নিয়ামতপুর-গোপালপুর-মান্দা সড়ক খানাখন্দে ভরা

  নিয়ামতপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নওগাঁর নিয়ামতপুর-মান্দা সড়কের গোপালপুর বাজার থেকে মান্দা উপজেলার থানা মোড় পর্যন্ত সড়কটি সংস্কারের অভাবে যানচলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। সড়কটির পুরো অংশজুড়ে অসংখ্য খানাখন্দে ভরা। পথচারীদের হাঁটাও প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে। এলাকাবাসী ও স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, মান্দা উপজেলার থানা মোড় থেকে উপজেলার পরানপুর ইউনিয়নের গোপালপুর বাজার হয়ে সড়কটি নিয়ামতপুর উপজেলা সদরে মিলেছে। মান্দা উপজেলা সদর থেকে নিয়ামতপুর উপজেলা সদর পর্যন্ত পাকা সড়কটির দৈর্ঘ্য ১৬ কিলোমিটার। এরমধ্যে মান্দা থানা মোড় থেকে উপজেলার গোপালপুর বাজার পর্যন্ত সড়কটির মান্দা অংশের প্রায় ৭ কিলোমিটার রাস্তা কার্পেটিং করা হয় ২০০৫ সালে। এরপর আর রাস্তাটি সংস্কার করা হয়নি। সংস্কারের অভাবে খানাখন্দে ভরা এ রাস্তা দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে নসিমন, ভটভটি, অটোবাইক ও ভ্যান চলাচল করছে। দুর্ঘটনাও ঘটছে মাঝেমধ্যে। উপজেলার পরানপুর আলিম মাদ্রাসার শিক্ষক কামরুল ইসলাম বলেন, ‘রাস্তাটি সংস্কার না হওয়ায় এলাকাবাসীর চলাচলে করতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বিশেষ করে এলাকার হাট-বাজারগুলোতে কৃষিপণ্য আনা-নেয়া করতে মানুষ দুর্ভোগে পড়ছেন বেশি। এ রাস্তা দিয়ে হাঁটাও প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে। বর্ষায় কাদা মাড়াতে হয়, আর শুকনো মৌসুমে ধুলায় একাকার। ‘হামরা মন্ত্রীর (বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী ইমাজউদ্দিন প্রামাণিক) এলাকার লোক, তাও হামাগের দুর্গতির সীমা নাই। এ রাস্তা দিয়ে অটো চালাতে গিয়ে গা-হাত-পা ব্যথা হয়ে যায়। অটোর কল-কব্জা খুলে পড়ে। প্যাসেনঞ্জারদেরও খুব কষ্ট হয়। এ রাস্তা কবে ঠিক হবে আল্লাহই জানে’, ক্ষোভের সুরে কথাগুলো বলেন উপজেলার বান্দাইপুর গ্রামের অটোরিকশা চালক ছয়ফুল ইসলাম। রোববার সরেজমিন দেখা যায়, সড়কটির মান্দা অংশে গোপালপুর বাজার থেকে মান্দা থানা মোড় পর্যন্ত রাস্তার কার্পেটিং উঠে গিয়ে অসংখ্য স্থানে খানাখন্দে সৃষ্টি হয়েছে। কোথাও কোথাও ইট পর্যন্ত উঠে দিয়ে গভীর গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। রাস্তার বেহাল দশার কারণে সড়ক দিয়ে চলাচলকারী যানবাহনগুলো ঝুঁকি নিয়ে হেলেদুলে চলছে। মান্দা উপজেলা স্থানীয় সরকার বিভাগের প্রকৌশলী মোরশেদুল হাসান বলেন, ‘মান্দা-নিয়ামতপুর সড়কটির নিয়ামতপুর অংশ ইতিমধ্যে সংস্কার ও প্রশস্তকরণ কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। সড়কটির নিয়ামতপুর অংশের মতো করে ১৮ ফুট প্রশস্ত করার জন্য একটি প্রকল্প প্রস্তাব ইতিমধ্যে মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। আশা করছি, আগামী অর্থবছরে সড়কটির সংস্কারসহ প্রশস্তকরণ কাজ সম্পন্ন করা যাবে।’

 

 

আরও পড়ুন

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.