কঠিন সময়ের মুখোমুখি আমরা
jugantor
হ্যালো...
কঠিন সময়ের মুখোমুখি আমরা

  সোহেল আহসান  

১৬ এপ্রিল ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অভিনয় এবং পরিচালনা- দুই মাধ্যমেই সমানতালে কাজ করছেন মীর সাব্বির। পরিচালনার ক্ষেত্রে নাটকের গণ্ডি পেরিয়ে সিনেমাঙ্গনেও সরব তিনি। তার পরিচালনায় নির্মিত একটি ছবি মুক্তির অপেক্ষায় আছে। এসব প্রাসঙ্গিক বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি।

* লকডাউনের এ সময়টা কেমন কাটছে?

** লকডাউনের কারণে সব ধরনের কাজ বন্ধ রেখেছি। রাজধানীর নিজের বাসায়ই অবস্থান করছি। পরিবারের সদস্যদের সময় দিচ্ছি। বই পড়ছি। পাশাপাশি একটি ধারাবাহিক নাটক লিখছি। পছন্দের ছবি দেখছি। এভাবেই দিন পার হয়ে যাচ্ছে।

* এ পর্যন্ত কয়টি ঈদের নাটকে কাজ করেছেন?

** গত নভেম্বর থেকে এ পর্যন্ত এক ডজনেরও বেশি ঈদ নাটকের শুটিং শেষ করেছি। এদিকে রমজানজুড়েই ঈদের নাটকের শুটিং করার কথা ছিল। লকডাউন যদি দ্রুত উঠে যায় তাহলে হয়তো আমিও শুটিংয়ে ফিরব।

* দুটি ধারাবাহিক নাটক নির্মাণের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিলেন। সেটির অগ্রগতি কী?

** পরিকল্পনায় কিছুটা পরিবর্তন এনেছি। দুটি নয়, আপাতত একটি নাটক নির্মাণ করার প্রক্রিয়া অনেক দূর এগিয়ে নিয়েছি। এটির নাম ‘মাকড়সা’। আমার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকেই এটি নির্মিত হবে। ঈদের আগে এর শুটিং শুরু করা সম্ভব নয়। পরিস্থিতি যদি ভালো থাকে তাহলে ঈদের পর শুটিং শুরু করব।

* আপনার পরিচালিত ছবিটির কাজ এখন কোন পর্যায়ে আছে?

** ‘রাত জাগা ফুল’-এর শুটিং তো করোনাকাল শুরু হওয়ার আগেই সম্পন্ন হয়েছে। ডাবিংসহ অন্য কারিগরি কাজও এরই মধ্যে শেষ করেছি। সরকারি অনুদানে নির্মিত এ ছবিটি ঈদের পর সেন্সরের জন্য জমা দেব। তবে এটি যেহেতু প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দিতে হবে তাই এ বিষয়টি নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছি। কারণ মহামারির মধ্যে কয়টি প্রেক্ষাগৃহ খোলা থাকবে কিংবা দর্শকই বা কেমন আসবে, এ নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। সব মিলিয়ে এক কঠিন সময়ের মুখোমুখি আমরা।

হ্যালো...

কঠিন সময়ের মুখোমুখি আমরা

 সোহেল আহসান 
১৬ এপ্রিল ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অভিনয় এবং পরিচালনা- দুই মাধ্যমেই সমানতালে কাজ করছেন মীর সাব্বির। পরিচালনার ক্ষেত্রে নাটকের গণ্ডি পেরিয়ে সিনেমাঙ্গনেও সরব তিনি। তার পরিচালনায় নির্মিত একটি ছবি মুক্তির অপেক্ষায় আছে। এসব প্রাসঙ্গিক বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি।

* লকডাউনের এ সময়টা কেমন কাটছে?

** লকডাউনের কারণে সব ধরনের কাজ বন্ধ রেখেছি। রাজধানীর নিজের বাসায়ই অবস্থান করছি। পরিবারের সদস্যদের সময় দিচ্ছি। বই পড়ছি। পাশাপাশি একটি ধারাবাহিক নাটক লিখছি। পছন্দের ছবি দেখছি। এভাবেই দিন পার হয়ে যাচ্ছে।

* এ পর্যন্ত কয়টি ঈদের নাটকে কাজ করেছেন?

** গত নভেম্বর থেকে এ পর্যন্ত এক ডজনেরও বেশি ঈদ নাটকের শুটিং শেষ করেছি। এদিকে রমজানজুড়েই ঈদের নাটকের শুটিং করার কথা ছিল। লকডাউন যদি দ্রুত উঠে যায় তাহলে হয়তো আমিও শুটিংয়ে ফিরব।

* দুটি ধারাবাহিক নাটক নির্মাণের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিলেন। সেটির অগ্রগতি কী?

** পরিকল্পনায় কিছুটা পরিবর্তন এনেছি। দুটি নয়, আপাতত একটি নাটক নির্মাণ করার প্রক্রিয়া অনেক দূর এগিয়ে নিয়েছি। এটির নাম ‘মাকড়সা’। আমার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকেই এটি নির্মিত হবে। ঈদের আগে এর শুটিং শুরু করা সম্ভব নয়। পরিস্থিতি যদি ভালো থাকে তাহলে ঈদের পর শুটিং শুরু করব।

* আপনার পরিচালিত ছবিটির কাজ এখন কোন পর্যায়ে আছে?

** ‘রাত জাগা ফুল’-এর শুটিং তো করোনাকাল শুরু হওয়ার আগেই সম্পন্ন হয়েছে। ডাবিংসহ অন্য কারিগরি কাজও এরই মধ্যে শেষ করেছি। সরকারি অনুদানে নির্মিত এ ছবিটি ঈদের পর সেন্সরের জন্য জমা দেব। তবে এটি যেহেতু প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দিতে হবে তাই এ বিষয়টি নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছি। কারণ মহামারির মধ্যে কয়টি প্রেক্ষাগৃহ খোলা থাকবে কিংবা দর্শকই বা কেমন আসবে, এ নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। সব মিলিয়ে এক কঠিন সময়ের মুখোমুখি আমরা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন