বিটিভির নাটকে নাসিম ও সুষমা
jugantor
বিটিভির নাটকে নাসিম ও সুষমা

  আনন্দনগর প্রতিবেদক  

২৭ নভেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিটিভির জন্য নির্মিত একটি নাটকে সম্প্রতি অভিনয় করেছেন অভিনয়শিল্পী সংঘের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব নাসিম ও অভিনেত্রী সুষমা সরকার। নাটকের নাম ‘চার দেয়ালের মধ্যখানে’। পার্থ সারথী দাসের রচনায় এটি প্রযোজনা (পরিচালনা) করেছেন মাহবুবা ফেরদৌস। নাটকের গল্প প্রসঙ্গে পরিচালক জানান, চাকরিজীবী রায়হান অবৈধ অর্থে বিত্তবান হলেও সংসারে অসুখী। নিঃসন্তান হওয়ায় তার মনে হতাশা আর যন্ত্রণা বাসা বেঁধে থাকে সবসময়।

তার স্ত্রী রীতা সন্তানহীনতার কারণে এবং স্বামীর অবহেলায় মানসিকভাবে বিপর্যস্ত। সন্তান না হওয়া তার ওপর দোষ চাপিয়ে শাশুড়িও তাকে নানাভাবে বিদ্রুপ করে। বাড়ির দারোয়ান তার মনের বেদনা বুঝতে পেরে একটি সন্তান চুরি করে এনে দিতে চাইলেও রাজি হয় না রীতা। একপর্যায়ে রীতার শাশুড়ি ছেলেকে আবার বিয়ে দেবেন বলে মনস্থির করেন। রীতা সিদ্ধান্ত নেয় স্বামীর দ্বিতীয় বিয়ের রাতেই বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার। এরই মধ্যে মেডিকেল রিপোর্ট হাতে পায় রীতা। যেটা দেখে সে বুঝতে পারে সন্তান জন্ম দিতে সক্ষম রীতা, সমস্যা তার স্বামী রায়হানের। রীতা এতদিনের মোক্ষম জবাব দেওয়ার জন্য প্রস্তুত হয়ে যায়। তার স্বামীর বিয়ের রাতেই মেডিকেল রিপোর্ট শাশুড়ির সামনে স্বামীর হাতে তুলে দিয়ে শ্বশুরবাড়ি ত্যাগ করে রীতা।’

এতে অভিনয় প্রসঙ্গে নাসিম বলেন, ‘দারুণ গল্পের একটি নাটক। পুরো গল্পেই ম্যাসেজ আছে। আশা করি দর্শকরা দেখে উপকৃত হবেন। সুষমা সরকার বলেন, ‘এটি একটি শিক্ষণীয় নাটক। আমাদের সমাজে মেয়েদের দোষ দেওয়ার এমন হীন মানসিকতা এখনো বিরাজমান। আশা করি নাটকটি দেশে দর্শকরা সেটি উপলব্ধি করতে পারবেন।’ নাটকটি আজ রাত ৯টায় বিটিভিতে প্রচার হবে।

বিটিভির নাটকে নাসিম ও সুষমা

 আনন্দনগর প্রতিবেদক 
২৭ নভেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিটিভির জন্য নির্মিত একটি নাটকে সম্প্রতি অভিনয় করেছেন অভিনয়শিল্পী সংঘের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব নাসিম ও অভিনেত্রী সুষমা সরকার। নাটকের নাম ‘চার দেয়ালের মধ্যখানে’। পার্থ সারথী দাসের রচনায় এটি প্রযোজনা (পরিচালনা) করেছেন মাহবুবা ফেরদৌস। নাটকের গল্প প্রসঙ্গে পরিচালক জানান, চাকরিজীবী রায়হান অবৈধ অর্থে বিত্তবান হলেও সংসারে অসুখী। নিঃসন্তান হওয়ায় তার মনে হতাশা আর যন্ত্রণা বাসা বেঁধে থাকে সবসময়।

তার স্ত্রী রীতা সন্তানহীনতার কারণে এবং স্বামীর অবহেলায় মানসিকভাবে বিপর্যস্ত। সন্তান না হওয়া তার ওপর দোষ চাপিয়ে শাশুড়িও তাকে নানাভাবে বিদ্রুপ করে। বাড়ির দারোয়ান তার মনের বেদনা বুঝতে পেরে একটি সন্তান চুরি করে এনে দিতে চাইলেও রাজি হয় না রীতা। একপর্যায়ে রীতার শাশুড়ি ছেলেকে আবার বিয়ে দেবেন বলে মনস্থির করেন। রীতা সিদ্ধান্ত নেয় স্বামীর দ্বিতীয় বিয়ের রাতেই বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার। এরই মধ্যে মেডিকেল রিপোর্ট হাতে পায় রীতা। যেটা দেখে সে বুঝতে পারে সন্তান জন্ম দিতে সক্ষম রীতা, সমস্যা তার স্বামী রায়হানের। রীতা এতদিনের মোক্ষম জবাব দেওয়ার জন্য প্রস্তুত হয়ে যায়। তার স্বামীর বিয়ের রাতেই মেডিকেল রিপোর্ট শাশুড়ির সামনে স্বামীর হাতে তুলে দিয়ে শ্বশুরবাড়ি ত্যাগ করে রীতা।’

এতে অভিনয় প্রসঙ্গে নাসিম বলেন, ‘দারুণ গল্পের একটি নাটক। পুরো গল্পেই ম্যাসেজ আছে। আশা করি দর্শকরা দেখে উপকৃত হবেন। সুষমা সরকার বলেন, ‘এটি একটি শিক্ষণীয় নাটক। আমাদের সমাজে মেয়েদের দোষ দেওয়ার এমন হীন মানসিকতা এখনো বিরাজমান। আশা করি নাটকটি দেশে দর্শকরা সেটি উপলব্ধি করতে পারবেন।’ নাটকটি আজ রাত ৯টায় বিটিভিতে প্রচার হবে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন