফর্ম নির্মাণে কাজ করে যাচ্ছে। 

প্রতিষ্ঠানটি ডিস্ট্রিবিউটেড লেজার টেকনোলজির ওপর ভিত্তি করে তৈরি পিয়ার টু পিয়ার সোলার এনার্জি ট্রেডিং প্ল্যাটফর্ম নিয়ে কাজ করছে।

পাশাপাশি, প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশের সব মানুষের কাছে সাশ্রয়ী সৌরবিদ্যুৎ পৌঁছে দিতে উদ্ভাবনী উপায় নিয়ে আসার মাধ্যমে যুগান্তকারী ভূমিকা রেখেছে। 

এ প্রকল্পের অধীনে দেশের আরও অনেক পরিবারের কাছে বিদ্যুৎ পৌঁছাবে যারা এর আগে কখনও বিদ্যুৎ সুবিধা পায়নি। 

এ প্রকল্পের মাধ্যমে আরও অনেক বেশি পরিবার আগের চেয়ে স্বাচ্ছন্দ্যে ও সাশ্রয়ী মূল্যে বিদ্যুৎ সেবা পাবে পাশাপাশি, তারা বাসার সৌরবিদ্যুৎ ব্যবস্থার (এসএইচএস) মাধ্যমে জাতীয় গ্রিডের বিদ্যুৎ নগদ অর্থে পরিণত করে  সরাসরি আয় করতে পারবে। 

এমই সোলশেয়ার মাইক্রোসফটের এ ফান্ড ব্যবহার করে ইন্টারনেট সেবাদাতাদের সাথে অংশীদারিত্ব করবে, যার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি সাইটের সাথে সংযুক্ত হওয়ার মাধ্যমে মোবাইল মানি পার্টনার শনাক্ত করতে এবং সুরক্ষিত মোবাইল মানি নির্মাণে ও এনার্জি রাউটিং মেকানিজমে কাজ করবে। 

এ নিয়ে মাইক্রোসফট বাংলাদেশ, মিয়ানমার, নেপাল, ভুটান ও লাওসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোনিয়া বশির কবির বলেন, মাইক্রোসফট এয়ারব্যান্ড গ্রান্ট ফান্ডের বিজয়ী হওয়া এমই সোলশেয়ার ও বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত গর্বের ডিজিটাল অন্তর্ভুক্তি ও ডিজিটাল ডিভাইডের মধ্যে সেতুবন্ধন প্রত্যন্ত জনগোষ্ঠীর মানুষদের ক্ষমতায়ন ঘটাতে সহায়তা করবে। 

সোনিয়া বশির কবির বলেন, আমাদের বিশ্বাস, উদ্যোক্তাদের নিয়ে একসাথে কাজ করার মাধ্যমে আমরা এটা করতে পারবো।

এমই সোলশেয়ার চিফ টেকনিক্যাল অফিসার হ্যানেস কেহফ বলেন, এমই সোলশেয়ার প্ল্যাটফর্ম প্রতিষ্ঠানের দিকে রূপান্তর প্রক্রিয়া চলছে। 

তিনি বলেন, মাইক্রোসফট এয়ারব্যান্ড উদ্যোগের অংশ হওয়ার কারণে এ প্রক্রিয়া আরও গতিশীল হবে পাশাপাশি, আমরা উৎকর্ষের দিকে আগাবো। এক্ষেত্রে, উল্লেখযোগ্য একটি উদাহরণ হচ্ছে, সব জায়গায় যোগাযোগ অবকাঠামো নিয়ে পৌঁছে যাওয়া।

এয়ারব্যান্ড গ্রান্ট মাইক্রোসফটের এয়ারব্যান্ড উদ্যোগেরই অংশ যা সাশ্রয়ী ইন্টারনেট সেবার পাওয়ার ক্ষেত্রে সকল প্রতিবন্ধকতা পেছনে ফেলে সামনে এগিয়ে যাওয়া নিয়ে কাজ করে। 

প্রাথমিক পর্যায়ে থাকা সম্ভাবনাময় স্টার্টআপ যারা অভিনব প্রযুক্তি, সেবা ও ব্যবসায়িক মডেল তৈরিতে কাজ করছে তাদের সহায়তাদান করে এয়ারব্যান্ড উদ্যোগ।