চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি একটি পরিবার
jugantor
হ্যালো...
চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি একটি পরিবার

  সোহেল আহসান  

২৩ জানুয়ারি ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি একটি পরিবার

অভিনয়ের পাশাপাশি নির্মাণেও সক্রিয় অরুণা বিশ্বাস। প্রথমবার একটি সিনেমা পরিচালনা করছেন এ অভিনেত্রী। এ ছাড়া চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। পরিচালনা, নির্বাচনসহ অন্যান্য প্রাসঙ্গিক বিষয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি।

* কোন ভাবনা থেকে এবারও চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন?

** আমি মনে করি শিল্পীদের কল্যাণের জন্য এ সংগঠন একটি সুন্দর প্ল্যাটফরম। যার মাধ্যমে সরাসরি শিল্পীদের সঙ্গে যোগাযোগ এবং তাদের উন্নয়নে কাজ করা যায়। এর আগেও আমি এ সমিতির নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। সদ্য বিদায়ী কমিটির সভাপতি মিশা ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ করোনার মধ্যেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অসুস্থ শিল্পীদের জন্য কাজ করেছেন, সেবা করেছেন। কেউ মারা গেলে তার সৎকার কাজে গেছেন সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়েও। তাই তাদের এ মানবিক কাজগুলোকে উৎসাহিত করার জন্যই আমি মিশা-জায়েদ প্যানেলের হয়ে নির্বাচন করছি। আশা করছি আমরা জয়ী হব।

* জয়ী হলে কী ধরনের কাজ করার পরিকল্পনা নিয়েছেন?

** আমাদের গত কমিটির যে অসম্পূর্ণ কাজ রয়েছে সেগুলোর যেন বাস্তবায়ন হয় তা-ই প্রথমে করার চেষ্টা করব। এ ছাড়া শিল্পীদের প্রতি আমাদের যেসব অঙ্গীকার রয়েছে সেগুলো বাস্তবায়ন যেন দ্রুত হয়, সে চেষ্টা করব।

* নির্বাচনের প্রার্থীদের নিয়ে এক ধরনের কাদা ছোড়াছুড়ি চলছে। এ নিয়ে আপনার বক্তব্য কী?

** আমি মনে করি চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি একটি পরিবার। এ পরিবারের সবাই আমরা সদস্য। আমাদের মধ্যে আগেও যেমন সদ্ভাব ছিল, এখনো আছে। আমরা সরাসরি কেউই এ কাজটির সঙ্গে যুক্ত নই। তৃতীয় পক্ষ আমাদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি তৈরি করার জন্যই এমনটি করছে। তবে আমরা নিজেদের জায়গায় সচেতন আছি। আমাদের এ ঐক্য ভবিষ্যতেও অটুট থাকবে। আমরা একটি পরিবারের সদস্য হয়েই বাকিটা সময় পার করতে চাই।

* আপনি নাটকের অভিনয়শিল্পী সংঘেরও সদস্য। একই দিন সেই সংগঠনেরও নির্বাচন। সেখানে কি যাবেন?

** যাব তো অবশ্যই। কারণ টিভি নাটকের অভিনয়শিল্পীদের অনেকের সঙ্গেই আমার ভালো সম্পর্ক রয়েছে। ভোটাধিকার প্রয়োগ করার জন্য আমি সেখানে এক ফাঁকে গিয়ে ভোট দিয়ে আসব।

* প্রথমবার একটি সিনেমা পরিচালনা করছেন। এটির কাজের অগ্রগতি কী?

** ‘অসম্ভব’ নামের সিনেমাটির শুটিং আর মাত্র ৪ দিন করলেই শেষ হয়ে যাবে। এখন যেহেতু করোনা পরিস্থিতি খারাপের দিকে তাই কয়েকদিন অপেক্ষা করতে চাইছি। শুটিংটুকু শেষ করার পর ডাবিংসহ বাকি কারিগরি কাজগুলো দ্রুত শেষ করে সেন্সরে দেব। তারপর মুক্তির প্রক্রিয়ায় যাব। আমার এ সিনেমায় যারা অভিনয় করছেন, তারা প্রত্যেকেই স্বনামধন্য অভিনয়শিল্পী। তাই আমি সিনেমাটির সফলতার ব্যাপারে আশাবাদী।

হ্যালো...

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি একটি পরিবার

 সোহেল আহসান 
২৩ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি একটি পরিবার
ফাইল ছবি

অভিনয়ের পাশাপাশি নির্মাণেও সক্রিয় অরুণা বিশ্বাস। প্রথমবার একটি সিনেমা পরিচালনা করছেন এ অভিনেত্রী। এ ছাড়া চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। পরিচালনা, নির্বাচনসহ অন্যান্য প্রাসঙ্গিক বিষয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি।

* কোন ভাবনা থেকে এবারও চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন?

** আমি মনে করি শিল্পীদের কল্যাণের জন্য এ সংগঠন একটি সুন্দর প্ল্যাটফরম। যার মাধ্যমে সরাসরি শিল্পীদের সঙ্গে যোগাযোগ এবং তাদের উন্নয়নে কাজ করা যায়। এর আগেও আমি এ সমিতির নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। সদ্য বিদায়ী কমিটির সভাপতি মিশা ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ করোনার মধ্যেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অসুস্থ শিল্পীদের জন্য কাজ করেছেন, সেবা করেছেন। কেউ মারা গেলে তার সৎকার কাজে গেছেন সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়েও। তাই তাদের এ মানবিক কাজগুলোকে উৎসাহিত করার জন্যই আমি মিশা-জায়েদ প্যানেলের হয়ে নির্বাচন করছি। আশা করছি আমরা জয়ী হব।

* জয়ী হলে কী ধরনের কাজ করার পরিকল্পনা নিয়েছেন?

** আমাদের গত কমিটির যে অসম্পূর্ণ কাজ রয়েছে সেগুলোর যেন বাস্তবায়ন হয় তা-ই প্রথমে করার চেষ্টা করব। এ ছাড়া শিল্পীদের প্রতি আমাদের যেসব অঙ্গীকার রয়েছে সেগুলো বাস্তবায়ন যেন দ্রুত হয়, সে চেষ্টা করব।

* নির্বাচনের প্রার্থীদের নিয়ে এক ধরনের কাদা ছোড়াছুড়ি চলছে। এ নিয়ে আপনার বক্তব্য কী?

** আমি মনে করি চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি একটি পরিবার। এ পরিবারের সবাই আমরা সদস্য। আমাদের মধ্যে আগেও যেমন সদ্ভাব ছিল, এখনো আছে। আমরা সরাসরি কেউই এ কাজটির সঙ্গে যুক্ত নই। তৃতীয় পক্ষ আমাদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি তৈরি করার জন্যই এমনটি করছে। তবে আমরা নিজেদের জায়গায় সচেতন আছি। আমাদের এ ঐক্য ভবিষ্যতেও অটুট থাকবে। আমরা একটি পরিবারের সদস্য হয়েই বাকিটা সময় পার করতে চাই।

* আপনি নাটকের অভিনয়শিল্পী সংঘেরও সদস্য। একই দিন সেই সংগঠনেরও নির্বাচন। সেখানে কি যাবেন?

** যাব তো অবশ্যই। কারণ টিভি নাটকের অভিনয়শিল্পীদের অনেকের সঙ্গেই আমার ভালো সম্পর্ক রয়েছে। ভোটাধিকার প্রয়োগ করার জন্য আমি সেখানে এক ফাঁকে গিয়ে ভোট দিয়ে আসব।

* প্রথমবার একটি সিনেমা পরিচালনা করছেন। এটির কাজের অগ্রগতি কী?

** ‘অসম্ভব’ নামের সিনেমাটির শুটিং আর মাত্র ৪ দিন করলেই শেষ হয়ে যাবে। এখন যেহেতু করোনা পরিস্থিতি খারাপের দিকে তাই কয়েকদিন অপেক্ষা করতে চাইছি। শুটিংটুকু শেষ করার পর ডাবিংসহ বাকি কারিগরি কাজগুলো দ্রুত শেষ করে সেন্সরে দেব। তারপর মুক্তির প্রক্রিয়ায় যাব। আমার এ সিনেমায় যারা অভিনয় করছেন, তারা প্রত্যেকেই স্বনামধন্য অভিনয়শিল্পী। তাই আমি সিনেমাটির সফলতার ব্যাপারে আশাবাদী।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন