ফরিদপুরে আশঙ্কাজনকহারে বাড়ছে সড়ক দুর্ঘটনা

২০ দিনে প্রাণ হারাল ২২ জন

  ফরিদপুর ব্যুরো ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ফরিদপুরে আশঙ্কাজনকহারে বাড়ছে সড়ক দুর্ঘটনা। সড়ক-মহাসড়কে চলাচলরত যানবাহনের বেপরোয়া গতিতে চলার কারণেই বেশিরভাগ দুর্ঘটনা ঘটছে। এছাড়া মহাসড়কে নসিমন-করিমন ও ভটভটির কারণেও দুর্ঘটনায় অকালে ঝরে পড়ছে তাজাপ্রাণ। এছাড়া মোটরসাইকেল চালক-আরোহীদের মৃত্যুর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। ২০ দিনে ফরিদপুরে কয়েকটি সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছে ২২ জন। এসব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে ৬৭ জন। কোনোভাবেই কমছে না মৃত্যুর মিছিল। সড়কে চলাচলরত গাড়িচালকরা বেপরোয়া গতিতে যানবাহন চালানো এবং উঠতি বয়সী তরুণরা দ্রুতগতিতে মোটরসাইকেল চালনার কারণেই প্রতিদিনই মৃত্যুর মিছিলে যোগ হচ্ছে নতুন নতুন নাম। চালকদের দক্ষতা বাড়ানো এবং আইনের কঠোর প্রয়োগ হলে সড়ক দুর্ঘটনা কমবে বলে মনে করে সচেতনমহল।

জানা যায়, মঙ্গল ও বুধবার এ দু’দিনে ফরিদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছে ১২ জন। আর এ দু’দিনে আহত হয়েছে কমপক্ষে ৪০ জন। ৬ ফেব্র“য়ারি ফরিদপুরের ভাঙ্গায় চান মিয়া, মিলন মোল্যা, রিংকু ভূঁইয়া নামের তিনজন এবং একই দিন সদর উপজেলার ধুলদি রেলগেটের কাছে ভারতীয় নাগরিক সুশান্ত মল্লিক, মাছুদ রানা ও অজ্ঞাত মিলে তিনজন নিহত হয়। একই দিনে ছয়জনের মৃত্যুর রেশ কাটতে না কাটতেই বুধবার ফরিদপুরের ভাঙ্গায় মারা যায় আবুল শেখ, মিজানুর শেখ, খালেদা বেগম, রোকেয়া বেগম, অজ্ঞাত মিলে পাঁচজন। এছাড়া একই দিনে এসএসসি পরীক্ষার্থী শহিদুল ইসলাম মারা যায়। ১৮ জানুয়ারি করিমপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয় রাসেল তালুকদার ও রিমন মণ্ডল নামের দু’জন। ১৯ জানুয়ারি মধুখালী উপজেলার বোয়ালিয়া নামক স্থানে নিহত হয় রাজা মিয়া। এ সময় ১৯ বাসযাত্রী আহত হয়। ২১ জানুয়ারি ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের ফরিদপুর অংশের মধুখালী উপজেলার বোয়ালিয়া নামক স্থানে মাইক্রোবাস খাদে পড়ে নিহত হয় রায়হান শেখ নামের একজন। এ সময় আহত হয় মাইক্রোবাসের সাত যাত্রী। ২৪ জানুয়ারি ভাঙ্গা উপজেলার নওপাড়া বেইলি ব্রিজের কাছে সড়ক দুর্ঘটনায় এসএসসি পরীক্ষার্থী মাহিন খন্দকার ও একই এলাকার নাঈম মারা যায়। ২৮ জানুয়ারি ভাঙ্গা উপজেলার আজিমনগর ইউনিয়নের তারাইল নামক স্থানে ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের খাদে পড়ে জাকির হোসেন নিহত হয়। ২৮ জানুয়ারি ফরিদপুর সদর উপজেলার কানাইপুর ইউনিয়নের কোষা গোপালপুর উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক মির্জা জাহাঙ্গীর হোসেন বিদ্যালয়ের পাশে ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে প্রাণ হারান। ৩ ফেব্র“য়ারি ফরিদপুর শহরের সিএন্ডবি ঘাট এলাকায় দ্রুতগামী ট্রাকের চাপায় রিক্তা আক্তার নামের এক নারী এনজিওকর্মী নিহত হন।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.