সীতাকুণ্ডে মহাসড়কের পাশে আবর্জনার ভাগাড়

  সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি ০৪ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সীতাকুণ্ডের পৌর সদরের শেখপাড়া এলাকার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশের জায়গাকে ময়লা-আবর্জনার ভাগাড়ে (ডাস্টবিন) রূপান্তরিত করেছেন অসাধু ব্যবসায়ী ও বাজার কর্তৃপক্ষ। মহাসড়কের পাশ ঘেঁষে গড়ে ওঠা এসব ময়লা-আবর্জনার স্তূপের কারণে পথ চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হচ্ছে। আবর্জনার পচা দুর্গন্ধে পরিবেশ দূষণের পাশাপাশি প্রতিনিয়ত মহাসড়কের এ স্থান দিয়ে চলাচলে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে বাসযাত্রী, স্কুল, কলেজের শিক্ষার্থী এবং পথচারীদের। এতে বাতাসে নানা ধরনের রোগজীবাণু ছড়িয়ে পড়ায় রোগাক্রান্ত হচ্ছেন স্থানীয়রা। জানা যায়, পৌর সদরের শেখপাড়া এলাকার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশের খোলা জায়গায় পৌর বাজারের ময়লা আবর্জনা ফেলতে শুরু করেন। পৌরসভা কর্তৃপক্ষের অবহেলায় ধীরে ধীরে তা ময়লার ভাগাড়ে পরিণত হয়। এতে পথ চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হওয়ায় মহাসড়কের এ স্থানে প্রায়ই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। এছাড়া খোলা জায়গায় স্তূপ করা এসব ময়লা আবর্জনা উৎকট গন্ধে একদিকে যেমন পরিবেশ দূষিত হচ্ছে, তেমনি চলাচলে চরম ভোগান্তিতে পড়ছেন পথচারীরা। স্থানীয় শেখপাড়া এলাকার বাসিন্দা সাহাব উদ্দিন জানান, মহাসড়কের পাশে স্তূপ করা এসব ময়লা আবর্জনার উৎকট গন্ধ আশপাশের এক কিলোমিটার এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে। এতে এলাকার লোকজনের পাশাপাশি বাসযাত্রী ও পথচারীকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। ময়লার দুর্গন্ধে চলাচলে রুমালে নাক চেপে হাঁটাও দায় হয়ে পড়েছে। বিষয়টির সমাধানে স্থানীয় পৌর মেয়র ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে বেশ কয়েকবার লিখিত অভিযোগ দেয়া হলেও কোনো সুরাহা হয়নি। এলাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ী শওকত আলম বলেন, জনগুরুত্বপূর্ণ মহাসড়কের এ স্থানে ময়লা, আবর্জনার ভাগাড়ের কারণে প্রতিনিয়ত আমাদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এ স্থান দিয়ে ময়লার পচা গন্ধে বমি চলে আসে। বাতাসে ভেসে আসা ময়লার দুর্গন্ধে প্রতিনিয়ত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে স্থানীয় লোকজন। স্থানীয় জনপ্রতিনিধির নীরবতায় মহাসড়কের এ স্থানে বাজারের ময়লা, আবর্জনা ফেলে পরিবেশ দূষিত করছে। মহাসড়কের পাশের এ ময়লার ভাগাড় সরাতে ও জনসচেতনতা সৃষ্টিতে আমি বেশ কয়েকবার চেষ্টা করলেও সুফল মেলেনি। সীতাকুণ্ড পৌর মেয়র মুক্তিযোদ্ধা বদিউল আলম বলেন, মহাসড়কের পাশের ময়লা, আবর্জনা ভাগাড়টি সরানোর জন্য করণীয় পদক্ষেপ গ্রহণে স্থানীয় কাউন্সিলরের সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে। বিষয়টির সমাধান খুব সহসাই করা হবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×