নাগরিকত্ব নেওয়ার গুঞ্জন
jugantor
আমেরিকায় অপূর্ব
নাগরিকত্ব নেওয়ার গুঞ্জন

  আনন্দনগর প্রতিবেদক  

২৪ জানুয়ারি ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বর্তমান সময়ের নাটকের শীর্ষ নায়ক জিয়াউল ফারুক অপূর্ব শুটিংয়ে নেই গত দুই মাস। তবে এ সময়টায় তিনি দেশেও নেই। জানা গেছে, গত বছরের নভেম্বরের শেষ সপ্তাহে আমেরিকায় পাড়ি জমিয়েছেন এ অভিনেতা। নাটকের ব্যস্ত সিডিউল ফেলে তার আমেরিকায় যাওয়া নিয়ে গুঞ্জন চলছে মিডিয়াপাড়ায়।

বিশেষ করে গত বছরের মধ্যভাগে বিয়ে করার পর থেকেই তাকে নিয়ে আমেরিকা প্রবাসী হওয়ার আলোচনা সবার মুখে মুখে। কারণ অপূর্বের নববিবাহিতা স্ত্রী আমেরিকার নাগরিক। তাই অপূর্বও সে দেশের নাগরিকত্ব নিচ্ছেন, এমন কথা চাউর হয় মিডিয়ায়। কিন্তু অপূর্ব তখন এ তথ্য নাকচ করে দেন। তবে এবার আমেরিকায় যাওয়া এবং দুই মাসেরও বেশি সময় সেখানে অবস্থান করার ঘটনায় নাগরিকত্ব নেওয়ার সেই গুঞ্জন আবারও প্রকাশ্যে এলো। আমেরিকার নাগরিকত্ব নেওয়ার কিছু প্রক্রিয়া আছে। তার মধ্যে একটি হলো একটানা ছয় মাস সেই দেশে বসবাস করতে হবে। অপূর্বও কি সেই শর্ত পূরণ করছেন, এমন প্রশ্ন কিন্তু ঘুরপাক খাচ্ছে।

অনেকে বলছেন, নাটকের অভিনয়ের জন্য যেখানে তার সিডিউল পেতে হিমশিম খায় নির্মাতারা, সেখানে অপূর্ব কাজকর্ম বন্ধ রেখে আমেরিকায় অবস্থান করার বিষয়টি কিন্তু শুধু স্ত্রীকে সময় দেওয়া নয়। এদিকে আমেরিকা যাওয়ার আগে যুগান্তরকে এ অভিনেতা জানিয়েছিলেন, ভালোবাসা দিবসের আগেই তিনি দেশে ফিরবেন। তখন এ অভিনেতা বলেন, ‘আমি আমেরিকায় স্থায়ী হচ্ছি না। কিছু কাজের কারণেই সে দেশে যাতায়াত করছি। তা ছাড়া আমার স্ত্রীও সেখানে থাকেন। তাই কিছুদিনের জন্য বেড়াতে যাচ্ছি। ভ্যালেন্টাইনের আগেই দেশে ফিরব। দিবসটিকে কেন্দ্র করে কিছু নাটকে অভিনয় করার ইচ্ছা আছে। খুব দ্রুতই দেশে ফিরব।’ বিষয়টির আপডেট জানতে চাইলে আমেরিকা থেকে মোবাইল ফোনে অপূর্ব বলেন, ‘নাগরিকত্বের বিষয়ে এখনই কিছু ভাবছি না। আমি অবশ্যই দেশে ফিরব। টিকিটও করে ফেলেছি এরই মধ্যে। কিছু কাজ আছে, সেটা শেষ হলেই ফিরব। নির্মাতাদের দুশ্চিন্তা করার কিছু নেই। আমি কাজে ফিরছি শিগ্গির।

আমেরিকায় অপূর্ব

নাগরিকত্ব নেওয়ার গুঞ্জন

 আনন্দনগর প্রতিবেদক 
২৪ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বর্তমান সময়ের নাটকের শীর্ষ নায়ক জিয়াউল ফারুক অপূর্ব শুটিংয়ে নেই গত দুই মাস। তবে এ সময়টায় তিনি দেশেও নেই। জানা গেছে, গত বছরের নভেম্বরের শেষ সপ্তাহে আমেরিকায় পাড়ি জমিয়েছেন এ অভিনেতা। নাটকের ব্যস্ত সিডিউল ফেলে তার আমেরিকায় যাওয়া নিয়ে গুঞ্জন চলছে মিডিয়াপাড়ায়।

বিশেষ করে গত বছরের মধ্যভাগে বিয়ে করার পর থেকেই তাকে নিয়ে আমেরিকা প্রবাসী হওয়ার আলোচনা সবার মুখে মুখে। কারণ অপূর্বের নববিবাহিতা স্ত্রী আমেরিকার নাগরিক। তাই অপূর্বও সে দেশের নাগরিকত্ব নিচ্ছেন, এমন কথা চাউর হয় মিডিয়ায়। কিন্তু অপূর্ব তখন এ তথ্য নাকচ করে দেন। তবে এবার আমেরিকায় যাওয়া এবং দুই মাসেরও বেশি সময় সেখানে অবস্থান করার ঘটনায় নাগরিকত্ব নেওয়ার সেই গুঞ্জন আবারও প্রকাশ্যে এলো। আমেরিকার নাগরিকত্ব নেওয়ার কিছু প্রক্রিয়া আছে। তার মধ্যে একটি হলো একটানা ছয় মাস সেই দেশে বসবাস করতে হবে। অপূর্বও কি সেই শর্ত পূরণ করছেন, এমন প্রশ্ন কিন্তু ঘুরপাক খাচ্ছে।

অনেকে বলছেন, নাটকের অভিনয়ের জন্য যেখানে তার সিডিউল পেতে হিমশিম খায় নির্মাতারা, সেখানে অপূর্ব কাজকর্ম বন্ধ রেখে আমেরিকায় অবস্থান করার বিষয়টি কিন্তু শুধু স্ত্রীকে সময় দেওয়া নয়। এদিকে আমেরিকা যাওয়ার আগে যুগান্তরকে এ অভিনেতা জানিয়েছিলেন, ভালোবাসা দিবসের আগেই তিনি দেশে ফিরবেন। তখন এ অভিনেতা বলেন, ‘আমি আমেরিকায় স্থায়ী হচ্ছি না। কিছু কাজের কারণেই সে দেশে যাতায়াত করছি। তা ছাড়া আমার স্ত্রীও সেখানে থাকেন। তাই কিছুদিনের জন্য বেড়াতে যাচ্ছি। ভ্যালেন্টাইনের আগেই দেশে ফিরব। দিবসটিকে কেন্দ্র করে কিছু নাটকে অভিনয় করার ইচ্ছা আছে। খুব দ্রুতই দেশে ফিরব।’ বিষয়টির আপডেট জানতে চাইলে আমেরিকা থেকে মোবাইল ফোনে অপূর্ব বলেন, ‘নাগরিকত্বের বিষয়ে এখনই কিছু ভাবছি না। আমি অবশ্যই দেশে ফিরব। টিকিটও করে ফেলেছি এরই মধ্যে। কিছু কাজ আছে, সেটা শেষ হলেই ফিরব। নির্মাতাদের দুশ্চিন্তা করার কিছু নেই। আমি কাজে ফিরছি শিগ্গির।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন