বিরতিহীন বাঁধন
jugantor
বিরতিহীন বাঁধন

  আনন্দনগর প্রতিবেদক  

১৬ মে ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাসের প্রকোপের অনেক আগে থেকেই মিডিয়ায় কাজ করার পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডে নিজেকে যুক্ত রেখেছেন অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন। একাধিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত হয়ে বছরব্যাপী কাজ করেন এ অভিনেত্রী। এবার শিশুদের উন্নয়নের দিকে মনোযোগ দিয়েছেন তিনি। একটি সামাজিক সংগঠনের হয়ে এবার মাঠে নামছেন। এ কাজের প্রথম কিস্তি শুরু করবেন ১৭ মে। এদিন তিনি শিশুদের অধিকার, নির্যাতনসহ কয়েকটি বিষয়কে প্রাধান্য দিয়ে ফেসবুক লাইভে করবেন। এ ছাড়া করোনা প্রকোপ শেষ হওয়ায় পর বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে সবাইকে সচেতন করার কাজটিও করার পরিকল্পনা করেছেন তিনি। এ প্রসঙ্গে বাঁধন বলেন, ‘অভিনয় কিংবা মডেলিংয়ের মধ্যেই নিজেকে সীমিত রাখিনি। কয়েক বছর ধরেই সামাজিক কাজে আত্মনিয়োগ করেছি। যেখানেই যেভাবে কাজ করছি, সবার কাছ থেকে ইতিবাচক সাড়া পাচ্ছি। যতদিন বেঁচে আছি, ঠিক ততদিনই এসব কাজে নিজেকে যুক্ত রাখব। শিশুদের নিয়ে কাজ করার বিষয়টি অল্প কিছুদিন আগে মাথায় এসেছে। স্বল্প পরিসরে ওদের নিয়ে কাজ শুরু করছি।’ অন্যদিকে দু’বছর আগে মরণোত্তর চক্ষু দান করেছেন এ অভিনেত্রী। এ ছাড়া তিনি একজন রেজিস্টার্ড দন্ত চিকিৎসকও। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে চিকিৎসকের কাজটিও শুরু করবেন বলে জানিয়েছেন। এদিকে দীর্ঘ দুই বছর বিরতির পর অভিনয়ে ফিরেছেন বাঁধন। ফিরতি যাত্রায় অভিনয় করেছেন একটি ছবিতে। এটি পরিচালনা করেছেন আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ। লকডাউন শেষে ছবিটি মুক্তি দেয়া হবে বলে জানা গেছে।

বিরতিহীন বাঁধন

 আনন্দনগর প্রতিবেদক 
১৬ মে ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাসের প্রকোপের অনেক আগে থেকেই মিডিয়ায় কাজ করার পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডে নিজেকে যুক্ত রেখেছেন অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন। একাধিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত হয়ে বছরব্যাপী কাজ করেন এ অভিনেত্রী। এবার শিশুদের উন্নয়নের দিকে মনোযোগ দিয়েছেন তিনি। একটি সামাজিক সংগঠনের হয়ে এবার মাঠে নামছেন। এ কাজের প্রথম কিস্তি শুরু করবেন ১৭ মে। এদিন তিনি শিশুদের অধিকার, নির্যাতনসহ কয়েকটি বিষয়কে প্রাধান্য দিয়ে ফেসবুক লাইভে করবেন। এ ছাড়া করোনা প্রকোপ শেষ হওয়ায় পর বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে সবাইকে সচেতন করার কাজটিও করার পরিকল্পনা করেছেন তিনি। এ প্রসঙ্গে বাঁধন বলেন, ‘অভিনয় কিংবা মডেলিংয়ের মধ্যেই নিজেকে সীমিত রাখিনি। কয়েক বছর ধরেই সামাজিক কাজে আত্মনিয়োগ করেছি। যেখানেই যেভাবে কাজ করছি, সবার কাছ থেকে ইতিবাচক সাড়া পাচ্ছি। যতদিন বেঁচে আছি, ঠিক ততদিনই এসব কাজে নিজেকে যুক্ত রাখব। শিশুদের নিয়ে কাজ করার বিষয়টি অল্প কিছুদিন আগে মাথায় এসেছে। স্বল্প পরিসরে ওদের নিয়ে কাজ শুরু করছি।’ অন্যদিকে দু’বছর আগে মরণোত্তর চক্ষু দান করেছেন এ অভিনেত্রী। এ ছাড়া তিনি একজন রেজিস্টার্ড দন্ত চিকিৎসকও। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে চিকিৎসকের কাজটিও শুরু করবেন বলে জানিয়েছেন। এদিকে দীর্ঘ দুই বছর বিরতির পর অভিনয়ে ফিরেছেন বাঁধন। ফিরতি যাত্রায় অভিনয় করেছেন একটি ছবিতে। এটি পরিচালনা করেছেন আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ। লকডাউন শেষে ছবিটি মুক্তি দেয়া হবে বলে জানা গেছে।