একুশে যুগান্তর

সত্য, বস্তুনিষ্ঠ ও নির্ভীক সাংবাদিকতার নীতিমালা অনুসরণ করে আজ থেকে একুশে পাড়ি জমাল যুগান্তর। দীর্ঘ দুই দশকের এই পথচলায় বিনোদন জগতের তারকাও আমাদের সঙ্গী ছিলেন নিরন্তর। সঙ্গীত, চলচ্চিত্র, নাটক, মঞ্চ, নৃত্য সব মাধ্যমের তারকাই ছিলেন আমাদের পথচলার প্রিয় সারথী। তারা কী বলেন আমাদের ২১তম জন্মদিনে? তা নিয়েই সাজানো হয়েছে আজকের আয়োজন।

  যুগান্তর ডেস্ক    ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

খাদ্যে ভেজালের প্রতিও যেন দৃষ্টি থাকে

যুগান্তর আমার দেখা ভালো মানের একটি পত্রিকা। সাহসের সঙ্গে তারা বস্তুনিষ্ঠ ও সত্য খবর পরিবেশন করে আসছে। এটা শুধু আমার কথা নয়, বিগত দিনগুলোতে পত্রিকাটির কর্মকাণ্ড দেখলেই তা বোঝা যায়। ২১তম জন্মদিনে যুগান্তরের কাছে আমার অনুরোধ, ঢাকাসহ মফস্বল শহরগুলোতে যারা খাদ্যে ভেজাল দেয় তাদের বিরুদ্ধে যেন আরও শক্ত অবস্থান নেয় পত্রিকাটি। আমি আশা করছি যুগান্তর এ কাজটি করতে পারবে। এছাড়াও যুগান্তরের বিনোদন বিভাগের প্রতিও শুভ কামনা রইল। কারণ তারা আমাদের শোবিজের সুন্দর ও গঠনমূলক সংবাদ প্রকাশের মাধ্যমে বিনোদন জগৎটিকে সঠিক পথে চলার দিকনির্দেশনাও দিয়ে যাচ্ছে। যুগান্তরে কর্মরত সব সাংবাদিকের প্রতি আমার শুভ কামনা ও সালাম রইল। আগামী দিনগুলোতে সত্যের সন্ধানে নির্ভীক হয়ে এগিয়ে চলার পথটা যেন আরও মসৃণ হয়। শুভ জন্মদিন যুগান্তর।

- আমিন খান, চলচ্চিত্র অভিনেতা

নিজেদের সেরাটা দিয়ে সবার সেরা যুগান্তর

বিশ বছর হয়ে গেছে যুগান্তরের বয়স! আমার মনে হচ্ছে এ তো কিছুদিন আগে পত্রিকাটির জন্ম হল। ২০০০ সালটাও কিন্তু খুব দূরের নয়। কতজনকে হারিয়েছি, কতজনকে আবার পেয়েছি এবং সঙ্গীতের অনেক বদল দেখেছি। এসব বিষয়ে অন্য পত্রিকার মতো যুগান্তরও পাশে ছিল আমার। একদিন, দু’দিন, তিন দিন নয়, যুগ যুগ ধরে নিজেদের সেরাটা দিয়ে সেরা হয়ে থাকবে সবার মাঝে যুগান্তর। এটাই প্রত্যাশা এবারের জন্মদিনে। অতীতের মতো সঙ্গীতাঙ্গনের ভালো খবরগুলো প্রকাশ করে সঙ্গীতাঙ্গনকে উৎসাহিত করার কাজটি সুচারুভাবে করে যাক যুগান্তর। ভালো থাকুক আমার প্রিয় এ পত্রিকাটি।

- জেমস, সঙ্গীতশিল্পী

যুগান্তর ভালোবাসার পত্রিকা

আমার একাধিক ভালোলাগার পত্রিকার মাঝে যুগান্তর অন্যতম। এ পত্রিকার বিনোদনসহ অন্য বিভাগগুলোও আমার ভালো লাগে। প্রিন্ট ভার্সন পড়তে না পারলেও অনলাইন ভার্সনে পুরো পত্রিকাটাই নিয়মিত পড়া হয়। এগিয়ে যাক যুগান্তর। শুভ কামনা যুগান্তরের জন্য। বিশ বছরের সফল পথচলা শেষ করে একুশে পদার্পণ করেছে এটি। একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ সফলভাবে কাজের মধ্য দিয়ে মোকাবেলা করে নিয়মিত প্রকাশের মধ্য দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে, যা মোটেও সহজ কাজ নয়। বিনোদন সংবাদটাই সবার আগে পড়া হয় এ পত্রিকার। এ বিভাগে যেসব খবর প্রকাশ হয়, তা পাঠযোগ্য এবং উৎসাহমূলক। দেশের বিনোদন জগতের খবর এখানে বেশি থাকে। এটা আমাদের শোবিজের জন্য ইতিবাচক একটি বিষয়। এগিয়ে যাক যুগান্তর। শুভ কামনা শুভক্ষণে।

- আদিল হোসেন নোবেল, মডেল ও অভিনেতা

শুরু থেকেই যুগান্তরকে সঙ্গী পেয়েছি

যুগান্তর সঙ্গীতের পাশে ছিল, আছে এবং থাকবে। আমাদের সঙ্গীত জগৎটাকে যেন আরও সুন্দরভাবে মানুষের কাছে তুলে ধরে- এটিই যুগান্তরের কাছে আমার চাওয়া। বিশ বছর অতিক্রম করেছে পত্রিকাটি। আমি চাই, এটি যেন আরও অনেক বছর টিকে থাকে এবং মানুষের ভালোবাসা নিয়ে এগিয়ে যায়। আমার সঙ্গীত জীবনের শুরু থেকেই যুগান্তরের কাছ থেকে সুন্দর সুন্দর কাভারেজ পেয়েছি। এজন্য আমি ভীষণ কৃতজ্ঞ। আমি চাই, যুগান্তর যেন আরও অনেক দিন সত্য ও সুন্দর খবর প্রকাশ করে এগিয়ে যেতে থাকে।

- হৃদয় খান,

সঙ্গীতশিল্পী ও সঙ্গীত পরিচালক

যুগান্তর আমার খুবই প্রিয়

যুগান্তর আমার অনেক প্রিয় একটি পত্রিকা। বিশেষ করে বিনোদন বিভাগটির সঙ্গে সবচেয়ে বেশি যোগাযোগ। আমি মিডিয়াতে কাজ শুরুর পর এ পত্রিকার বিনোদন সংবাদকর্মীদের সঙ্গে আমার সুন্দর সম্পর্ক তৈরি হয়। তাদের মাধ্যমে এ পত্রিকায় আমার ভালো কাজের খবরগুলো সবার আগে প্রকাশ হয়। এছাড়া শুধু আমার নয়, আমার সহকর্মী যারা কাজ করছেন তাদের খবরও এখানে গুরুত্ব অনুযায়ী প্রকাশ হয়। এভাবে নিয়মিত যোগাযোগের মধ্য দিয়ে একটি আত্মিক সম্পর্ক তৈরি হয়েছে পত্রিকাটির সঙ্গে। আগামী দিনগুলোতে সম্পর্কের এ অভিযাত্রা অক্ষুণ্ন্ন থাকবে এবং সেসঙ্গে আগের মতোই অনুপ্রেরণা পাব এ পত্রিকা থেকে।

- বাপ্পী চৌধুরী, চিত্রাভিনেতা

যুগান্তর আমার ভালোবাসা

মডেলিং কিংবা অভিনয়- এ দু’মাধ্যমের কাজে সারা বছরই ব্যস্ত থাকি আমি। আমার এসব কর্মকাণ্ডগুলো যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে পরিবেশন করে যুগান্তর, যা একজন মিডিয়াকর্মী হিসেবে আমার ভালো লাগে। আমাদের সঙ্গে দর্শক কিংবা পাঠকদের অভিনয়ের বাইরে যোগাযোগের মাধ্যম কিন্তু সংবাদপত্র। এ যোগসূত্রের সূত্রধর হিসেবে যুগান্তরের ভূমিকা বেশ শক্তিশালী। এ পত্রিকার বিনোদন বিভাগে দেশীয় নাটক, সিনেমা ও সঙ্গীতের খবরগুলোকে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়, যা আমাদের বিনোদনজগতের জন্য একটি বড় অর্জন। গঠনমূলক সমালোচনার কারণে যুগান্তরের প্রতি সবাই আস্থাশীল। যুগান্তরের এ ধারা অব্যাহত থাকুক। - নিরব, চিত্রনায়ক

সংবাদ প্রকাশে যুগান্তর সবসময়ই স্বচ্ছ

আমার ভীষণ ভালোলাগার একটি পত্রিকা যুগান্তর। যুগান্তরের বয়স আর আমার মিডিয়ায় কাজ করার বয়স প্রায় কাছাকাছি। আমি শুরু থেকে যে ক’টি পত্রিকা পাশে পেয়েছি, তার মধ্যে যুগান্তর অন্যতম। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশে যুগান্তর অন্যতম। বিনোদনে যুগান্তরের সাংবাদিক ভাইদের লেখা বরাবরই আলাদা একটা জায়গা তৈরি করে। সবচেয়ে ভালোলাগার বিষয় হচ্ছে সংবাদ প্রকাশে যুগান্তর সবসময়ই স্বচ্ছ এবং পরিষ্কার। শুরু থেকে যুগান্তরকে যেভাবে পাশে পেয়েছি, ভবিষ্যতেও এভাবে পাব বলে আশা করি। ভালোবাসা নিয়ে এগিয়ে যাক ভালোবাসার প্রিয় পত্রিকা যুগান্তর। আমার মতো ভালোবাসার পত্রিকা হয়ে থাকুক সবার অন্তরে। শুধু দুই দশক নয়, আরও অসংখ্য দশক যেন সৃষ্টিশীল কাজ নিয়ে টিকে থাকে যুগান্তর। জন্মদিনের শুভক্ষণে এ কামনা করি মনের গহিন থেকে।

- আবদুন নূর সজল, অভিনেতা

দর্শকের সঙ্গে আমার সেতুবন্ধ যুগান্তর

আমার মিডিয়া ক্যারিয়ার খুব বেশি দিনের নয়। এ অল্প দিনের ক্যারিয়ারে যেসব সংবাদপত্রের লেখনীর মাধ্যমে উৎসাহিত হয়েছি তার মধ্যে যুগান্তর অন্যতম। কারণ পাঠক ও দর্শকের সঙ্গে আমার সেতুবন্ধ হিসেবে যুগান্তর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। এ পত্রিকায় আমার যে খবরগুলো প্রকাশ হয়েছে, তার জন্য পাঠকের কাছে থেকেও আশাতীত সাড়া পেয়েছি। আমার বিভিন্ন কাজের সংবাদ, সাক্ষাৎকার এবং আমার অন্য কাজের সর্বশেষ তথ্য জানিয়ে যাচ্ছে যুগান্তর। তাই আমি এ পত্রিকাটির কাছে কৃতজ্ঞ। নতুন বছর বেশ কিছু ভালো কাজের সঙ্গে যুক্ত হব। এছাড়া গত বছরের কিছু কাজ এ বছরে দর্শকের সামনে আসবে। এসব কাজসহ সামনের দিনগুলোতেও অতীতের মতো যুগান্তরকে পাশে পাব, এ প্রত্যাশা রাখি। যুগান্তরের জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা। শুভ জন্মদিন যুগান্তর।

- নুসরাত ফারিয়া, চিত্রনায়িকা

আরও পড়ুন

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৫৬ ২৬
বিশ্ব ১০,০০,১৬৮২,১০,১৯১৫১,৩৫৪
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×