আমি গতানুগতিক ছবি নির্মাণ করি না
jugantor
হ্যালো...
আমি গতানুগতিক ছবি নির্মাণ করি না
অভিনয়ের চেয়ে পরিচালনা নিয়েই এখন বেশি ব্যস্ত তৌকীর আহমেদ। বর্তমানে শুটিং করছেন ‘স্ফুলিঙ্গ’ নামে নতুন একটি ছবি। হাতে রয়েছে ‘রুপালি জোছনায়’ নামে একটি ধারাবাহিক নাটকও। ছবি, নাটক নির্মাণ, অভিনয় এবং অন্যান্য বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি।

  সোহেল আহসান  

১২ জানুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ছবি সংগৃহীত

* ‘স্ফুলিঙ্গ’র নির্মাণ কাজের অগ্রগতি কী?

** এরই মধ্যে ছবির ৯৮ শতাংশ শুটিং শেষ করেছি। আর মাত্র একদিনের শুটিং বাকি আছে। শিগগিরই এ কাজও সম্পন্ন করার পরিকল্পনা করছি। কারণ এডিটিং, ডাবিংয়ের কাজ করতেও অনেক সময় লাগবে। যেহেতু ছবিটি আগামী মার্চে মুক্তি পাবে, তাই ফেব্রুয়ারির মধ্যেই সেন্সরে জমা দিতে হবে।

* ছবিটি নিয়ে আপনার প্রত্যাশা কী?

** আমি গতানুগতিক ছবি নির্মাণ করি না। দর্শকদের জন্য সব সময়ই ব্যতিক্রমী কিছু করতে চেষ্টা করি। এ ছবিটিও তাই। একটি ব্যান্ড দলের নানা গল্প নিয়ে ছবিটি তৈরি হচ্ছে। প্রত্যেক অভিনয়শিল্পী আন্তরিকতা দিয়ে অভিনয় করেছেন।

* কবি জীবনানন্দ দাশকে নিয়েও ছবি নির্মাণের কথা বলেছিলেন। সেই পরিকল্পনা কি বাতিল করেছেন?

** না। ছবির গল্প, চিত্রনাট্য আমারই করা। কয়েক বছর ধরেই এটি নিয়ে অপেক্ষা করছি। মূলত অর্থায়নের অভাবেই এর কাজ শুরু করতে পারছি না। এ বছরও চেষ্টা করব ছবিটি নির্মাণের জন্য। দেরি হলেও হাল ছাড়ব না।

* আপনার পরিচালিত ‘রুপালি জোছনায়’ নামের একটি ধারাবাহিক নাটক প্রচার হচ্ছে। এটি নিয়ে সাড়া কেমন পাচ্ছেন?

** বেশ ভালো সাড়া পাচ্ছি। দর্শকপ্রিয়তার কারণে নাটকটি ৭৮ পর্ব পর্যন্ত এগিয়ে নিয়েছি। দর্শকের পক্ষ থেকে পর্ব সংখ্যা বৃদ্ধির দাবিও জানানো হচ্ছে। এ জন্য চ্যানেল থেকে এখনো কোনো নির্দেশনা পাইনি। নাটকটি গতানুগতিকতার বাইরে গিয়ে নির্মাণ করার চেষ্টা করেছি। তাই হয়তো অনেক ধারাবাহিকের মধ্যেও এটি দর্শকের মনোযোগ আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছে।

* অভিনয়ে আপনাকে তুলনামূলক কম দেখা যায়, কেন?

** নির্মাতা হিসেবে কাজ করতেই বেশি ভালো লাগে। তারপরও নাটক, ছবিতে মাঝে মধ্যেই অভিনয় করছি। এরই মধ্যে দুটি ছবির কাজ শেষ করেছি। এগুলো হল মাহমুদ দিদারের পরিচালনায় ‘বিউটি সার্কাস’ এবং মানিক মানবিকের ‘ছেলেটি আজব’।

* বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকেও তো অভিনয় করছেন। এর শুটিং শুরু হচ্ছে কবে?

** ছবির শুটিং শুরুর প্রক্রিয়া চলছে। নির্মাতার পক্ষ থেকে আমার সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগও হয়েছে। আগামী মাস থেকে শুটিংয়ে আমি যুক্ত হব। সেভাবেই প্রস্তুতি নিচ্ছি।

* আপনি তো লেখালেখিও করেন। নতুন কোনো খবর আছে?

** কিছুদিন আগে ‘অন্ধকার’ নামের একটি মঞ্চ নাটক লিখেছিলাম। সেটিই বই আকারে প্রকাশ করার পরিকল্পনা করছি। নির্মাণে ব্যস্ততার কারণে নতুন কিছু আর লেখার সুযোগ পাইনি। নতুন ছবির গল্প লেখার পেছনেই সময় চলে গেছে।

হ্যালো...

আমি গতানুগতিক ছবি নির্মাণ করি না

অভিনয়ের চেয়ে পরিচালনা নিয়েই এখন বেশি ব্যস্ত তৌকীর আহমেদ। বর্তমানে শুটিং করছেন ‘স্ফুলিঙ্গ’ নামে নতুন একটি ছবি। হাতে রয়েছে ‘রুপালি জোছনায়’ নামে একটি ধারাবাহিক নাটকও। ছবি, নাটক নির্মাণ, অভিনয় এবং অন্যান্য বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি।
 সোহেল আহসান 
১২ জানুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
ছবি সংগৃহীত
ছবি সংগৃহীত

* ‘স্ফুলিঙ্গ’র নির্মাণ কাজের অগ্রগতি কী?

** এরই মধ্যে ছবির ৯৮ শতাংশ শুটিং শেষ করেছি। আর মাত্র একদিনের শুটিং বাকি আছে। শিগগিরই এ কাজও সম্পন্ন করার পরিকল্পনা করছি। কারণ এডিটিং, ডাবিংয়ের কাজ করতেও অনেক সময় লাগবে। যেহেতু ছবিটি আগামী মার্চে মুক্তি পাবে, তাই ফেব্রুয়ারির মধ্যেই সেন্সরে জমা দিতে হবে।

* ছবিটি নিয়ে আপনার প্রত্যাশা কী?

** আমি গতানুগতিক ছবি নির্মাণ করি না। দর্শকদের জন্য সব সময়ই ব্যতিক্রমী কিছু করতে চেষ্টা করি। এ ছবিটিও তাই। একটি ব্যান্ড দলের নানা গল্প নিয়ে ছবিটি তৈরি হচ্ছে। প্রত্যেক অভিনয়শিল্পী আন্তরিকতা দিয়ে অভিনয় করেছেন।

* কবি জীবনানন্দ দাশকে নিয়েও ছবি নির্মাণের কথা বলেছিলেন। সেই পরিকল্পনা কি বাতিল করেছেন?

** না। ছবির গল্প, চিত্রনাট্য আমারই করা। কয়েক বছর ধরেই এটি নিয়ে অপেক্ষা করছি। মূলত অর্থায়নের অভাবেই এর কাজ শুরু করতে পারছি না। এ বছরও চেষ্টা করব ছবিটি নির্মাণের জন্য। দেরি হলেও হাল ছাড়ব না।

* আপনার পরিচালিত ‘রুপালি জোছনায়’ নামের একটি ধারাবাহিক নাটক প্রচার হচ্ছে। এটি নিয়ে সাড়া কেমন পাচ্ছেন?

** বেশ ভালো সাড়া পাচ্ছি। দর্শকপ্রিয়তার কারণে নাটকটি ৭৮ পর্ব পর্যন্ত এগিয়ে নিয়েছি। দর্শকের পক্ষ থেকে পর্ব সংখ্যা বৃদ্ধির দাবিও জানানো হচ্ছে। এ জন্য চ্যানেল থেকে এখনো কোনো নির্দেশনা পাইনি। নাটকটি গতানুগতিকতার বাইরে গিয়ে নির্মাণ করার চেষ্টা করেছি। তাই হয়তো অনেক ধারাবাহিকের মধ্যেও এটি দর্শকের মনোযোগ আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছে।

* অভিনয়ে আপনাকে তুলনামূলক কম দেখা যায়, কেন?

** নির্মাতা হিসেবে কাজ করতেই বেশি ভালো লাগে। তারপরও নাটক, ছবিতে মাঝে মধ্যেই অভিনয় করছি। এরই মধ্যে দুটি ছবির কাজ শেষ করেছি। এগুলো হল মাহমুদ দিদারের পরিচালনায় ‘বিউটি সার্কাস’ এবং মানিক মানবিকের ‘ছেলেটি আজব’।

* বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকেও তো অভিনয় করছেন। এর শুটিং শুরু হচ্ছে কবে?

** ছবির শুটিং শুরুর প্রক্রিয়া চলছে। নির্মাতার পক্ষ থেকে আমার সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগও হয়েছে। আগামী মাস থেকে শুটিংয়ে আমি যুক্ত হব। সেভাবেই প্রস্তুতি নিচ্ছি।

* আপনি তো লেখালেখিও করেন। নতুন কোনো খবর আছে?

** কিছুদিন আগে ‘অন্ধকার’ নামের একটি মঞ্চ নাটক লিখেছিলাম। সেটিই বই আকারে প্রকাশ করার পরিকল্পনা করছি। নির্মাণে ব্যস্ততার কারণে নতুন কিছু আর লেখার সুযোগ পাইনি। নতুন ছবির গল্প লেখার পেছনেই সময় চলে গেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন