বেপরোয়া কিশোর অপরাধী চক্র

কুমিল্লায় চরম আতঙ্কে নগরবাসী

  কুমিল্লা ব্যুরো ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লায় বেপরোয়া কিশোর অপরাধী চক্রের ভয়াবহ কর্মকাণ্ডে সাধারণ নগরবাসীর মধ্যে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। নগরীর নামিদামি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়ুয়া এবং বখাটে শ্রেণীর এসব কিশোর অপরাধী চক্র এখন খুন, চাঁদাবাজি, যৌন হয়রানিসহ নানা ভয়ংকর অপরাধে জড়িয়ে পড়েছে। র‌্যাক্স, ঈগল, আরজিএস, এক্স, সিএমএইচএস, সাউথ, মাসলম্যান নামে গড়ে উঠেছে বেশকিছু কিশোর গ্যাং চক্র। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সিনিয়র নেতাদের শেল্টারে এসব কিশোর অপরাধী নগরীতে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। বড় ভাইদের জুনিয়র গ্রুপ খ্যাত এসব গ্যাং নগরবাসীর গলার কাঁটায় পরিণত হয়েছে। ইতিপূর্বে বেশ কয়েকজন নিরীহ শিক্ষার্থীকে এসব অপরাধী চক্রের হাতে প্রাণ দিতে হয়েছে। ছোটখাটো বিষয় নিয়ে এসব অপরাধী খুন-খারাবির মতো ঘটনা ঘটাচ্ছে। এ দিকে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি নগরীর মডার্ন স্কুলের এক ছাত্রকে এ গ্যাংদের হাতে প্রাণ দিতে হয়েছে। সর্বশেষ গত কয়েকদিনে এ চক্রের হাতে জিলা স্কুলের এক ছাত্র এবং কালেক্টরেট স্কুলের দুই ছাত্র ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হয়েছে। অপরদিকে প্রায়ই কিশোর গ্যাংগুলোর সদস্যরা একে অপরের হাতেই আক্রমণের শিকার হচ্ছে।

অনুসন্ধানে জানা যায়, কুমিল্লা নগরীর বিভিন্ন স্কুলপড়–য়া এক শ্রেণীর বখাটে শিক্ষার্থীরা এখন বিভিন্ন সাংকেতিক নামে গ্রুপ গঠন করে অপরাধ কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে। রাজনৈতিক বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য বিভিন্ন দলের সিনিয়র নেতারা এসব গ্যাংকে শেল্টার দিয়ে আসছে। আর এ সুযোগে এ অপরাধী চক্র নগরীতে ইয়াবা, গাঁজা, মাদক সেবন, খুন-চাঁদাবাজি-ছিনতাই-ইভটিজিংসহ নানা অপরাধ কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে। বিভিন্ন সময় এসব অপরাধী পুলিশের হাতে ধরা পড়লেও বড় ভাইদের সহযোগিতায় ছাড়া পেয়ে যাচ্ছে। এতে এসব অপরাধী চক্রের সদস্যরা আরও বেপরোয়া হয়ে যাচ্ছে। সর্বশেষ গত ২১ এপ্রিল শবেবরাতের রাতে একটি গ্যাং চক্রের হাতে ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছে নগরীর মডার্ন স্কুলের ছাত্র মোমতাহিন হাসান মিরন। এর আগে ১৬ এপ্রিল কুমিল্লা জিলা স্কুলের ছাত্র মারুফ ও কালেক্টরেট স্কুলের ছাত্র তৌকি গ্যাং চক্রের হাতে ছুরিকাঘাতে আহত হয়। সর্বশেষ বুধবার এ চক্রের হাতে কালেক্টরেট স্কুলের ছাত্র দীপ্ত দাশ ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হন। বিশেষ করে নগরীর নিরীহ পরিবারের শিক্ষার্থীরা এসব গ্যাং গ্রুপ দ্বারা অহরহ আক্রমণের শিকার হচ্ছে। গায়ে পড়ে ঝগড়া লাগিয়ে নিরীহ শিক্ষার্থীদেরকে প্রায় সময় জিম্মি করে তাদের অভিভাবকদের কাছ থেকে মুক্তিপণ আদায় করছে। এদের স্কুল ব্যাগেই থাকে ছুরি, চাপাতি, খুরসহ ছোট ধারালো অস্ত্র। নগরীর নজরুল এভিনিউতে এসব গ্যাংয়ের অভয়ারণ্য। কান্দিরপাড়, পুলিশ লাইন রোড, লাকসাম রোড, নিউমার্কেট এলাকায়ও চলে তাদের আড্ডাবাজি। এ ছাড়াও গ্যাং সদস্যদের অবস্থান থাকে নগরীর সাইবার গেইমের দোকানগুলোতে। এ বিষয়ে কোতয়ালী মডেল থানার ওসি আবু ছালাম মিয়া জানান, নগরীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এসব কিশোর অপরাধী সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে, আমরা এসব অপরাধীকে আইনের আওতায় আনার জন্য নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে নজরদারি বৃদ্ধি করেছি, এ ছাড়া সদ্য ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলোর সঙ্গে জড়িতদেরকে গ্রেফতারে আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে। কুমিল্লার জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীর জানান, আমরা ইতিমধ্যেই স্কুলগুলোতে কাজ শুরু করেছি। স্কুল চলাকালীন সময়ে কোনো শিক্ষার্থী যাতে স্কুলের বাইরে থাকতে না পারে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। তিনি জানান, নগরীর বিভিন্ন দোকানে ছুরি অথবা মারামারিতে ব্যবহৃত সরঞ্জাম বিক্রি নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×