চৌহালী-এনায়েতপুর নৌপথ বন্ধের উপক্রম

যমুনায় জেগে ওঠা চর খননের দাবি

  চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি ২৭ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নৌপথ

পানির প্রবাহ কমে যাওয়ায় যমুনার বুকে জেগে উঠেছে বিশাল চর। ফলে সিরাজগঞ্জের চৌহালীর সঙ্গে এনায়েতপুরের নৌ-যোগাযোগ প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এতে নৌকার মাঝিমাল্লা ও যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

এতে এ অঞ্চলের অর্ধলক্ষাধিক মানুষকে যমুনা সেতু অথবা পাবনার বেড়া উপজেলা ঘুরে গন্তব্যে পৌঁছাতে সময় ও অর্থের অপচয় হচ্ছে। এদিকে স্থানীয় নৌকার মালিকরা যাতায়াতের সুবিধার্থে নিজস্ব উদ্যোগে চর কেটে একটি অগভীর সরু চ্যানেল তৈরি করেছে। নৌকাগুলো প্রতিনিয়ত ঝুঁকি নিয়ে ওই পথে চলাচল করছে। এলাকাবাসী সরকারি উদ্যোগে চ্যানেলটি খননের দাবি জানিয়েছেন। জানা যায়, পানির প্রবাহ কমে যাওয়ায় প্রায় দেড় মাস আগে যমুনা নদীর মাঝ বরাবর বিশাল চর জেগে উঠে। ফলে যে কেনো সময় চৌহালীর সঙ্গে এনায়েতপুরের নৌপথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এনায়েতপুর ঘাটের নৌকার মাঝি মামুন সরকার ও স্বপন আলী জানান, নভেম্বর মাস থেকে যমুনা নদীতে পানি কমতে শুরু করেছে। এখন পানির গভীরতা সর্বনিু পর্যায়ে। ফলে নদীতে জেগে উঠেছে অসংখ্য ছোট-বড় চর, ডুবোচর। বিশেষ করে এ নৌপথের সদিয়া চাঁদপুর ইউনিয়নের খাষইজারাপাড়া থেকে রানজানপুর পর্যন্ত প্রায় আড়াই কিলোমিটার এলাকাব্যাপী বিশাল চর জেগে উঠেছে। চৌহালী উপজেলা সদর থেকে জেলা সদরে যাতায়াতের মাধ্যম এনায়েতপুর বেড়িবাঁধ ঘাটের নৌ-যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। এখন পণ্যবোঝাই বড় বড় নৌযানগুলোকে উত্তরে প্রায় ৩০ কিলোমিটার ঘুরে যমুনা সেতু অথবা দক্ষিণে প্রায় ২৮ কিলোমিটার ঘুরে পাবনার বেড়া উপজেলা হয়ে এনায়েতপুর যাতায়াত করতে হচ্ছে।

নৌকার যাত্রী রুহুল আমিন, সারওয়ার হোসেন ও সিরাজুল ইসলাম ও আলম মাস্টার বলেন, যমুনার বুকে বিশাল চর জেগে ওঠায় নৌযান স্বাভাবিকভাবে চলাচল করতে পারছে না। ফলে চরবাসীকে মাইলের পর মাইল হেঁটে যাতায়াত করতে হচ্ছে। সদিয়া চাঁদপুর ইউপি চেয়ারম্যান রাশেদুল ইসলাম সিরাজ জানান, এনায়েতপুর নৌকা ঘাট থেকে চৌহালী উপজেলা সদরে যেতে বর্ষা মৌসুমে সময় লাগত মাত্র এক ঘন্টা। আর এখন লাগে প্রায় তিন ঘন্টা।

এতে অতিরিক্ত সময় ও অর্থ খরচ হচ্ছে। এনায়েতপুর ঘাটের ইজারাদার ইউসুফ আলী বেপারি জানান, স্থানীয় ঘাট ও নৌকা মালিকরা ব্যক্তিগত উদ্যোগে বাংলা ড্রেজার দিয়ে প্রায় আড়াই কিলোমিটার চর খনন করে একটি অগভীর সরু চ্যানেল চালু করেছে। সরকারি উদ্যোগে চ্যানেলটি দ্রুত ড্রেজিং না করা হলে বন্ধ হয়ে যাবে এ অঞ্চলের মানুষের সহজ যোগাযোগের একমাত্র নৌপথটি। এ বিষয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য আবদুল মমিন মণ্ডল যুগান্তরকে বলেন, যমুনায় চর জেগে ওঠায় পণ্য ও যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে।

আপাতত সরু চ্যানেলটি খনন করে সচল রাখার জন্য ব্যক্তিগত তহবিল থেকে অর্থ সহায়তা দেয়া হয়েছে। তবে সরকারি ভাবে ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে নৌপথটি সচল রাখার উদ্যোগ নেয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×