দিনাজপুরে ৬টি আসন

অধিকাংশ কেন্দ্রেই ছিল না অন্য দলের এজেন্ট

প্রকাশ : ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  দিনাজপুর প্রতিনিধি

দিনাজপুরে বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনার মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হয়েছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ। তবে বড় ধরনের তেমন কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

জেলার ৬টি আসনের বেশিরভাগ কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট ছাড়া ধানের শীষ বা অন্য দলের প্রার্থীদের পোলিং এজেন্টদের দেখা যায়নি। কেন্দ্র দখল নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত হয়েছেন ৪ জন।

আর ভোট প্রদানে বাধা দেয়ার প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে পুলিশের লাঠিচার্জের শিকার হয়েছেন বেশ কিছু ভোটার। দিনাজপুর জেলার ৩১ জন প্রার্থীর মধ্যে দুই প্রার্থী ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দিনাজপুর জেলার ৬টি আসনে মোট কেন্দ্র স্থাপন করা হয় ৭৯১টি।

এর মধ্যে পার্বতীপুর উপজেলার আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে রোববার বেলা ১১টায় কেন্দ্র দখল নিয়ে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমর্থক-কর্মীদের সংঘর্ষ হয়। এ সময় পুলিশ ৩ রাউন্ড টিয়ারশেল ও ৬ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এতে ৪ জন আহত হয়েছেন।

আহতদের মধ্যে রাজু ও জয়নাল নামে দু’জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জেলার ৭৯১টি কেন্দ্রের অধিকাংশ কেন্দ্রেই আওয়ামী লীগের প্রার্থী ছাড়া অন্য দলের প্রার্থীদের পোলিং এজেন্ট দেখা যায়নি। দিনাজপুর-১ আসনে বীরগঞ্জ উপজেলার কল্যাণী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র ও মাটিয়াকুড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রসহ বিভিন্ন কেন্দ্রে গিয়ে ধানের শীষের প্রার্থীর কোনো পোলিং এজেন্ট পাওয়া যায়নি।

অনুরূপ বিরামপুর উপজেলার বিরামপুর মহিলা কলেজ, বিরামপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রসহ ওই আসনের অধিকাংশ কেন্দ্রেই ছিল না ধানের শীষের পোলিং এজেন্ট। স্থানীয়রা জানান, বেশ কিছু কেন্দ্রে সবাই পোলিং এজেন্টদের জোর করে বের করে দেয়া হয়েছে।