নুরুল ইসলাম ১৯৪৬-২০২০

যেতে নাহি দেব হায় তবু যেতে দিতে হয়

যেতে দিতে মন চায় না কারও, মানুষ তবু চলে যায়! তারপরও মনের জানালায় বারবার উঁকি দিয়ে যায় সেই প্রিয় মুখ। তিনি যমুনা গ্রুপের বরেণ্য চেয়ারম্যান, আমাদের প্রিয় অভিভাবক বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম। সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন ১৩ জুলাই ২০২০। তিনি ছিলেন দেশের শিল্প খাতের একজন অনন্য সফল উদ্যোক্তা। ছিলেন মিডিয়াবান্ধব। বিনোদন জগতের বিশিষ্টজন ও ছোট-বড় অনেক তারকার সঙ্গেও ছিল তার আন্তরিক সম্পর্ক। তার মৃত্যুতে শোকাহত দেশের শোবিজ অঙ্গনের তারকারাও।

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৫ জুলাই ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

যমুনা গ্রুপ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম, ছবি সংগৃহীত

করোনার এই দুর্যোগময় মুহূর্তে আপনজন হারানোর খবর শুনতে শুনতে খুব ক্লান্ত। এক এক করে সবাই চলে যাচ্ছে। আসলেই সময়টা খুব খারাপ যাচ্ছে আমাদের। শিল্পাঙ্গন, সংস্কৃতি অঙ্গন- সব কিছুতেই মন খারাপ করা খবর। এর মধ্যে নুরুল ইসলাম বাবুল ভাই চলে যাওয়ার খবর সত্যিই আমাকে ব্যথিত করেছে। উদ্যোক্তা হিসেবে সফল একজন মানুষ তিনি। তার প্রতিষ্ঠিত শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোতে কর্মরত অসংখ্য মানুষ।

মিডিয়াবান্ধব ছিলেন তিনি। তার প্রতিষ্ঠিত গণমাধ্যম ‘যুগান্তর’ ও ‘যমুনা টিভি’কে সব সময় কাছে পেয়েছি। বাবুল ভাইয়ের এভাবে চলে যাওয়া আমাদের কারও প্রত্যাশিত নয়। দেশকে আরও অনেক কিছু দেয়ার ছিল তার। দোয়া করি পরপারে ভালো থাকুন তিনি।

- গাজী মাজহারুল আনোয়ার, গীতিকার ও চলচ্চিত্রকার

যদিও আমার সঙ্গে কখনই তার দেখা হয়নি কিংবা কথা হয়নি, কিন্তু তার হঠাৎ এই চলে যাওয়া আমাদের জন্য সত্যিই অনেক কষ্টের। অনেক বড় দুঃখজনক একটি সংবাদ সবার জন্য। করোনায় আমরা অনেককেই হারাচ্ছি। এই হারানোর শোক কাটিয়ে ওঠা খুব কঠিন। দেশের অবস্থা এমনিতেই ভালো নয়, বিশেষ করে অর্থনৈতিক অবস্থা। এই অর্থনীতির চাকা সচল রাখার গুরু দায়িত্ব কাঁধে নিয়ে যারা মাঠে ছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম নুরুল ইসলাম বাবুল। তার প্রতিষ্ঠিত প্রতিষ্ঠানগুলোর মাধ্যমে খেয়ে পরে বেঁচে আছেন দেশের অসংখ্য মানুষ। কিন্তু তিনিও চলে গেলেন! এভাবে হারানোর ব্যথা সহ্য করা আসলেই কঠিন। তার পরিবারকে এ শোক সইবার শক্তি আল্লাহ দান করুন। আমি তার আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি।

- রুনা লায়লা, সঙ্গীতশিল্পী

বাংলাদেশের একজন সফল শিল্পোদ্যোক্তা ছিলেন নুরুল ইসলাম বাবুল। যমুনা গ্রুপ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে তিনি দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে যাচ্ছিলেন। এই মানুষটি যখন অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন তখন থেকেই অবগত ছিলাম আমি। ভেবেছিলাম হয়তো আল্লাহ তাকে আমাদের মধ্যে ফিরিয়ে দেবেন। কিন্তু তার আর ফেরা হল না। এভাবে একে একে আমাদের অনেক বড় শিল্পোদ্যোক্তা চলে যাচ্ছেন, এটা যেমন আমাদের জন্য ক্ষতির কারণ, তেমনি কষ্টেরও বিষয়। আমার বিশ্বাস, তার রেখে যাওয়া প্রতিষ্ঠানের মধ্যে, তার কর্মীদের মধ্যে তিনি বেঁচে থাকবেন। আমি তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।

- শবনম, চলচ্চিত্রাভিনেত্রী

হঠাৎ করেই বাবুল ভাইয়ের মৃত্যুর খবরটা শুনে মন খারাপ হয়ে গেল। কী যে শুরু হল চারদিকে। আর যে এই একের পর এক চলে যাওয়া মেনে নিতে পারছি না। বাবুল ভাইয়ের সঙ্গে কিছুদিন আগেও একটি অনুষ্ঠানে দেখা হয়েছিল। বেশ হাস্যোজ্জ্বল একজন মানুষ ছিলেন। বেশ কিছুটা সময় তার সঙ্গে নানা বিষয় নিয়ে কথা হয়েছিল। এত ব্যস্ত একজন মানুষ হয়েও তিনি আমাদের চলচ্চিত্র পরিবারের খোঁজখবর রাখতেন, এটা কম কথা নয়। তিনি ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা, দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান। দেশের অন্যতম শিল্পোদ্যোক্তা। তাদের মতো মানুষের জন্য বাংলাদেশ আজ অর্থনীতিতে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পেরেছে। আমি তার জন্য দোয়া করি, আল্লাহ যেন তাকে বেহেশত নসিব করেন।

- ববিতা, চলচ্চিত্রাভিনেত্রী

নুরুল ইসলাম বাবুল ভাইয়ের সঙ্গে আমার মাঝে মধ্যেই দেখা হতো ঢাকা ক্লাবে। ওই ক্লাবের সদস্য আমি। প্রাণোচ্ছল মানুষ ছিলেন তিনি। দেখা হলেই খোঁজ নিতেন। আমার কাজ কেমন চলছে, তা জানতে চাইতেন। তার সঙ্গে দেখা করা ও কথা বলার বিষয়গুলো এখন স্মৃতির ফ্রেমে আটকে গেল। কারণ আর কখনও তার সঙ্গে দেখা হবে না। চলতি বছরের শুরুর দিকে দেশের বাইরে যাওয়ার সময় তার সঙ্গে এয়ারপোর্টে শেষ দেখা হয়। তখনও অনেকক্ষণ আমার সঙ্গে কথা বলেন। ব্যক্তিগত জীবনে একজন সফল মানুষ ছিলেন তিনি। যে কাজেই হাত দিয়েছেন সেটাই সফল হয়েছে। এভাবে তিনি ৪১টি শিল্প প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তার মৃত্যুতে আমি গভীরভাবে শোকাহত। আল্লাহ যেন তাকে বেহেশত নসিব করেন, এ কামনাই করছি।

- জাহিদ হাসান, অভিনেতা

এমন একটা সময় এসেছে এত শোকের সংবাদ শুনব এটা কখনও ভাবিনি। করোনার কারণে এমনিতেই মন খারাপ। বিশ্বব্যাপী তাণ্ডব চালাচ্ছে এ ভাইরাসটি। অপেক্ষা করছি কবে এর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারবে মানুষ। কিন্তু এই অপেক্ষার মধ্যেই অনেক কাছের মানুষ, পরিচিতজন, দেশের সফল ও গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা চলে যাচ্ছেন! নুরুল ইসলাম বাবুল ভাই বাংলাদেশের একজন সফল উদ্যোক্তা। তার চলে যাওয়া মেনে নেয়া কঠিন। কিন্তু আল্লাহর ডাকে সাড়া দিতেই হবে, একদিন সবাইকে যেতে হবে। বাবুল ভাই যেখানে থাকুন শান্তিতে থাকুন এটাই কামনা করি।

- ওমর সানী, চিত্রনায়ক

আমি একজন ব্যবসায়ী। তাই দেশের অর্থনীতিতে ব্যবসায়ীদের অবদান কতটুকু, সেটা যারা এর সঙ্গে জড়িত তারাই বোঝেন। বাংলাদেশের অর্থনীতিতে যমুনা গ্রুপের ভূমিকা অনেক বেশি। আর এর স্বপ্নদ্রষ্টা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বাবুল। তার সঙ্গে আমার সম্পর্ক বেশ নিবিড় ছিল। বিশেষ করে তার সন্তানদের সঙ্গে আমাদের বলা যায় পারিবারিক সম্পর্ক। অর্থনীতির চাকা সচল রাখার পাশাপাশি তিনি খুবই মিডিয়াবান্ধব ছিলেন। যার প্রমাণ যুগান্তর পত্রিকা ও যমুনা টিভির প্রতিষ্ঠা। প্রতিষ্ঠান দুটির মাধ্যমে তিনি বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ বিশ্বের কাছে তুলে ধরার স্বপ্ন দেখেছেন এবং তাতে সফলও হয়েছেন। বাবুল ভাই নেই, এটা বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে। তার প্রয়াণ দেশের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি। আল্লাহ তাকে বেহেশত নসিব করুন।

- অনন্ত জলিল, চিত্রনায়ক ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী

নুরুল ইসলাম বাবুল ভাইয়ের সঙ্গে চলতি বছরের শুরুর দিকে একটি অনুষ্ঠানে দেখা হয়েছিল। বেশ হাস্যোজ্জ্বল ছিলেন সেদিন তিনি। বেশ বড় মনের মানুষ ছিলেন। তার সঙ্গে দেখা হলেই খোঁজ নিতেন, গানের বর্তমান অবস্থা জানতে চাইতেন। নিজের একক প্রচেষ্টায় একটি শিল্প গ্রুপ তৈরি করেছেন, যা অনুকরণীয়। অসংখ্য মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে তার প্রতিষ্ঠিত শিল্প প্রতিষ্ঠানে। তিনি কিছুদিন আগে একটি অত্যাধুনিক হাসপাতাল নির্মাণের অভিপ্রায় ব্যক্ত করেছিলেন। আজ যদি বেঁচে থাকতেন, তাহলে হয়তো সেই পরিকল্পনাটিরও বাস্তবায়ন শুরু হয়ে যেত। দেশ একজন সফল মানুষকে হারাল। আমি তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।

- কুমার বিশ্বজিৎ, সঙ্গীতশিল্পী

হঠাৎ নুরুল ইসলাম বাবুল ভাইয়ের মৃত্যু সংবাদটা আমাকে খুব কষ্ট দিচ্ছে। সারা দিন অফিস শেষে বাসায় যাব, ঠিক এমন সময় এ দুঃসংবাদ শুনি। করোনাকালে উদ্যোক্তারাও চলে যাচ্ছেন। বাবুল ভাইও চলে গেলেন। তাকে নিয়ে অনেক বলার আছে, কিন্তু এখন কী বলব বুঝতে পারছি না। তিনি ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা। দেশের অন্যতম ব্যবসায়ীদের একজন। অর্থনীতিতে তার অবদান দেশ অবশ্যই শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে। শুধু শিল্পোদ্যোক্তাই নন, তিনি ছিলেন মিডিয়াবান্ধব একজন মানুষ। তার চলে যাওয়া অবশ্যই দেশের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি। আল্লাহ তাকে জান্নাতবাসী করুন এটাই কামনা করি।

- আমিন খান, চিত্রনায়ক

সর্বশেষ তার সঙ্গে দেখা হয়েছিল যুগান্তরের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে। বেশ সপ্রতিভ হাসিতে আমাকে বরণ করে নিয়েছিলেন। তিনি ছিলেন মিডিয়াবান্ধব। যখনই দেখা হতো হাসিমুখে বুকে জড়িয়ে ধরতেন। দেশের সফল একজন উদ্যোক্তা ছিলেন তিনি। এত বড় ব্যবসায়ী, তবুও ছিলেন অতি সাদাসিধে এবং অনেক বড় মনের। জীবনে যা অর্জন করেছেন সবকিছুই বিনিয়োগ করেছেন দেশে। শুনেছি তার কোনো খেলাপি ঋণ নেই। এটা একজন ব্যবসায়ীর জন্য অনেক বড় অর্জন। স্বভাবতই এমন একজন মানুষের প্রয়াণ দেশের অর্থনীতির জন্য অপূরণীয় ক্ষতি। যেখানে থাকুন, বাবুল ভাই ভালো থাকুন। আল্লাহ আপনাকে বেহেশত নসিব করুন।

- শাকিব খান, চিত্রনায়ক

সবচেয়ে বড় কথা হল, নুরুল ইসলাম বাবুল ছিলেন একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। তারা দেশের সম্পদ। তা ছাড়া তার মতো একজন সফল শিল্পোদ্যোক্তার সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত যোগাযোগও হয়েছিল তার ছেলে শামীম ভাইয়ের ছেলের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে গান গাইতে গিয়ে। কী চমৎকার ব্যবহার তার কাছ থেকে আমি পেয়েছি, সারা জীবন মনে থাকবে আমার। দেশের জন্য এ বিশাল ব্যক্তিত্ব অনেক কিছু করে গেছেন, যা দেশের মানুষ অনেক দিন মনে রাখবে। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করছি, আর দোয়া করছি মহান আল্লাহতায়ালা যেন তাকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করেন।

- রবি চৌধুরী, সঙ্গীতশিল্পী

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বাবুল ছিলেন দেশের অনেক বড় একজন ব্যবসায়ী। তার অনেক প্রশংসা শুনেছি। তার সঙ্গে আমার কোনো ব্যক্তিগত পরিচয় ছিল না। দু-একটা অনুষ্ঠানে দেখা হয়েছে, খুব হাসিখুশি বড় মনের মানুষই মনে হয়েছে। যমুনা দেশের অনেক বড় শিল্প গ্রুপ। এর মাধ্যমে অনেক মানুষ কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করছেন। আমার কাছে মনে হয়, কোনো মানুষের মন বড় না হলে তার পক্ষে সাধারণ মানুষের জীবিকা নির্বাহের পথ তৈরি করে দেয়া কখনও সম্ভব হয় না। তিনিও তেমন মাপের একজন বড় মনের মানুষ ছিলেন। তার মিডিয়া প্রতিষ্ঠান যুগান্তরকে সবসময় আমি কাছে পেয়েছি। এই মহান মানুষটির চলে যাওয়া সত্যিই দেশের অর্থনীতি তো বটেই, আমাদের জন্যও অপূরণীয় ক্ষতি। আমি তার আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি।

- সাদিকা পারভীন পপি, চিত্রনায়িকা

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত