চলচ্চিত্র পরিচালনার ইচ্ছা আছে : মিলন

প্রকাশ : ১৯ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক   

অভিনেতা আনিসুর রহমান মিলন

মঞ্চ নাটক দিয়ে অভিনয়ে আসেন আনিসুর রহমান মিলন। এরপর টিভি নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে জনপ্রিয়তা পান। এখন চলচ্চিত্রেও নিয়মিত অভিনয় করেন। ঈদের নাটকে অভিনয় নিয়ে বর্তমানে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন এ অভিনেতা। পাশাপাশি নতুন কিছু পরিকল্পনাও হাতে নিয়েছেন। অভিনয় এবং সমসাময়িক বিভিন্ন প্রসঙ্গ নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি

* যুগান্তর : এখন কি শুধু ঈদের নাটকেই অভিনয় করছেন?

** মিলন: হ্যাঁ। বেশ কিছুদিন থেকে ঈদের নাটকের শুটিং নিয়েই ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছি। নাটকগুলো পরিচালনা করেছেন চয়নিকা চৌধুরী, আরিফ খান, ফিরোজ কবির ডলার, হারুন অর রশীদ, অভ্র, সেতু আরিফ, নজরুল ইসলাম রাজু, নাঈম, তন্ময় ও মাহমুদ দিদার।

* যুগান্তর : এ নাটকগুলোর গল্প কী ধরনের?

** মিলন: বেশিরভাগ গল্পই হচ্ছে সিরিয়াস ধরনের। এর মধ্যে একটি সিক্যুয়াল নাটক ৩ বছর ধরে চলছে। আমি যে ঘরানার কাজ করি যেমন গল্পভিত্তিক কাজ, অভিনয়নির্ভর কাজ- এ বিষয়গুলোই নাটকগুলোর মধ্যে আছে। সিচুয়েশনাল কমেডি ও রোমান্টিক গল্পও আছে।

* যুগান্তর : ধারাবাহিক নাটকেও তো নিয়মিত দেখা যাচ্ছে আপনাকে...

** মিলন: ধারাবাহিক নাটকেও কাজ করছি। আমার অভিনীত আল হাজেনের পরিচালনায় ‘ভবঘুরে’, রাজু খানের ‘মধ্যবর্তনী’ এবং রাশেদ রাহার ‘আকাশে মেঘ নেই’ নাটক তিনটি প্রচার চলছে।

* যুগান্তর : কয়েক বছর ধরেই আপনি সিনেমায় নিয়মিত। সম্প্রতি কয়েকটি সিনেমায় চুক্তিবদ্ধও হয়েছেন। এগুলোর কাজ কবে শুরু হবে?

** মিলন: সিনেমায় কাজের প্রস্তাব অনেক আসে। তার মধ্যে যেগুলো ভালো লাগে সেটাই করি। এরই মধ্যে সুমন রেজার পরিচালনায় ‘ঝুম’, অনিরুদ্ধ রাসেলের ‘জামদানি’, জয় সরকারের ‘ইন্দুবালা’ এবং ওয়াজেদ আলী সুমনের একটি সিনেমার কাজ হাতে নিয়েছে। ঈদের পরপরই এসব সিনেমার কাজ শুরু হবে বলে নির্মাতারা আমাকে জানিয়েছেন।

* যুগান্তর : মুক্তির অপেক্ষায় থাকা সিনেমার খবর কী?

** মিলন: কয়েকটি সিনেমাই মুক্তির অপেক্ষায় আছে। এগুলো হল হাবিবুর রহমান হাবিরের ‘রাত্রীর যাত্রী’, তানিম রহমান অংশুর ‘স্বপ্ন ঘর’, শাহ আলম মণ্ডলের ‘ডনগিরি’। এছাড়া রাশেদ পলাশের ‘নাইওর’ ছবির অর্ধেক কাজ বাকি আছে।

* যুগান্তর : অভিনয় ছাড়া মিডিয়ায় অন্য কোনো পরিচয়ে আবির্ভূত হওয়ার ইচ্ছা আছে?

** মিলন: এ ব্যস্ত জীবনে অভিনয় নিয়েই কাজ করলেও আরও একটি ইচ্ছা পোষণ করি। চলচ্চিত্র পরিচালনার ইচ্ছা আছে। কয়েক বছর আগে থেকেই এটি আমার চিন্তায় ক্রিয়াশীল। এ নিয়েই আমি নিয়মিত ভাবছি। এরই মধ্যে ছবির গল্প এবং চিত্রনাট্য ঠিক করেছি। অর্থলগ্নির বিষয়টি নিশ্চিত হলেই এর কাজ শুরু করব। এটা আমার স্বপ্নের একটি প্রজেক্ট।

সোহেল আহসান