গাইবান্ধা শহর রক্ষা বাঁধের মাটি কেটে বিক্রি

  গাইবান্ধা প্রতিনিধি ১৬ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিক্রি

গাইবান্ধা শহরতলির খোলাহাটি ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের পশ্চিম কোমরনই এলাকায় শহর রক্ষা বাঁধের গা ঘেঁষে ঘাঘট নদী থেকে অবৈধভাবে মাটি কেটে বিক্রি করছে একটি প্রভাবশালী মহল।

এসব মাটি ট্রাক্টর এবং ট্রলি দিয়ে বিভিন্ন ইটভাটা ও নানা স্থানে মাটি ভরাটের কাজে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ফলে আসন্ন বন্যায় এবার শহর রক্ষা বাঁধটি হুমকির মুখে পড়বে বলে আশংকা করছেন এলাকাবাসী। বিষয়টি উপজেলা এবং জেলা প্রশাসনকে জানিয়েও কোনো প্রতিকার পাওয়া যায়নি। ওই এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, খোলাহাটি ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের পশ্চিম কোমরনই এলাকায় শহর রক্ষা বাঁধ সংলগ্ন ঘাঘট নদী থেকে দীর্ঘদিন ধরে এক শ্রেণীর প্রভাবশালী ব্যক্তি বাণিজ্যিক উদ্দেশে মাটি কেটে ট্রাক্টর এবং ট্রলিতে করে বিভিন্ন এলাকায় নিয়ে যাচ্ছে।

এভাবে তারা অবৈধভাবে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিলেও কেউ তা দেখছে না। এদিকে প্রচুর ট্রাক্টর এবং ট্রলি সরু রাস্তার উপও দিয়ে চলাচলের কারণে ওই সব রাস্তাঘাটের মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে। বিভিন্ন স্থানে গর্তের সৃষ্টি হচ্ছে। ফলে ওই পথে চলাচলকারী লোকজনকে ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে।

এলাকাবাসী জানান, প্রভাবশালী ওই ব্যক্তিরা দীর্ঘদিন ধরে এভাবে বাঁধ ঘেঁষে নদী থেকে মাটি কেটে অন্যত্র নিয়ে গিয়ে বিক্রি করে দেদারছে ব্যবসা চালিয়ে আসছে। ফলে আসন্ন বর্ষা মৌসুমে শহর রক্ষা বাঁধ ভেঙে যাওয়ার আশংকা করা হচ্ছে। প্রভাবশালী ব্যক্তিদের ভয়ে এলাকাবাসীর কেউ কিছু বলার সাহস পাচ্ছে না। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ট্রাক্টর ড্রাইভার জানায়, প্রশাসনকে ম্যানেজ করেই এই মাটি কাটা হচ্ছে। এতে কারও কিছু বলার নেই।

এ ব্যাপারে খোলাহাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শেখ সামাদ আজাদ বলেন, তাদের এ ব্যাপারে নিষেধ করেছি। কিন্তু তারা কথা শুনছে না। কাজেই প্রশাসনকে বিষয়টি অবহিত করেন। অপরদিকে গাইবান্ধা সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) রওনক জাহানকে এ ব্যাপারে জানানো হলে তিনি জানান, এ ধররের অভিযোগ পেয়েছি। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×