সতর্ক থেকেই কাজ করছি
jugantor
হ্যালো...
সতর্ক থেকেই কাজ করছি
করোনাকালেও গান নিয়ে ব্যস্ত জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী দিলশাদ নাহার কণা। অডিওতে নিয়মিত নতুন মৌলিক গানে কণ্ঠ দিয়ে যাচ্ছেন। সম্প্রতি স্টেজ অনুষ্ঠানের কাজও শুরু করেছেন এ সংগীতশিল্পী। গান এবং অন্যান্য বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি।

  সোহেল আহসান  

১৩ জানুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ছবি সংগৃহীত

* স্টেজ অনুষ্ঠানের গান গাইছেন। কোনো সমস্যা হচ্ছে?

** মাঝে মধ্যেই করপোরেট শোতে গাইছি। দু’দিন আগে কক্সবাজারে পরপর দুটি করপোরেট অনুষ্ঠানে গাইলাম। সেখানে একটি বেসরকারি শিল্প গ্রুপের অনুষ্ঠান ছিল। মূলত সেই প্রতিষ্ঠানের কর্মীরাই ছিল দর্শক। এখনো পর্যন্ত করোনাজনিত কোনো সমস্যা হয়নি। সাবধানে এবং সতর্ক থেকেই কাজ করছি।

* এখন থেকে কি নিয়মিত স্টেজ অনুষ্ঠানে গাইবেন?

** আমার পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কোনো আপত্তি নেই। প্রস্তাব অনুযায়ী তো মাঝে মধ্যেই অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছি। করোনার আগে এ সময়ে অগ্রিম সিডিউল দেওয়া থাকত। বিশ্রামেরও সুযোগ পেতাম না। সেই পরিস্থিতি এখন নেই। আমার মতো অনেক শিল্পীই অপেক্ষায় আছেন স্বাভাবিক পরিস্থিতির।

* কক্সবাজারে অবস্থানকালে পর্যটক কেমন দেখেছেন?

দু’দিনে অসংখ্য মানুষকে সেখানে দেখেছি। বিশেষ করে সমুদ্রসৈকতে মানুষের ব্যাপক ঢল ছিল। মনে হচ্ছিল, করোনা বলে সেখানে কোনো কিছুর অস্তিত্বই নেই। কেউই স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। সবখানে লোকজনে ভরপুর ছিল। আমি জনসমাগম এড়িয়ে চলার চেষ্টা করেছি। কারণ করোনাভাইরাস সব জায়গাতেই আছে।

* বর্তমান গানের বাজারের পরিস্থিতি কেমন মনে হচ্ছে?

** কোয়ালিটি ঠিক রেখে অনেকেই স্বাভাবিক ছন্দে গাইছেন। অডিওর বাজার একেবারে খারাপ নয়। কারণ প্রযুক্তি ব্যবহার করে গান প্রকাশ হচ্ছে। শ্রোতারাও আগ্রহ নিয়েই গান শুনছেন। করোনার মধ্যেও অনেকের গানই শ্রোতাপ্রিয় হয়েছে। আমি মনে করছি, সামনে গানের বাজার আরও চাঙা হবে।

* নতুন গানের কাজ কেমন করছেন?

** প্রায় প্রতি সপ্তাহেই নতুন গানে কণ্ঠ দিচ্ছি। ছবির গানের কাজ বেশি আসছে এখন। পাশাপাশি কিছু গান আগে থেকেই করাছিল। সেগুলো পর্যায়ক্রমে প্রকাশ হবে। এ ছাড়া ইমরানের সঙ্গে যৌথভাবে একটি গানের কাজ করব কয়েক দিনের মধ্যে। সেটির ভিডিওতেও আমরা উপস্থিত থাকব।

* নতুন বছরের নির্দিষ্ট কোনো পরিকল্পনা সাজিয়েছেন?

** পরিকল্পনা তো কিছুটা থাকবেই। নতুন বছরে করোনার প্রকোপ থেকে সবাই যেন নিরাপদে থাকতে পারি- এটিই চাওয়া। পরিস্থিতি যদি স্বাভাবিক হয়, তাহলে তো কাজ এমনিতেই বৃদ্ধি পাবে। তাই আমরা সবাই সেই নতুন দিনের অপেক্ষায় আছি।

হ্যালো...

সতর্ক থেকেই কাজ করছি

করোনাকালেও গান নিয়ে ব্যস্ত জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী দিলশাদ নাহার কণা। অডিওতে নিয়মিত নতুন মৌলিক গানে কণ্ঠ দিয়ে যাচ্ছেন। সম্প্রতি স্টেজ অনুষ্ঠানের কাজও শুরু করেছেন এ সংগীতশিল্পী। গান এবং অন্যান্য বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি।
 সোহেল আহসান 
১৩ জানুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
ছবি সংগৃহীত
ছবি সংগৃহীত

* স্টেজ অনুষ্ঠানের গান গাইছেন। কোনো সমস্যা হচ্ছে?

** মাঝে মধ্যেই করপোরেট শোতে গাইছি। দু’দিন আগে কক্সবাজারে পরপর দুটি করপোরেট অনুষ্ঠানে গাইলাম। সেখানে একটি বেসরকারি শিল্প গ্রুপের অনুষ্ঠান ছিল। মূলত সেই প্রতিষ্ঠানের কর্মীরাই ছিল দর্শক। এখনো পর্যন্ত করোনাজনিত কোনো সমস্যা হয়নি। সাবধানে এবং সতর্ক থেকেই কাজ করছি।

* এখন থেকে কি নিয়মিত স্টেজ অনুষ্ঠানে গাইবেন?

** আমার পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কোনো আপত্তি নেই। প্রস্তাব অনুযায়ী তো মাঝে মধ্যেই অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছি। করোনার আগে এ সময়ে অগ্রিম সিডিউল দেওয়া থাকত। বিশ্রামেরও সুযোগ পেতাম না। সেই পরিস্থিতি এখন নেই। আমার মতো অনেক শিল্পীই অপেক্ষায় আছেন স্বাভাবিক পরিস্থিতির।

* কক্সবাজারে অবস্থানকালে পর্যটক কেমন দেখেছেন?

দু’দিনে অসংখ্য মানুষকে সেখানে দেখেছি। বিশেষ করে সমুদ্রসৈকতে মানুষের ব্যাপক ঢল ছিল। মনে হচ্ছিল, করোনা বলে সেখানে কোনো কিছুর অস্তিত্বই নেই। কেউই স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। সবখানে লোকজনে ভরপুর ছিল। আমি জনসমাগম এড়িয়ে চলার চেষ্টা করেছি। কারণ করোনাভাইরাস সব জায়গাতেই আছে।

* বর্তমান গানের বাজারের পরিস্থিতি কেমন মনে হচ্ছে?

** কোয়ালিটি ঠিক রেখে অনেকেই স্বাভাবিক ছন্দে গাইছেন। অডিওর বাজার একেবারে খারাপ নয়। কারণ প্রযুক্তি ব্যবহার করে গান প্রকাশ হচ্ছে। শ্রোতারাও আগ্রহ নিয়েই গান শুনছেন। করোনার মধ্যেও অনেকের গানই শ্রোতাপ্রিয় হয়েছে। আমি মনে করছি, সামনে গানের বাজার আরও চাঙা হবে।

* নতুন গানের কাজ কেমন করছেন?

** প্রায় প্রতি সপ্তাহেই নতুন গানে কণ্ঠ দিচ্ছি। ছবির গানের কাজ বেশি আসছে এখন। পাশাপাশি কিছু গান আগে থেকেই করাছিল। সেগুলো পর্যায়ক্রমে প্রকাশ হবে। এ ছাড়া ইমরানের সঙ্গে যৌথভাবে একটি গানের কাজ করব কয়েক দিনের মধ্যে। সেটির ভিডিওতেও আমরা উপস্থিত থাকব।

* নতুন বছরের নির্দিষ্ট কোনো পরিকল্পনা সাজিয়েছেন?

** পরিকল্পনা তো কিছুটা থাকবেই। নতুন বছরে করোনার প্রকোপ থেকে সবাই যেন নিরাপদে থাকতে পারি- এটিই চাওয়া। পরিস্থিতি যদি স্বাভাবিক হয়, তাহলে তো কাজ এমনিতেই বৃদ্ধি পাবে। তাই আমরা সবাই সেই নতুন দিনের অপেক্ষায় আছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন