কমেডি ঘরানা থেকে বের হতে চাই
jugantor
হ্যালো...
কমেডি ঘরানা থেকে বের হতে চাই
অভিনয়ের পাশাপাশি নাটক নির্মাণ নিয়েও ব্যস্ত জনপ্রিয় অভিনেতা জাহিদ হাসান। বর্তমানে দুটি ধারাবাহিক নাটক পরিচালনা করছেন। নতুন বছরের কর্মপরিকল্পনা ও সমসাময়িক বিভিন্ন প্রসঙ্গ নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি

  সোহেল আহসান  

০১ জানুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ছবি সংগৃহীত

* করোনা সংক্রমণের মধ্যেই নতুন বছরের আগমন হলো। এ পরিস্থিতিতে কর্মপরিকল্পনা কীভাবে সাজাচ্ছেন?

** করোনার কারণে তো আর কাজ বন্ধ রাখা যাবে না। দুটি ধারাবাহিক নাটক পরিচালনা করছি। এ নাটক দুটির কাজ নিয়ে অনেকদিন ব্যস্ত থাকব। তাছাড়া একক নাটক পরিচালনার প্রস্তুতিও আছে আমার। নতুন একাধিক ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব পেয়েছি। আমাকে দিয়ে নির্মাতারা কমেডি ঘরানার গল্পে কাজ করান বেশি। নতুন বছরে কমেডি ঘরানা থেকে বের হতে চাই। মোট কথা নাটক ও ছবিতে নিজেকে অন্য মাত্রায় নিয়ে যেতে চাই।

এ ছাড়া ওয়েব সিরিজেও কাজ বৃদ্ধি করার ইচ্ছা আছে। আর পরিকল্পনা বাস্তবায়নের দিকে বেশি মনোযোগ দেওয়ার ইচ্ছা আছে। সহকর্মী থেকে শুরু করে সবাইকে নিয়ে সুন্দরভাবে নতুন বছরটি অতিক্রম করতে চাই।

* শীতকালের করোনা ভীতির কারণে অনেকেই কাজ বন্ধ করেছেন। আপনি কি এ পরিস্থিতিতেও কাজ চালিয়ে যাবেন?

** যেহেতু অভিনয় আমার পেশা তাই কতদিন আর নিজেকে অবরুদ্ধ করে রাখব। তাই ঝুঁকি থাকা সত্ত্বেও অভিনয় করছি, পাশাপাশি পরিচালনাও করতে হচ্ছে। তবে আমি যেসব সেটে কাজ করছি সেগুলোতে যতটুকু সম্ভব নিরাপদ পরিবেশে কাজ করার চেষ্টা করি। আর আল্লাহর রহমতে এখন পর্যন্ত কোনো সমস্যায় পড়িনি। সবার দোয়া নিয়ে আগামী দিনগুলোতে কাজ করার পরিকল্পনা আছে।

* অভিনয়ের ব্যস্ততা কেমন যাচ্ছে?

** একখণ্ড ও ধারাবাহিক- দুই ধরনের নাটকেই নিয়মিত অভিনয় করছি। অনেকদিন পর অন্য পরিচালকের ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করছি। এটির নাম ‘একশ তে একশ’। পরিচালনা করছেন আবু হায়াত মাহমুদ ও সাইদুর রহমান রাসেল। নাটকটি মাছরাঙা টিভিতে প্রচার হচ্ছে। নাটকটির জন্য দর্শকের সাড়া ভালোই পাচ্ছি।

* আপনার পরিচালনায় ‘হুলস্থুল টিভি’ নামে একটি ধারাবাহিক নাটক আরটিভিতে প্রচার হচ্ছে। এটি নিয়ে রেসপন্স কেমন পাচ্ছেন?

** সবে মাত্র কয়েকটি পর্ব প্রচার হয়েছে। তারপরও দর্শক ভালোই দেখছেন নাটকটি। এখনই হয়তো দর্শকের প্রতিক্রিয়া সেভাবে পাওয়া যাবে না। তবে খুব কাছের মানুষ ও সহকর্মীরা নাটকটি নিয়ে ইতিবাচক মন্তব্য করছেন। নাটকটির নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার পর দু’বছর এটি প্রচারের অপেক্ষায় ছিল। তাই এটি নিয়ে এক সময় হাল ছেড়ে দিয়েছিলাম। যেহেতু এটি প্রচার হচ্ছে তাই শুটিং তো করতেই হবে। সম্প্রতি গাজীপুরের পূবাইলে কয়েকদিন শুটিং করেছি। সিরাজগঞ্জে পরবর্তী অংশের শুটিং শুরুর প্রস্তুতি নিচ্ছি।

* বিটিভির একটি ধারাবাহিক নাটকও পরিচালনা করছেন। কেমন লাগছে কাজটি করতে?

** বিটিভি হলো আমার নাট্যাঙ্গনে বিকশিত হওয়ার অন্যতম জায়গা। এ চ্যানেলকে ঘিরে কত স্মৃতি, কত ঘটনা জমা আছে মনের কোনে! সেই জায়গায় দীর্ঘ ধারাবাহিক নাটক পরিচালনার সুযোগ পেয়েছি, এটা অবশ্যই আমার জন্য সম্মানের বিষয়। ‘পিছুটান’ নামের এ নাটকটির জন্য সর্বমহল থেকে ভালো সাড়া পাচ্ছি। দর্শক বেশ ইতিবাচক মন্তব্যই করছেন। এতে একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে আমিও অভিনয় করছি। বেশ গোছানো একটি কাজ এটি। নাটকটির সঙ্গে আমাকে যুক্ত করার জন্য বিটিভি কর্তৃপক্ষের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।

* ছবিতে অভিনয় করছেন না অনেকদিন...

** ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব সব সময় পাই। তবে নিজের অবস্থানের কারণে অনেক প্রস্তাব ফিরিয়ে দিতে হয়। ছবিতে অভিনয় করতে চাই বুঝেশুনে। কারণ ছবির স্থায়িত্ব দর্শক মনে বিরাজ করে অনেকদিন। গত বছরের কাজের জন্য সম্প্রতি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছি। যা আমাকে নতুনভাবে কাজে অনুপ্রেরণা জোগাবে।

হ্যালো...

কমেডি ঘরানা থেকে বের হতে চাই

অভিনয়ের পাশাপাশি নাটক নির্মাণ নিয়েও ব্যস্ত জনপ্রিয় অভিনেতা জাহিদ হাসান। বর্তমানে দুটি ধারাবাহিক নাটক পরিচালনা করছেন। নতুন বছরের কর্মপরিকল্পনা ও সমসাময়িক বিভিন্ন প্রসঙ্গ নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি
 সোহেল আহসান 
০১ জানুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
ছবি সংগৃহীত
ছবি সংগৃহীত

* করোনা সংক্রমণের মধ্যেই নতুন বছরের আগমন হলো। এ পরিস্থিতিতে কর্মপরিকল্পনা কীভাবে সাজাচ্ছেন?

** করোনার কারণে তো আর কাজ বন্ধ রাখা যাবে না। দুটি ধারাবাহিক নাটক পরিচালনা করছি। এ নাটক দুটির কাজ নিয়ে অনেকদিন ব্যস্ত থাকব। তাছাড়া একক নাটক পরিচালনার প্রস্তুতিও আছে আমার। নতুন একাধিক ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব পেয়েছি। আমাকে দিয়ে নির্মাতারা কমেডি ঘরানার গল্পে কাজ করান বেশি। নতুন বছরে কমেডি ঘরানা থেকে বের হতে চাই। মোট কথা নাটক ও ছবিতে নিজেকে অন্য মাত্রায় নিয়ে যেতে চাই।

এ ছাড়া ওয়েব সিরিজেও কাজ বৃদ্ধি করার ইচ্ছা আছে। আর পরিকল্পনা বাস্তবায়নের দিকে বেশি মনোযোগ দেওয়ার ইচ্ছা আছে। সহকর্মী থেকে শুরু করে সবাইকে নিয়ে সুন্দরভাবে নতুন বছরটি অতিক্রম করতে চাই।

* শীতকালের করোনা ভীতির কারণে অনেকেই কাজ বন্ধ করেছেন। আপনি কি এ পরিস্থিতিতেও কাজ চালিয়ে যাবেন?

** যেহেতু অভিনয় আমার পেশা তাই কতদিন আর নিজেকে অবরুদ্ধ করে রাখব। তাই ঝুঁকি থাকা সত্ত্বেও অভিনয় করছি, পাশাপাশি পরিচালনাও করতে হচ্ছে। তবে আমি যেসব সেটে কাজ করছি সেগুলোতে যতটুকু সম্ভব নিরাপদ পরিবেশে কাজ করার চেষ্টা করি। আর আল্লাহর রহমতে এখন পর্যন্ত কোনো সমস্যায় পড়িনি। সবার দোয়া নিয়ে আগামী দিনগুলোতে কাজ করার পরিকল্পনা আছে।

* অভিনয়ের ব্যস্ততা কেমন যাচ্ছে?

** একখণ্ড ও ধারাবাহিক- দুই ধরনের নাটকেই নিয়মিত অভিনয় করছি। অনেকদিন পর অন্য পরিচালকের ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করছি। এটির নাম ‘একশ তে একশ’। পরিচালনা করছেন আবু হায়াত মাহমুদ ও সাইদুর রহমান রাসেল। নাটকটি মাছরাঙা টিভিতে প্রচার হচ্ছে। নাটকটির জন্য দর্শকের সাড়া ভালোই পাচ্ছি।

* আপনার পরিচালনায় ‘হুলস্থুল টিভি’ নামে একটি ধারাবাহিক নাটক আরটিভিতে প্রচার হচ্ছে। এটি নিয়ে রেসপন্স কেমন পাচ্ছেন?

** সবে মাত্র কয়েকটি পর্ব প্রচার হয়েছে। তারপরও দর্শক ভালোই দেখছেন নাটকটি। এখনই হয়তো দর্শকের প্রতিক্রিয়া সেভাবে পাওয়া যাবে না। তবে খুব কাছের মানুষ ও সহকর্মীরা নাটকটি নিয়ে ইতিবাচক মন্তব্য করছেন। নাটকটির নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার পর দু’বছর এটি প্রচারের অপেক্ষায় ছিল। তাই এটি নিয়ে এক সময় হাল ছেড়ে দিয়েছিলাম। যেহেতু এটি প্রচার হচ্ছে তাই শুটিং তো করতেই হবে। সম্প্রতি গাজীপুরের পূবাইলে কয়েকদিন শুটিং করেছি। সিরাজগঞ্জে পরবর্তী অংশের শুটিং শুরুর প্রস্তুতি নিচ্ছি।

* বিটিভির একটি ধারাবাহিক নাটকও পরিচালনা করছেন। কেমন লাগছে কাজটি করতে?

** বিটিভি হলো আমার নাট্যাঙ্গনে বিকশিত হওয়ার অন্যতম জায়গা। এ চ্যানেলকে ঘিরে কত স্মৃতি, কত ঘটনা জমা আছে মনের কোনে! সেই জায়গায় দীর্ঘ ধারাবাহিক নাটক পরিচালনার সুযোগ পেয়েছি, এটা অবশ্যই আমার জন্য সম্মানের বিষয়। ‘পিছুটান’ নামের এ নাটকটির জন্য সর্বমহল থেকে ভালো সাড়া পাচ্ছি। দর্শক বেশ ইতিবাচক মন্তব্যই করছেন। এতে একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে আমিও অভিনয় করছি। বেশ গোছানো একটি কাজ এটি। নাটকটির সঙ্গে আমাকে যুক্ত করার জন্য বিটিভি কর্তৃপক্ষের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।

* ছবিতে অভিনয় করছেন না অনেকদিন...

** ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব সব সময় পাই। তবে নিজের অবস্থানের কারণে অনেক প্রস্তাব ফিরিয়ে দিতে হয়। ছবিতে অভিনয় করতে চাই বুঝেশুনে। কারণ ছবির স্থায়িত্ব দর্শক মনে বিরাজ করে অনেকদিন। গত বছরের কাজের জন্য সম্প্রতি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছি। যা আমাকে নতুনভাবে কাজে অনুপ্রেরণা জোগাবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন