বড়লেখায় স্বামীর দেয়া আগুনে দগ্ধ স্ত্রী

চিকিৎসার উদ্যোগ নিলেন ওসি

  বড়লেখা প্রতিনিধি ১৩ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বড়লেখায় স্বামীর দেয়া আগুনে শরীরের প্রায় ৬০ ভাগ অগ্নিদগ্ধ হতদরিদ্র স্ত্রীর উন্নত চিকিৎসার উদ্যোগ নিয়েছেন থানার ওসি মো. ইয়াছিনুল হক। আছমিনা বেগমের (২৫) স্বামীর সঙ্গে তিন বছরের সংসার জীবন। তাদের এক ছেলেসন্তান রয়েছে। তিন বছরের এই সংসার জীবনে একবারও সুখের মুখ দেখা হয়নি আছমিনার। তিন বছর আগে দরিদ্র বাবার সংসার ছেড়ে স্বামীর ঘরে যাওয়ার সময় আছমিনার দু’চোখ জুড়ে ছিল সুখের স্বপ্ন। কিন্তু আছমিনার সেই স্বপ্ন স্বপ্নই রয়ে গেল। তিন বছরের সংসারে স্বামী সাহেদ আহমদের কাছ থেকে ভালোবাসার বদলে পেয়েছেন নির্যাতন। সর্বশেষ স্বর্ণালংকার না পেয়ে পাষণ্ড স্বামী নির্মমভাবে তার শরীর আগুনে ঝলসে দিয়েছে। ৪ জুন ভোররাতে মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার সদর ইউনিয়নের মুছেগুল গ্রামে নির্মম এ ঘটনাটি ঘটেছে। নির্যাতনের শিকার ওই নারী একই ইউনিয়নের জফরপুর গ্রামের ছমির উদ্দিনের মেয়ে। অভিযুক্ত স্বামী সাহেদ আহমদ মুছেগুল গ্রামের আনু মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় ১১ জুন ওই নারীর বাবা বাদী হয়ে বড়লেখা থানায় মামলা করেছেন। এদিকে আগুনে ঝলসে আছমিনার শরীরের অন্তত ৬০ ভাগ পুড়ে গেছে। ৫ দিন চিকিৎসা দিয়ে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ছাড়পত্র দিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছে মুমূর্ষু এই রোগীকে। এই পোড়া শরীর নিয়ে ৯ দিন ধরে অসহ্য যন্ত্রণায় মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন। দরিদ্র বাবার পক্ষে আছমিনার চিকিৎসা করানোও অসম্ভব হয়ে পড়েছে। তার উন্নত চিকিৎসা দরকার। এ অবস্থায় বুধবার হতদরিদ্র পরিবারের মেয়ে আছমিনাকে ঢাকায় ভালো চিকিৎসা করানোর উদ্যোগ নিয়েছেন বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×