মৌসুমী মৌকে নিয়ে নির্মাতাদের আস্থা বাড়ছে
jugantor
মৌসুমী মৌকে নিয়ে নির্মাতাদের আস্থা বাড়ছে

  আনন্দনগর প্রতিবেদক  

১৮ জুন ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

উপস্থাপনায় এ সময়ের পরিচিত মুখ মৌসুমী মৌ। দেশের প্রায় সব টিভি চ্যানেলেই তার উপস্থাপনায় বিভিন্ন অনুষ্ঠান প্রচার হয়। তবে এ উপস্থাপক ইদানীং অভিনয়ের দিকে মনোযোগ দিয়েছেন।

প্রথম অভিনয় করেন সৈয়দ সালাহ উদ্দিন জাকীর পরিচালনায় ‘অগ্নি ফসল’ নাটকে। পরবর্তীতে একই সময়ে তিনি চয়নিকা চৌধুরীর পরিচালনায় ‘স্যারের মেয়ে’ ও ‘মন বলেছে যাবো যাবো’ নাটকে অভিনয় করেন। গত রোজার ঈদে তার অভিনীত কয়েকটি নাটক প্রচার হয়। এসব নাটকে তার অভিনয় প্রশংসিতও হয়। ঈদের পরই অভিনয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন তিনি। বলা যায় তার প্রতি নির্মাতাদের আস্থা বাড়ছে।

এ প্রসঙ্গে মৌসুমী মৌ বলেন, ‘অভিনয়ে আমি একেবারেই নতুন। যেসব নাটকে কাজ করেছি, তাতে অনেক আগ্রহ নিয়ে অভিনয় করেছি। প্রত্যেক পরিচালকের পরামর্শ নিয়ে আমি আমার চরিত্রটি ভালোভাবে ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেছি। নাটকগুলো প্রচারের পর ভালো সাড়াও পেয়েছি। তাতে সত্যিই অনুপ্রাণিত হয়েছি। এরই মধ্যে আমার কাছে আগামী ঈদের জন্য বেশ কয়েকটি স্ক্রিপ্টও এসেছে। সেগুলো পড়ছি, পড়ার পর যদি গল্প এবং চরিত্র আমার ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই করব। তবে উপস্থাপনার বিষয়টি আমার কাছে সবসময়ই সবকিছুর আগে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’

মৌসুমী মৌকে নিয়ে নির্মাতাদের আস্থা বাড়ছে

 আনন্দনগর প্রতিবেদক 
১৮ জুন ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

উপস্থাপনায় এ সময়ের পরিচিত মুখ মৌসুমী মৌ। দেশের প্রায় সব টিভি চ্যানেলেই তার উপস্থাপনায় বিভিন্ন অনুষ্ঠান প্রচার হয়। তবে এ উপস্থাপক ইদানীং অভিনয়ের দিকে মনোযোগ দিয়েছেন।

প্রথম অভিনয় করেন সৈয়দ সালাহ উদ্দিন জাকীর পরিচালনায় ‘অগ্নি ফসল’ নাটকে। পরবর্তীতে একই সময়ে তিনি চয়নিকা চৌধুরীর পরিচালনায় ‘স্যারের মেয়ে’ ও ‘মন বলেছে যাবো যাবো’ নাটকে অভিনয় করেন। গত রোজার ঈদে তার অভিনীত কয়েকটি নাটক প্রচার হয়। এসব নাটকে তার অভিনয় প্রশংসিতও হয়। ঈদের পরই অভিনয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন তিনি। বলা যায় তার প্রতি নির্মাতাদের আস্থা বাড়ছে।

এ প্রসঙ্গে মৌসুমী মৌ বলেন, ‘অভিনয়ে আমি একেবারেই নতুন। যেসব নাটকে কাজ করেছি, তাতে অনেক আগ্রহ নিয়ে অভিনয় করেছি। প্রত্যেক পরিচালকের পরামর্শ নিয়ে আমি আমার চরিত্রটি ভালোভাবে ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেছি। নাটকগুলো প্রচারের পর ভালো সাড়াও পেয়েছি। তাতে সত্যিই অনুপ্রাণিত হয়েছি। এরই মধ্যে আমার কাছে আগামী ঈদের জন্য বেশ কয়েকটি স্ক্রিপ্টও এসেছে। সেগুলো পড়ছি, পড়ার পর যদি গল্প এবং চরিত্র আমার ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই করব। তবে উপস্থাপনার বিষয়টি আমার কাছে সবসময়ই সবকিছুর আগে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন