আঙুরের বাগান নিয়ে লড়ছেন জোলি-পিট
jugantor
আঙুরের বাগান নিয়ে লড়ছেন জোলি-পিট

  আনন্দনগর ডেস্ক  

০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিয়ে বিচ্ছেদ ও সম্পত্তি ভাগাভাগি অনেক আগেই হয়ে গেছে। কিন্তু একটি আঙুরের বাগান নিয়ে এখনো লড়ছেন হলিউড তারকা ব্রাড পিট ও অ্যাঞ্জেলিনা জোলি। ফ্রান্সে অবস্থিত বাগানটির মালিকানার মামলা নিয়ে এ দুই তারকার বাহ্যিক সম্পর্কও এখন দা-কুমড়োর মতো। ২০০৮ সালে আঙুরের বাগানটি কিনেন জোলি ও পিট। এটি তাদের যৌথ মালিকানায় ছিল। ২০১৪ সালে ওই বাগানেই বিয়ে করেছিলেন এ দুই তারকা। বিয়ে বিচ্ছেদের পর বাগানের নিজের মালিকানার অংশ তৃতীয় পক্ষের কাছে বিক্রি করে দেন জোলি। আর এতেই আদালতে মামলা ঠুকে দেন পিট। তার অভিযোগ, তৃতীয় পক্ষের কাছে নিজের অংশ বিক্রি করার আগে পিটকে জানাননি জোলি। এ বাগান নিয়ে আইনি লড়াই চলছে তাদের মধ্যে। যতই দিন গড়াচ্ছে, ততই জটিল হচ্ছে অ্যাঞ্জেলিনা এই আইনি জটিলতা। সম্প্রতি জোলি আদালতে কিছু নথি জমা দিয়েছেন। সেখানে ব্র্যাড পিটের মামলাকে তিনি ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত, মূর্খতাপূর্ণ, বিদ্বেষপূর্ণ ও সমস্যাযুক্ত’ বলেছেন। সেখানে আরও বলা হয়েছে, পিটের অভিযোগ অনুযায়ী সম্পত্তি বিক্রির বিষয়ে একটি গোপন, অলিখিত, অব্যক্ত চুক্তি ছিল তাদের মাঝে। কিন্তু এ ধরনের কোনো চুক্তি আসলে ছিল না।

আঙুরের বাগান নিয়ে লড়ছেন জোলি-পিট

 আনন্দনগর ডেস্ক 
০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিয়ে বিচ্ছেদ ও সম্পত্তি ভাগাভাগি অনেক আগেই হয়ে গেছে। কিন্তু একটি আঙুরের বাগান নিয়ে এখনো লড়ছেন হলিউড তারকা ব্রাড পিট ও অ্যাঞ্জেলিনা জোলি। ফ্রান্সে অবস্থিত বাগানটির মালিকানার মামলা নিয়ে এ দুই তারকার বাহ্যিক সম্পর্কও এখন দা-কুমড়োর মতো। ২০০৮ সালে আঙুরের বাগানটি কিনেন জোলি ও পিট। এটি তাদের যৌথ মালিকানায় ছিল। ২০১৪ সালে ওই বাগানেই বিয়ে করেছিলেন এ দুই তারকা। বিয়ে বিচ্ছেদের পর বাগানের নিজের মালিকানার অংশ তৃতীয় পক্ষের কাছে বিক্রি করে দেন জোলি। আর এতেই আদালতে মামলা ঠুকে দেন পিট। তার অভিযোগ, তৃতীয় পক্ষের কাছে নিজের অংশ বিক্রি করার আগে পিটকে জানাননি জোলি। এ বাগান নিয়ে আইনি লড়াই চলছে তাদের মধ্যে। যতই দিন গড়াচ্ছে, ততই জটিল হচ্ছে অ্যাঞ্জেলিনা এই আইনি জটিলতা। সম্প্রতি জোলি আদালতে কিছু নথি জমা দিয়েছেন। সেখানে ব্র্যাড পিটের মামলাকে তিনি ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত, মূর্খতাপূর্ণ, বিদ্বেষপূর্ণ ও সমস্যাযুক্ত’ বলেছেন। সেখানে আরও বলা হয়েছে, পিটের অভিযোগ অনুযায়ী সম্পত্তি বিক্রির বিষয়ে একটি গোপন, অলিখিত, অব্যক্ত চুক্তি ছিল তাদের মাঝে। কিন্তু এ ধরনের কোনো চুক্তি আসলে ছিল না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন