কাউনিয়ায় শিক্ষা কর্মকর্তার গাফিলতি

১৭ দফতরির ঈদ আনন্দ ম্লান হতে চলেছে

প্রকাশ : ০৩ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি

কাউনিয়া উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা স্বপন কুমার অধিকারীর গাফিলতির কারণে ১৭ জন দফতরি কাম-প্রহরীর ঈদ আনন্দ ম্লান হতে চলেছে। লিখিত অভিযোগে জানা গেছে, কাউনিয়া উপজেলার ১৭টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১৭ জন দফতরি কাম-প্রহরীর বেতন ভাতা প্রদান না করেই তিনি চলে যান ঢাকায়। বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে ঘোষিত ২৮ মে তারিখের মধ্যে সব সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন বিল পরিশোধ করার প্রজ্ঞাপন জারি হলেও কাউনিয়া শিক্ষা অফিসার তা মানেননি। তিনি অসহায় দফতরি কাম-প্রহরীদের ঈদ আনন্দের কথা না ভেবে তাদের বেতন বিল প্রদান না করে চলে যাওয়ায় তাদের ঈদ আনন্দ ম্লান হতে চলেছে। দফতরি ফেরদৌস আহম্মেদ জানান, নীতিতে অটল বলে চালিয়ে দেয়া শিক্ষা কর্মকর্তা কাউনিয়ায় আসার পর থেকেই যেন শিক্ষা অফিসে কোনো না কোনো ঝামেলা হচ্ছেই। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কোনো এক বিশেষ কাজে শিক্ষা কর্মকর্তা ঢাকায় চলে যান এবং আসেন ৩০ মে। আর সেই সময় ট্রেজারি অফিস ঈদের আগে শেষ কার্য দিবস। দফতরি কাম-প্রহরী বেলাল জানান, ঈদের এই সময়ে দফতরিরা কি চোখের পানিতে পরিবার পরিজন নিয়ে ঈদ করবে? প্রতিটি পরিবার তাকিয়ে থাকে পরিবারের উপার্জনক্ষম ব্যক্তির দিকে। এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা স্বপন কুমার অধিকারীর সঙ্গে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি ঢাকা থেকে এসে বিলে স্বাক্ষর করে দিয়েছি। দফতরি কাম-প্রহরীরা জানান, তিনি অফিস সময়ের শেষ দিকে বিলে স্বাক্ষর করেছেন; ততক্ষণে ট্রেজারি কর্মকর্তা চলে গেছেন। শিক্ষা কর্মকর্তা আমাদের ঈদ আনন্দের কথা একবারও ভাবেননি। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. উলফৎ আরা বেগম জানান, আমি শিক্ষা কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।