কুলাউড়ায় ঈদের আনন্দ নেই মনুপাড়ের জনপদে

ফের বন্যার আশঙ্কায় উদ্বেগ

  কুলাউড়া প্রতিনিধি ০৩ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

গত বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালে রমজান মাসে ঠিক ঈদের আগেই সীমান্তের ওপার থেকে আসা ঢলে লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় মনুপাড়ের জনপদ। মনু নদীর ২০টি ঝুঁকিপূর্ণ স্থান চলতি বছর ঈদের আগে ফের বন্যার আশঙ্কায় মানুষের মাঝে উদ্বেগ উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে।

মৌলভীবাজার জেলায় ২০১৮ সালে মনুনদীর প্রতিরক্ষা বাঁধে ২৮টি স্পটে ভাঙন দেখা দেয়। বিশেষ করে কুলাউড়া উপজেলার গ্রামীণ জনপদ লণ্ডভণ্ড হয়ে যায়। ক্ষতির দিক থেকে কুলাউড়ার পরে রাজনগর ও মৌলভীবাজার সদর উপজেলা। বন্যার পানি কমার সাথে সাথে পানি উন্নয়ন বোর্ড ভাঙন মেরামতে হিমশিম খায়। চলতি বছর অর্থাৎ ২০১৯ সালে পাউবো মনু নদীর ২০টি স্থানকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করে। আগাম প্রস্তুতি হিসেবে এসব ঝুঁকিপূর্ণ স্থান মেরামতের মাধ্যমে বন্যা মোকাবেলার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

মনুনদীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ঝুঁকিপূর্ণ স্থানসমূহের মেরামত কাজ করা হবে। সেগুলো হল- রাজনগর উপজেলার টেংরা ইউনিয়নের কোনাগাঁও (খেয়াঘাট), আদিনাবাদ, উজিরপুর, কান্দিরকুল। মনসুরনগর ইউনিয়নের প্রেমনগর, কামারচাক ইউনিয়নের কালাইকোনা, চাটিকোনাগাঁও, চাটিকোনাগাও কোনাগাও, টুপির মহল। কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়নের মিয়ারপাড়া, সান্দ্রাবাজ, হাজীপুর ইউনিয়নের হাজীপুর, চানপুর, হাজীপুর মন্দিরা, চকরনচাপ। পৃথিমপাশা ইউনিয়নের ছৈদলবাজার, আলীনগর, ধলিয়া, কলিরকোনা। শরীফপুর ইউনিয়নের লালারচক। মৌলভীবাজার সদর উপজেলার আখাইলকুড়া ইউনিয়নের ঢেউপাশা, মমরুজপুর ও মিরপুর।

সরেজমিন কুলাউড়া উপজেলার হাজিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদুল বাছিত বাচ্চু, টিলাগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদুল মালিক ও পৃথিমপাশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নবাব আলী বাখর খান জানান, মুননদীর পানি বিপদসীমার কাছাকাছি প্রবাহিত হচ্ছে।

এ ব্যাপারে মৌলভীবাজারের পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রনেন্দ্র চক্রবর্তী জানান, ঈদের মৌসুমে একটা ভারি বর্ষণের পূর্বাভাস রয়েছে। তবে এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×