হ্যালো...

ছবিতে অভিনয়ে অনাগ্রহ নেই

  সোহেল আহসান ১১ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সুন্দরী প্রতিযোগিতা দিয়ে মিডিয়ায় আসেন আজমেরী হক বাঁধন। এরপর নাটকে অভিনয়ে ব্যস্ত হন।

তবে দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে নাটকে অভিনয় করছেন না তিনি। অবশ্য এ বিরতিতে একটি ছবিতে অভিনয় করেছেন। এ ছবি ও অন্য বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি

* যুগান্তর: আপনার অভিনীত নতুন ছবিটির সর্বশেষ অবস্থা কী?

** বাঁধন: এটির শুটিং শেষ হয়েছে। পরিচালনা করেছেন আবদুল্লাহ মুহম্মদ সাদ। ছবিটি মুক্তির কথা শুনেছিলাম। কিন্তু সম্ভবত করোনাভাইরাসের কারণে এখন আর মুক্তি পাচ্ছে না। মুক্তির তারিখ নির্ধারণ হলে সাংবাদিকদের ডেকে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরব। কারণ এটি আমার জীবনের গুরুত্বপূর্ণ একটি অধ্যায়। এ ছবির জন্য আমি মানসিকভাবে অনেক পরিবর্তিত হয়েছি। আমার সময়, বিশ্বাস এবং পরিশ্রম দিয়ে ছবিটিতে অভিনয় করেছি। এর পুরো কৃতিত্ব আমি পরিচালককে দিতে চাই।

* যুগান্তর: শিগগিরই নতুন কোনো ছবিতে কী অভিনয় করবেন?

** বাঁধন: ছবিতে অভিনয়ে আমার অনাগ্রহ নেই। এরই মধ্যে নতুন ছবি নিয়ে কয়েকজনের সঙ্গে কথাও হয়েছে। কিন্তু এগুলোতে বুঝে কাজ করতে হবে। কারণ, দর্শক ও শুভাকাক্সক্ষীরা আমার দিকে তাকিয়ে আছেন। তাই গড়পড়তা কাজে যুক্ত হতে চাই না। শুটিং শেষ হওয়া ছবিটির ফলাফলের দিকেও তাকিয়ে আছি। এরপরই অন্য কাজগুলোর দিকে মনোযোগ দেব কিংবা কর্ম পরিকল্পনা সাজাব।

* যুগান্তর: রাজনৈতিক কর্মসূচিতেও দেখা যায় আপনাকে। এ নিয়ে কোনো পরিকল্পনা আছে?

** বাঁধন: আমি রাজনীতি করি না। আমার কাছে মনে হয় দেশকে ভালোবাসার জন্য রাজনীতি করতে হবে এমন কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। আমি মনে করি, প্রত্যেক নাগরিককেই তার দেশকে ভালোবাসা উচিত। এ সরকারের আমলে একজন নারী বিচারক আমার মেয়ের অভিভাবকত্ব দিয়ে রায় ঘোষণার সাহস করতে পেরেছেন। এটি একটি বিরল ঘটনা। কারণ মাকে কিন্তু গার্ডিয়ানশিপ দেয়া হয় না। যেহেতু এ সরকারের আমলে রায়টা আমি পেয়েছি, তাই তাদের কাছে আমি চিরকৃতজ্ঞ থাকব। এ কৃতজ্ঞতা থেকেও আমি অনেক কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত হই। রাজনীতিতে যুক্ত হওয়ার কোনো ইচ্ছা আমার নেই।

* যুগান্তর: আপনি একজন দন্ত চিকিৎসকও। এ নিয়ে কোনো কাজ করছেন?

** বাঁধন: চেম্বার দিয়ে রোগী দেখার পরিকল্পনা করেছিলাম। কিন্তু নানা কারণে সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে বিলম্ব হচ্ছে। তবে ডাক্তারি কাজ না করলেও দন্ত চিকিৎসকদের সংগঠন বাংলাদেশ ডেন্টাল সোসাইটির একজন নির্বাচিত সংগঠক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। ২০ মার্চ আমাদের এ সংগঠনের আয়োজনে একটি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ায় কথা ছিল। কিন্তু অনিবার্য কারণে সেটি স্থগিত করা হয়েছে।

* যুগান্তর: একটি এনজিওর হয়েও কাজ শুরু করেছিলেন। সেটির কাজে কি এখনও যুক্ত আছেন?

** বাঁধন: হ্যাঁ। এনজিওটির নাম ‘হিরোস ফর অল’। এটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমি। প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন সামাজিক সচেতনতামূলক কর্মকাণ্ড নিয়ে কাজ করে। এছাড়া আমি নারীদের উন্নয়নের লক্ষে তাদের সচেতন করার কাজটাও চালিয়ে যাচ্ছি।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত