ঢাকায় এসেছিলাম আইএলটিএস করতে
jugantor
হ্যালো
ঢাকায় এসেছিলাম আইএলটিএস করতে

  সোহেল আহসান  

২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

একটি সুন্দরী প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়ে মিডিয়ায় আসেন জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী। এরপর অভিনয়ে। কাজ করছেন সিনেমা ও বিজ্ঞাপনে। অভিনয় ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি।

* এখন কী নিয়ে ব্যস্ত আছেন?

** সিনেমার শুটিং নিয়েই ব্যস্ত আছি। কিছুদিন ধরে পাবনা শহরে অবস্থান করছি। এখানে রায়হান রাফির পরিচালনায় ‘নূর’ নামের একটি সিনেমার শুটিং করছি। চলতি মাসের শেষ পর্যন্ত এখানে শুটিং করতে হবে।

* এ সিনেমায় আপনাকে কীভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে?

** আমার অভিনীত প্রত্যেকটি সিনেমায় নিজেকে আলাদাভাবেই উপস্থাপন করার চেষ্টা করছি। তবে এ সিনেমায় আমাকে একেবারেই ভিন্ন ধরনের একটি চরিত্রে দর্শক দেখতে পাবেন। আমি নিজেও চরিত্রটির প্রেমে পড়ে গেছি। তা ছাড়া এটির শুটিং লোকেশন থেকে শুরু করে অনেক কিছুই গোছানো আছে।

* আপনার অভিনীত প্রথম সিনেমা ‘মিশন এক্সট্রিম’ ডিসেম্বরে মুক্তি পাচ্ছে। এটি নিয়ে প্রত্যাশা কী?

** আমি সত্যিই ভাগ্যবতী। কারণ অভিনয় জীবন শুরুই হয়েছে এ ধরনের হাই ভোল্টেজের সিনেমা দিয়ে। তা ছাড়া সময়ের আলোচিত চিত্রনায়ক আরেফিন শুভকে সহশিল্পী হিসাবে পাওয়াও একটি ইতিবাচক বিষয়। এতে অভিনয় করতে গিয়ে আমি নিজেও ঋদ্ধ হয়েছি। সিনেমাটির পরিচালকরাও অনেক সহযোগিতা করেছেন। আশা করছি সিনেমাটি দর্শকের ভালো লাগবে। আমিও অধীর আগ্রহে এর জন্য অপেক্ষা করছি।

* তিন বছর ধরে বিনোদন ভুবনে কাজ করছেন। অভিজ্ঞতা কেমন হলো?

** আমি প্রতিটি কাজই মনোযোগ এবং আন্তরিকতা দিয়ে করি, চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করি। যদিও এখন পর্যন্ত আমার অভিনীত কোনো সিনেমাই মুক্তি পায়নি, তারপরও আমার ক্যারিয়ারের অনেক কিছুই যোগ হয়েছে। এগুলোকে আমি ইতিবাচক হিসাবেই গ্রহণ করছি।

* অভিনয়কে কি পেশা হিসাবে নিয়েছেন?

** আসলে আমি বিদেশে পড়ালেখা করার জন্য ঢাকায় এসেছিলাম আইএলটিএস করতে। অনেকটা শখেই একটি সুন্দরী প্রতিযোগিতায় নাম লেখাই। সেই প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর বিদেশ যাওয়ার পরিকল্পনা স্থগিত করি। এখন পড়ালেখার পাশাপাশি অভিনয় করছি। এভাবেই আপাতত চলতে চাই। পড়ালেখা শেষ হওয়ার পর রিভিউ করব অভিনয় পেশাটাকে। তখন যদি মনে হয় এ পেশা আমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ নয়, তাহলে হয়তো ভিন্ন কিছু ভাবব।

হ্যালো

ঢাকায় এসেছিলাম আইএলটিএস করতে

 সোহেল আহসান 
২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

একটি সুন্দরী প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়ে মিডিয়ায় আসেন জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী। এরপর অভিনয়ে। কাজ করছেন সিনেমা ও বিজ্ঞাপনে। অভিনয় ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি।

* এখন কী নিয়ে ব্যস্ত আছেন?

** সিনেমার শুটিং নিয়েই ব্যস্ত আছি। কিছুদিন ধরে পাবনা শহরে অবস্থান করছি। এখানে রায়হান রাফির পরিচালনায় ‘নূর’ নামের একটি সিনেমার শুটিং করছি। চলতি মাসের শেষ পর্যন্ত এখানে শুটিং করতে হবে।

* এ সিনেমায় আপনাকে কীভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে?

** আমার অভিনীত প্রত্যেকটি সিনেমায় নিজেকে আলাদাভাবেই উপস্থাপন করার চেষ্টা করছি। তবে এ সিনেমায় আমাকে একেবারেই ভিন্ন ধরনের একটি চরিত্রে দর্শক দেখতে পাবেন। আমি নিজেও চরিত্রটির প্রেমে পড়ে গেছি। তা ছাড়া এটির শুটিং লোকেশন থেকে শুরু করে অনেক কিছুই গোছানো আছে।

* আপনার অভিনীত প্রথম সিনেমা ‘মিশন এক্সট্রিম’ ডিসেম্বরে মুক্তি পাচ্ছে। এটি নিয়ে প্রত্যাশা কী?

** আমি সত্যিই ভাগ্যবতী। কারণ অভিনয় জীবন শুরুই হয়েছে এ ধরনের হাই ভোল্টেজের সিনেমা দিয়ে। তা ছাড়া সময়ের আলোচিত চিত্রনায়ক আরেফিন শুভকে সহশিল্পী হিসাবে পাওয়াও একটি ইতিবাচক বিষয়। এতে অভিনয় করতে গিয়ে আমি নিজেও ঋদ্ধ হয়েছি। সিনেমাটির পরিচালকরাও অনেক সহযোগিতা করেছেন। আশা করছি সিনেমাটি দর্শকের ভালো লাগবে। আমিও অধীর আগ্রহে এর জন্য অপেক্ষা করছি।

* তিন বছর ধরে বিনোদন ভুবনে কাজ করছেন। অভিজ্ঞতা কেমন হলো?

** আমি প্রতিটি কাজই মনোযোগ এবং আন্তরিকতা দিয়ে করি, চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করি। যদিও এখন পর্যন্ত আমার অভিনীত কোনো সিনেমাই মুক্তি পায়নি, তারপরও আমার ক্যারিয়ারের অনেক কিছুই যোগ হয়েছে। এগুলোকে আমি ইতিবাচক হিসাবেই গ্রহণ করছি।

* অভিনয়কে কি পেশা হিসাবে নিয়েছেন?

** আসলে আমি বিদেশে পড়ালেখা করার জন্য ঢাকায় এসেছিলাম আইএলটিএস করতে। অনেকটা শখেই একটি সুন্দরী প্রতিযোগিতায় নাম লেখাই। সেই প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর বিদেশ যাওয়ার পরিকল্পনা স্থগিত করি। এখন পড়ালেখার পাশাপাশি অভিনয় করছি। এভাবেই আপাতত চলতে চাই। পড়ালেখা শেষ হওয়ার পর রিভিউ করব অভিনয় পেশাটাকে। তখন যদি মনে হয় এ পেশা আমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ নয়, তাহলে হয়তো ভিন্ন কিছু ভাবব।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন