ব্লকবাস্টার সিনেমাসে আজ থেকে প্রদর্শিত হবে বহুল প্রতীক্ষিত ‘ডিউন’
jugantor
ব্লকবাস্টার সিনেমাসে আজ থেকে প্রদর্শিত হবে বহুল প্রতীক্ষিত ‘ডিউন’

  আনন্দনগর প্রতিবেদক  

২২ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাসের কারণে ২০২০ সালে মুক্তির তালিকায় থাকা অনেক সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে ২০২১ সালে। এ তালিকায় থাকা দর্শক আগ্রহের একটি সিনেমার নাম ‘ডিউন’। ২০২০ সালের নভেম্বরে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল এটি। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে অপেক্ষাটা আরও দীর্ঘ হয়। অবশেষে প্রায় এক বছরের অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে আজ আন্তর্জাতিকভাবে মুক্তি পেল ‘ডিউন’।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের সঙ্গে একই দিনে বাংলাদেশের রাজধানীর যমুনা ফিউচার পার্কের বিলাসবহুল সিনেথিয়েটার ব্লকবাস্টার সিনেমাসেও মুক্তি পেল এটি। সিনেমাটি আজ থেকে ব্লকবাস্টার সিনেমাসে নিয়মিত প্রদর্শিত হবে বলে জানিয়েছে হল কর্তৃপক্ষ। ফ্র্যাঙ্ক হার্বার্টের ১৯৬৫ সালের উপন্যাস ডিউন অবলম্বনে একই নামে বড়পর্দার জন্য সিনেমাটি নির্মাণ করেছেন অস্কার মনোনীত পরিচালক ডেনিস ভিলেনিউভে। এতে অভিনয় করেছেন টিমোথি চালামেট, রেবেকা ফার্গুসন, অস্কার আইজ্যাক, জোশ ব্রোলিন, স্টেলান স্কার্সগার্ড, ডেভ বুটিস্টা, চ্যাং চেন, জেনডায়া, স্টিফেন ম্যাককিনলি হেন্ডারসন ও অস্কারজয়ী জ্যাভিয়ের বারডেমসহ আরও অনেকে। টিমোথি ও জেনডায়ার রসায়ন দেখা গেছে এ সিনেমার ট্রেলারে।

সিনেমায় টিমোথির নাম পল অ্যাট্রেইডেস। এমন কিছু ক্ষমতা ও আশীর্বাদ নিয়ে তিনি জন্ম নিয়েছেন, যা তার নিজেরই অজানা। মহাবিশ্বের সবচেয়ে ভয়ংকর গ্রহে তাকে সংগ্রাম করতে হবে তার পরিবার ও নিজের লোকদের রক্ষা করতে। এটাই এখন বিস্ময়ের সঙ্গে দেখার বিষয় কীভাবে মানসিকভাবে উদ্দীপিত এ নায়ক মানুষের সর্বোচ্চ ক্ষমতা অর্জন করতে পারে। আর তা হলো, নিজের ভয়কে জয় করে অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখা। ডিউক লেটু বিপজ্জনক মরু গ্রহ আরাকাইসের সেবার দায়িত্ব গ্রহণ করেন, যেটি কেবল মহাবিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান এক পদার্থের একমাত্র উৎস, যা মানব জীবনকে দীর্ঘায়িত করে এবং মানব চিন্তাশক্তির স্তরকে প্রসারিত করে। লেটু যদিও জানত যে, এ সুযোগটি তার শত্রু হারকুনেন্স দ্বারা তৈরি একটি ফাঁদ। তবু তিনি তার উত্তরাধিকারী ছোট ছেলে, আরাকাইসের সবচেয়ে বিশ্বস্ত উপদেষ্টা ডিউন হিসাবে পরিচিত পল এবং তার দৈব মাতা ও লেটুর উপপত্নী লেডি জেকিকাকে সঙ্গে নেন। লেটু সেই মূল্যবান পদার্থের খনির কার্যভার নিয়ন্ত্রণ করেন, যাতে দৈত্য স্যান্ডওর্মসের উপস্থিতিতে বিপজ্জনক পরিস্থিতি তৈরি হয়।

ব্লকবাস্টার সিনেমাসে আজ থেকে প্রদর্শিত হবে বহুল প্রতীক্ষিত ‘ডিউন’

 আনন্দনগর প্রতিবেদক 
২২ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাসের কারণে ২০২০ সালে মুক্তির তালিকায় থাকা অনেক সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে ২০২১ সালে। এ তালিকায় থাকা দর্শক আগ্রহের একটি সিনেমার নাম ‘ডিউন’। ২০২০ সালের নভেম্বরে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল এটি। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে অপেক্ষাটা আরও দীর্ঘ হয়। অবশেষে প্রায় এক বছরের অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে আজ আন্তর্জাতিকভাবে মুক্তি পেল ‘ডিউন’।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের সঙ্গে একই দিনে বাংলাদেশের রাজধানীর যমুনা ফিউচার পার্কের বিলাসবহুল সিনেথিয়েটার ব্লকবাস্টার সিনেমাসেও মুক্তি পেল এটি। সিনেমাটি আজ থেকে ব্লকবাস্টার সিনেমাসে নিয়মিত প্রদর্শিত হবে বলে জানিয়েছে হল কর্তৃপক্ষ। ফ্র্যাঙ্ক হার্বার্টের ১৯৬৫ সালের উপন্যাস ডিউন অবলম্বনে একই নামে বড়পর্দার জন্য সিনেমাটি নির্মাণ করেছেন অস্কার মনোনীত পরিচালক ডেনিস ভিলেনিউভে। এতে অভিনয় করেছেন টিমোথি চালামেট, রেবেকা ফার্গুসন, অস্কার আইজ্যাক, জোশ ব্রোলিন, স্টেলান স্কার্সগার্ড, ডেভ বুটিস্টা, চ্যাং চেন, জেনডায়া, স্টিফেন ম্যাককিনলি হেন্ডারসন ও অস্কারজয়ী জ্যাভিয়ের বারডেমসহ আরও অনেকে। টিমোথি ও জেনডায়ার রসায়ন দেখা গেছে এ সিনেমার ট্রেলারে।

সিনেমায় টিমোথির নাম পল অ্যাট্রেইডেস। এমন কিছু ক্ষমতা ও আশীর্বাদ নিয়ে তিনি জন্ম নিয়েছেন, যা তার নিজেরই অজানা। মহাবিশ্বের সবচেয়ে ভয়ংকর গ্রহে তাকে সংগ্রাম করতে হবে তার পরিবার ও নিজের লোকদের রক্ষা করতে। এটাই এখন বিস্ময়ের সঙ্গে দেখার বিষয় কীভাবে মানসিকভাবে উদ্দীপিত এ নায়ক মানুষের সর্বোচ্চ ক্ষমতা অর্জন করতে পারে। আর তা হলো, নিজের ভয়কে জয় করে অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখা। ডিউক লেটু বিপজ্জনক মরু গ্রহ আরাকাইসের সেবার দায়িত্ব গ্রহণ করেন, যেটি কেবল মহাবিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান এক পদার্থের একমাত্র উৎস, যা মানব জীবনকে দীর্ঘায়িত করে এবং মানব চিন্তাশক্তির স্তরকে প্রসারিত করে। লেটু যদিও জানত যে, এ সুযোগটি তার শত্রু হারকুনেন্স দ্বারা তৈরি একটি ফাঁদ। তবু তিনি তার উত্তরাধিকারী ছোট ছেলে, আরাকাইসের সবচেয়ে বিশ্বস্ত উপদেষ্টা ডিউন হিসাবে পরিচিত পল এবং তার দৈব মাতা ও লেটুর উপপত্নী লেডি জেকিকাকে সঙ্গে নেন। লেটু সেই মূল্যবান পদার্থের খনির কার্যভার নিয়ন্ত্রণ করেন, যাতে দৈত্য স্যান্ডওর্মসের উপস্থিতিতে বিপজ্জনক পরিস্থিতি তৈরি হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন