কঠিন সময় পার করছি আমরা
jugantor
হ্যালো...
কঠিন সময় পার করছি আমরা
অভিনেত্রী হিসেবেই বেশি পরিচিত আফসানা মিমি। কিন্তু গত এক দশকেরও বেশি সময় ধরে নাটক পরিচালনায় সময় দিচ্ছেন। সম্প্রতি নতুন একটি ধারাবাহিক নাটকের কাজ শুরু করেছেন এ অভিনেত্রী। মাঝে মধ্যে অভিনয়েও দেখা যাচ্ছে তাকে। পরিচালনা, অভিনয় এবং অন্যান্য বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি

  সোহেল আহসান  

২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ছবি সংগৃহীত

* করোনার এ সময়টা কেমন কাটছে?

** এখন পর্যন্ত সুস্থ আছি। সচেতন হয়ে চলার চেষ্টা করে যাচ্ছি। এ ছাড়া পরিবারের সদস্যরাও যেন নিরাপদে থাকে, সে দিকেও খেয়াল রাখছি। বলা যায় কঠিন সময় পার করছি আমরা। তবে মানুষ যদি সচেতন হয়ে চলেন তাহলে এ করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকা সম্ভব।

* অনেকদিন পর ধারাবাহিক নাটক নির্মাণ করছেন। এর প্রস্তুতি কেমন চলছে?

** আমি সবসময় গুছিয়ে কাজ করতেই বেশি পছন্দ করি। হয়তো তাতে একটু সময় বেশি লাগে। তারপরও কাজটি ভালো হয়। নতুন এ ধারাবাহিকের নাম ‘শায়ংকাল’। বিটিভির নিজস্ব প্রযোজনায় নির্মিত হবে এটি। এ চ্যানেলের মাধ্যমেই মিডিয়ায় কাজ শুরু করি। তাই এখানে কাজ করার আলাদা একটা আনন্দ আছে। যেহেতু আমার পছন্দের জায়গার কাজ এটি; তাই প্রস্তুতিতে কোনো অবহেলা করছি না। এরই মধ্যে অভিনয়শিল্পী নির্বাচন করা শেষ করেছি। তাদের নিয়ে মহড়াও করেছি। বিটিভির নিজস্ব স্টুডিওতে এর শুটিং সম্পন্ন হবে। আশা করছি, নাটকটি উপভোগ্য হবে।

* দীর্ঘ বিরতি নিয়ে ধারাবাহিক নাটক নির্মাণ করেন কেন?

** আসলে ধারাবাহিক নাটকের সময় থেকে শুরু করে সব কিছুই দীর্ঘমেয়াদি করতে হয়। অন্যসব মনোযোগ বাদ দিয়ে ধারাবাহিক নিয়েই থাকতে হয়। এতে করে অন্য কাজগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ঝুঁকির মধ্যে থাকে। তাই ধারাবাহিক নাটক সচরাচর নির্মাণ করি না।

* আর কী নিয়ে ব্যস্ত আছেন?

** আমার প্রতিষ্ঠিত একটি স্কুল আছে। সেটির কার্যক্রম নিয়ে তো সব সময় ব্যস্ত থাকতে হয়। এ ছাড়া আমার প্রযোজনা সংস্থায়ও প্রায় সারা বছর কাজ থাকে। সেদিকেও সময় দিতে হয়। এ ছাড়া একখণ্ডের নাটক কিন্তু আমি মাঝে মধ্যেই নির্মাণ করছি। পাশাপাশি সামাজিক-সাংস্কৃতিক বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজনে উপস্থিত থাকি। এ কাজগুলোর জন্যই ধারাবাহিক নাটক কম নির্মাণ করা হয় আমার।

* বাংলাদেশ বেতারের কাজ করছেন নিয়মিতই। এখানে কাজ করার অভিজ্ঞতা কেমন?

** গত বছর থেকে এ গণমাধ্যমে কাজ করছি। নাটকের পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের সচেতনতামূলক অনুষ্ঠানেও কাজ করছি। এখনও বেতারের শ্রোতার সংখ্যা অনেক। কারণ অনুষ্ঠান ও নাটকগুলো যখন প্রচার হয় তখন অনেকেই সেসব কাজ নিয়ে উৎসাহ দেন। কাজ নিয়ে এখানে নিয়মিতই থাকব।

হ্যালো...

কঠিন সময় পার করছি আমরা

অভিনেত্রী হিসেবেই বেশি পরিচিত আফসানা মিমি। কিন্তু গত এক দশকেরও বেশি সময় ধরে নাটক পরিচালনায় সময় দিচ্ছেন। সম্প্রতি নতুন একটি ধারাবাহিক নাটকের কাজ শুরু করেছেন এ অভিনেত্রী। মাঝে মধ্যে অভিনয়েও দেখা যাচ্ছে তাকে। পরিচালনা, অভিনয় এবং অন্যান্য বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি
 সোহেল আহসান 
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
ছবি সংগৃহীত
ছবি সংগৃহীত

* করোনার এ সময়টা কেমন কাটছে?

** এখন পর্যন্ত সুস্থ আছি। সচেতন হয়ে চলার চেষ্টা করে যাচ্ছি। এ ছাড়া পরিবারের সদস্যরাও যেন নিরাপদে থাকে, সে দিকেও খেয়াল রাখছি। বলা যায় কঠিন সময় পার করছি আমরা। তবে মানুষ যদি সচেতন হয়ে চলেন তাহলে এ করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকা সম্ভব।

* অনেকদিন পর ধারাবাহিক নাটক নির্মাণ করছেন। এর প্রস্তুতি কেমন চলছে?

** আমি সবসময় গুছিয়ে কাজ করতেই বেশি পছন্দ করি। হয়তো তাতে একটু সময় বেশি লাগে। তারপরও কাজটি ভালো হয়। নতুন এ ধারাবাহিকের নাম ‘শায়ংকাল’। বিটিভির নিজস্ব প্রযোজনায় নির্মিত হবে এটি। এ চ্যানেলের মাধ্যমেই মিডিয়ায় কাজ শুরু করি। তাই এখানে কাজ করার আলাদা একটা আনন্দ আছে। যেহেতু আমার পছন্দের জায়গার কাজ এটি; তাই প্রস্তুতিতে কোনো অবহেলা করছি না। এরই মধ্যে অভিনয়শিল্পী নির্বাচন করা শেষ করেছি। তাদের নিয়ে মহড়াও করেছি। বিটিভির নিজস্ব স্টুডিওতে এর শুটিং সম্পন্ন হবে। আশা করছি, নাটকটি উপভোগ্য হবে।

* দীর্ঘ বিরতি নিয়ে ধারাবাহিক নাটক নির্মাণ করেন কেন?

** আসলে ধারাবাহিক নাটকের সময় থেকে শুরু করে সব কিছুই দীর্ঘমেয়াদি করতে হয়। অন্যসব মনোযোগ বাদ দিয়ে ধারাবাহিক নিয়েই থাকতে হয়। এতে করে অন্য কাজগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ঝুঁকির মধ্যে থাকে। তাই ধারাবাহিক নাটক সচরাচর নির্মাণ করি না।

* আর কী নিয়ে ব্যস্ত আছেন?

** আমার প্রতিষ্ঠিত একটি স্কুল আছে। সেটির কার্যক্রম নিয়ে তো সব সময় ব্যস্ত থাকতে হয়। এ ছাড়া আমার প্রযোজনা সংস্থায়ও প্রায় সারা বছর কাজ থাকে। সেদিকেও সময় দিতে হয়। এ ছাড়া একখণ্ডের নাটক কিন্তু আমি মাঝে মধ্যেই নির্মাণ করছি। পাশাপাশি সামাজিক-সাংস্কৃতিক বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজনে উপস্থিত থাকি। এ কাজগুলোর জন্যই ধারাবাহিক নাটক কম নির্মাণ করা হয় আমার।

* বাংলাদেশ বেতারের কাজ করছেন নিয়মিতই। এখানে কাজ করার অভিজ্ঞতা কেমন?

** গত বছর থেকে এ গণমাধ্যমে কাজ করছি। নাটকের পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের সচেতনতামূলক অনুষ্ঠানেও কাজ করছি। এখনও বেতারের শ্রোতার সংখ্যা অনেক। কারণ অনুষ্ঠান ও নাটকগুলো যখন প্রচার হয় তখন অনেকেই সেসব কাজ নিয়ে উৎসাহ দেন। কাজ নিয়ে এখানে নিয়মিতই থাকব।