গোয়ালন্দে কারচুপির অভিযোগ

ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর বিক্ষোভ মিছিল

  গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি ২৬ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সারা দেশের ১১৭টি উপজেলার ন্যায় রোববার রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এই নির্বাচনে ভোট গণনায় অনিয়ম ও অস্বাভাবিক ভোট পড়ার অভিযোগ এনে ফলাফল প্রত্যাখ্যান ও ভোট পুনঃগণনার দাবিতে বিক্ষোভ করেছে প্রতিদ্বন্দ্বী এক প্রার্থী। উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, ভাইস চেয়ারম্যান পদে আসাদুজ্জামান চৌধুরী টিয়াপাখি মার্কা নিয়ে ৮ হাজার ৩৯৩ ভোট পেয়ে ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আবদুর রহমান মণ্ডল টিউবওয়েল মার্কা নিয়ে ৮ হাজার ২৭৫ ভোট। মাত্র ১১৮ ভোটের ব্যবধানে তিনি পরাজিত হন। ফল প্রকাশের পর আবদুর রহমানের কয়েকশ’ সমর্থক নির্বাচন অফিসের সামনে বিক্ষোভ করে এ ফল বাতিলের দাবি জানায়। এ সময় আবদুর রহমান প্রকাশিত ফলাফল বাতিল ও পুনঃগণনার জন্য লিখিত আবেদন করেন। লিখিত আবেদনে তিনি দাবি করেন, উপজেলার চরবরাট শিশু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চর বালিয়াকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ কয়েকটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ শেষে গণনার সময় তার পোলিং এজেন্টদের ভয়ভীতি দেখিয়ে বের করে দিয়ে গণনা কার্যক্রম চালানো হয়। এদিকে একই দাবিতে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আবদুর রহমানের সমর্থকরা রোববার রাতে ফলাফল প্রকাশের পর শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও গভীর রাত পর্যন্ত উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপে তারা অবরোধ তুলে নেয়। এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুবায়েত হায়াত শিপলু জানান, ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আবদুর রহমানকে তার অভিযোগের ব্যাপারে প্রয়োজনে আদালতে যাওয়ার পরামর্শ দিয়ে কর্মীদের শান্ত করে এলাকা ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয়। এ সময় তিনি কর্মীদের নিয়ে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে সরে যান। এ নির্বাচনে ৮৬ হাজার ৭৫৩ জন ভোটারের মধ্যে ৩৯ হাজার ১৮ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। নির্বাচনে ভোট পড়েছে ৩৪ শতাংশ। আ. রহমান অভিযোগ করে বলেন, বিজয়ী আসাদ চৌধুরীর বাড়ির এলাকা ছোটভাকলা ইউনিয়নে অস্বাভাবিকভাবে ৭৫ শতাংশের বেশি ভোট পড়েছে। যা বিশ্বাসযোগ্য নয়। সেখানকার প্রতিটি কেন্দ্র হতে আমার পোলিং এজেন্টদের জোর করে বের করে দেয়া হয়। বিজয়ী আসাদ চৌধুরী অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার জš§ নানাবাড়ি ছোটভাকলায় এবং বাড়ি দেবগ্রাম ইউনিয়নে। দুটি ইউনিয়নের মানুষ নিজেরা আমাকে সর্বোচ্চ পরিমাণে ভোট দেয়া ছাড়াও বাড়ি বাড়ি থেকে অন্য ভোটারদের কেন্দে এনে ভোট দিতে উৎসাহিত করেছে। সে কারণে এখানে ভোট আদায়ের হার বেশি। যা অন্যান্য এলাকায় অন্য প্রার্থীরা করতে পারেননি।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×