আবদুল কাদেরের মৃত্যুতে সহকর্মীদের শ্রদ্ধাঞ্জলি
jugantor
আবদুল কাদেরের মৃত্যুতে সহকর্মীদের শ্রদ্ধাঞ্জলি
চলে গেলেন হুমায়ূন আহমেদের ‘কোথাও কেউ নেই’ নাটকের বিখ্যাত চরিত্র ‘বদি ভাই’খ্যাত জনপ্রিয় অভিনেতা আবদুল কাদের। গতকাল শনিবার সকাল ৮টা ২০ মিনিটে রাজধানীর একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তার মৃত্যুতে শ্রদ্ধা জ্ঞাপনপূর্বক স্মৃতিচারণ করেছেন একসময় তার সঙ্গে কাজ করা কয়েকজন সহকর্মী। লিখেছেন-

  সোহেল আহসান ও হাসান সাইদুল  

২৭ ডিসেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ছবি সংগৃহীত

কাদের আমাদের সঙ্গে অনেকদিন মঞ্চে কাজ করেছে। খুব রসবোধ ছিল তার। অত্যন্ত মেধাবী ছিল। যে নাটকে অভিনয় করত পুরোটা তার মুখস্থ থাকত। যে কোনো চরিত্রই সে করতে পারত। খুব বন্ধুবৎসল ছিল। আমাকে খুব ভালোবাসত, পছন্দ করত, শ্রদ্ধা করত। থিয়েটারে ওর মতো প্রাণবন্ত ছেলে খুব কমই ছিল। আমরা ঠিক তৈরি ছিলাম না ওকে হারানোর।

মনে হচ্ছে, ২০২০ সালে সবাই চলে যাওয়ার প্রতিযোগিতা করছে। কে যে কখন যাবে কেউই জানে না। তবুও আমার মনে হয়, কষ্ট থেকে সে কিছুটা রেহাই পেয়েছে। কাদেরের পরিবারের সদস্যরা যেন ভালো থাকে- এ শোক কাটিয়ে উঠতে পারে এ কামনাই করছি।

- ফেরদৌসী মজুমদার, অভিনেত্রী

আমার সঙ্গে তার তিন দশকের সম্পর্ক। ইত্যাদিতে তিন দশক ধরে অভিনয় করেছেন তিনি; যা অত্যন্ত নিয়মানুবর্তিতার সঙ্গেই করেছেন। খুব নিয়মতান্ত্রিক জীবনযাপন করেছেন। সময়মতো কাজে আসতেন। অভিনয়ের স্ক্রিপ্ট সব সময় মুখস্থ রাখতেন। ইত্যাদির জনপ্রিয় সেই মামা চরিত্রটিতে অভিনয় উপভোগ করতেন এবং বাস্তব জীবনেও তা বলতেন। কাদের ভাইয়ের চলে যাওয়া দেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের জন্য ক্ষতি তো বটেই, আমার জন্যও বিশাল ক্ষতি বটেই। ইত্যাদির একটি অঙ্গহানি হয়েছে। ইত্যাদি পরিবার তার মৃত্যুতে শোকাহত।

- হানিফ সংকেত, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব

কাদের চলে গেল, খুব খারাপ লাগছে তার জন্য। সে খুব ভালো মানুষ ছিল। হুমায়ূন আহমেদের নাটকে আমরা একসঙ্গে অনেক কাজ করেছি। অত্যন্ত ভালো মন ছিল তার; আমি মনে করি, এটাই তার সবচেয়ে বড় গুণ ছিল। পরিবার অন্তপ্রাণ মানুষটির সঙ্গে যারাই মিশেছেন, তারাই জানেন, তিনি মানুষকে কত আপন করে নিতে পারতেন। তিনি অসুস্থ এটা শোনার পর খবর নেয়ার চেষ্টা করেছি। শুনেছি ডাক্তাররা বাংলাদেশে তার সমস্যা ধরতে পারছিল না। যখন রোগ নির্ণয় হল, আর সময়ই দিল না। হঠাৎ করেই তার চলে যাওয়ায় খুব খারাপ লাগছে আমার। তিনি যেন পরপারে শান্তিতে থাকেন, এ দোয়াই করছি।

- আবুল হায়াত, অভিনেতা

কাদের ভাইয়ের মৃত্যু আমাদের স্তম্ভিত করে দিল। তার জন্য কাউকে কিছু করার সুযোগই দিলেন না তিনি। মানুষটি সারাজীবন অন্যদের আনন্দ দিল, যার সঙ্গে থাকা প্রতিটি মুহূর্তই ছিল আনন্দের। আমরা যারাই তার সঙ্গে কাজ করেছি, তারা সবাই জানেন, ওনাকে ভোলা খুব কঠিন। তিনি আমার সঙ্গে একজন বড় ভাইয়ের মতো মিশতেন। কাদের ভাইয়ের চেয়ে অনেক বড় অভিনেতা জন্ম নেবেন, নিয়েছেন; কিন্তু কাদের ভাই সবার চেয়ে আলাদা। আমার পক্ষে উনাকে ভোলা খুব কঠিন একটি বিষয়। আমি কী ভাবব, কী বলব কোনো কিছুই বুঝতে পারছি না।

- মাহফুজ আহমেদ, অভিনেতা

পর্দায় অভিনেতা কাদের ছিলেন বেশ সপ্রতিভ। খুব বেশি কিছু বুঝিয়ে দিতে হতো না তাকে। একজন মানুষকে মন্দ বলতে চাইলে অনেক বলা যায়। ভালো বলার মতো উপাদান খুঁজে পাওয়া যায় না। কিন্তু কাদেরের ক্ষেত্রে বিষয়টি উল্টো। খুব ভালো মানুষ ছিলেন। কত ভালো ছিলেন বলে বোঝাতে পারব না। তার চলে যাওয়া আমাকে খুব কষ্ট দিচ্ছে। বিনোদন জগতের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি। যেখানে থাকুক, কাদের ভালো থাকুক এটাই দোয়া করি।

- আফজাল শরীফ, অভিনেতা

কাদের ভাই খুব ভালো মানুষ ছিলেন। তার সঙ্গে একটি ছবিতে কাজ করেছি। শুটিং সেটে ভালো সময় কেটেছিল। চরিত্রের ক্ষেত্রেও তিনি সচেতন ছিলেন। তার সঙ্গে প্রায়ই কথা হতো। তার একটা শখ পূরণ হল না। তিনি খুব করে চেয়েছিলেন তার নাতনি বিজ্ঞাপনে মডেল হবেন। সে অনুযায়ী কাজও হচ্ছিল; কিন্তু তিনি তো গতকাল চলে গেলেন। কষ্ট বোধ করা ছাড়া আর কিছু নেই। ওপারে ভালো থাকুক কাদের ভাই এটাই দোয়া করি।

- রিয়াজ, অভিনেতা

আবদুল কাদেরের মৃত্যুতে সহকর্মীদের শ্রদ্ধাঞ্জলি

চলে গেলেন হুমায়ূন আহমেদের ‘কোথাও কেউ নেই’ নাটকের বিখ্যাত চরিত্র ‘বদি ভাই’খ্যাত জনপ্রিয় অভিনেতা আবদুল কাদের। গতকাল শনিবার সকাল ৮টা ২০ মিনিটে রাজধানীর একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তার মৃত্যুতে শ্রদ্ধা জ্ঞাপনপূর্বক স্মৃতিচারণ করেছেন একসময় তার সঙ্গে কাজ করা কয়েকজন সহকর্মী। লিখেছেন-
 সোহেল আহসান ও হাসান সাইদুল 
২৭ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
ছবি সংগৃহীত
ছবি সংগৃহীত

কাদের আমাদের সঙ্গে অনেকদিন মঞ্চে কাজ করেছে। খুব রসবোধ ছিল তার। অত্যন্ত মেধাবী ছিল। যে নাটকে অভিনয় করত পুরোটা তার মুখস্থ থাকত। যে কোনো চরিত্রই সে করতে পারত। খুব বন্ধুবৎসল ছিল। আমাকে খুব ভালোবাসত, পছন্দ করত, শ্রদ্ধা করত। থিয়েটারে ওর মতো প্রাণবন্ত ছেলে খুব কমই ছিল। আমরা ঠিক তৈরি ছিলাম না ওকে হারানোর।

মনে হচ্ছে, ২০২০ সালে সবাই চলে যাওয়ার প্রতিযোগিতা করছে। কে যে কখন যাবে কেউই জানে না। তবুও আমার মনে হয়, কষ্ট থেকে সে কিছুটা রেহাই পেয়েছে। কাদেরের পরিবারের সদস্যরা যেন ভালো থাকে- এ শোক কাটিয়ে উঠতে পারে এ কামনাই করছি।

- ফেরদৌসী মজুমদার, অভিনেত্রী

আমার সঙ্গে তার তিন দশকের সম্পর্ক। ইত্যাদিতে তিন দশক ধরে অভিনয় করেছেন তিনি; যা অত্যন্ত নিয়মানুবর্তিতার সঙ্গেই করেছেন। খুব নিয়মতান্ত্রিক জীবনযাপন করেছেন। সময়মতো কাজে আসতেন। অভিনয়ের স্ক্রিপ্ট সব সময় মুখস্থ রাখতেন। ইত্যাদির জনপ্রিয় সেই মামা চরিত্রটিতে অভিনয় উপভোগ করতেন এবং বাস্তব জীবনেও তা বলতেন। কাদের ভাইয়ের চলে যাওয়া দেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের জন্য ক্ষতি তো বটেই, আমার জন্যও বিশাল ক্ষতি বটেই। ইত্যাদির একটি অঙ্গহানি হয়েছে। ইত্যাদি পরিবার তার মৃত্যুতে শোকাহত।

- হানিফ সংকেত, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব

কাদের চলে গেল, খুব খারাপ লাগছে তার জন্য। সে খুব ভালো মানুষ ছিল। হুমায়ূন আহমেদের নাটকে আমরা একসঙ্গে অনেক কাজ করেছি। অত্যন্ত ভালো মন ছিল তার; আমি মনে করি, এটাই তার সবচেয়ে বড় গুণ ছিল। পরিবার অন্তপ্রাণ মানুষটির সঙ্গে যারাই মিশেছেন, তারাই জানেন, তিনি মানুষকে কত আপন করে নিতে পারতেন। তিনি অসুস্থ এটা শোনার পর খবর নেয়ার চেষ্টা করেছি। শুনেছি ডাক্তাররা বাংলাদেশে তার সমস্যা ধরতে পারছিল না। যখন রোগ নির্ণয় হল, আর সময়ই দিল না। হঠাৎ করেই তার চলে যাওয়ায় খুব খারাপ লাগছে আমার। তিনি যেন পরপারে শান্তিতে থাকেন, এ দোয়াই করছি।

- আবুল হায়াত, অভিনেতা

কাদের ভাইয়ের মৃত্যু আমাদের স্তম্ভিত করে দিল। তার জন্য কাউকে কিছু করার সুযোগই দিলেন না তিনি। মানুষটি সারাজীবন অন্যদের আনন্দ দিল, যার সঙ্গে থাকা প্রতিটি মুহূর্তই ছিল আনন্দের। আমরা যারাই তার সঙ্গে কাজ করেছি, তারা সবাই জানেন, ওনাকে ভোলা খুব কঠিন। তিনি আমার সঙ্গে একজন বড় ভাইয়ের মতো মিশতেন। কাদের ভাইয়ের চেয়ে অনেক বড় অভিনেতা জন্ম নেবেন, নিয়েছেন; কিন্তু কাদের ভাই সবার চেয়ে আলাদা। আমার পক্ষে উনাকে ভোলা খুব কঠিন একটি বিষয়। আমি কী ভাবব, কী বলব কোনো কিছুই বুঝতে পারছি না।

- মাহফুজ আহমেদ, অভিনেতা

পর্দায় অভিনেতা কাদের ছিলেন বেশ সপ্রতিভ। খুব বেশি কিছু বুঝিয়ে দিতে হতো না তাকে। একজন মানুষকে মন্দ বলতে চাইলে অনেক বলা যায়। ভালো বলার মতো উপাদান খুঁজে পাওয়া যায় না। কিন্তু কাদেরের ক্ষেত্রে বিষয়টি উল্টো। খুব ভালো মানুষ ছিলেন। কত ভালো ছিলেন বলে বোঝাতে পারব না। তার চলে যাওয়া আমাকে খুব কষ্ট দিচ্ছে। বিনোদন জগতের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি। যেখানে থাকুক, কাদের ভালো থাকুক এটাই দোয়া করি।

- আফজাল শরীফ, অভিনেতা

কাদের ভাই খুব ভালো মানুষ ছিলেন। তার সঙ্গে একটি ছবিতে কাজ করেছি। শুটিং সেটে ভালো সময় কেটেছিল। চরিত্রের ক্ষেত্রেও তিনি সচেতন ছিলেন। তার সঙ্গে প্রায়ই কথা হতো। তার একটা শখ পূরণ হল না। তিনি খুব করে চেয়েছিলেন তার নাতনি বিজ্ঞাপনে মডেল হবেন। সে অনুযায়ী কাজও হচ্ছিল; কিন্তু তিনি তো গতকাল চলে গেলেন। কষ্ট বোধ করা ছাড়া আর কিছু নেই। ওপারে ভালো থাকুক কাদের ভাই এটাই দোয়া করি।

- রিয়াজ, অভিনেতা

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন