বদলে গেছে পর্যটন স্পট নীলাচল

  আলাউদ্দিন শাহরিয়ার, বান্দরবান ১৬ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের সঙ্গে শৈল্পিক ছোঁয়ায় বদলে গেছে পর্যটন স্পট নীলাচল। সবুজ পাহাড়ের চূড়ায় গড়ে তোলা দৃষ্টিনন্দন শৈল্পিক অবকাঠামোগুলো চিরচেনা নীলাচলের সৌন্দর্যে এনেছে ভিন্নতা। ভ্রমণকারীদের মনে হতে পারে এ যেন অন্যরকম নীলাচল। বর্ষায় নীলাচল স্পটে মিলবে মেঘের হাতছানি। কখন মেঘ এসে আপনাকে ভিজিয়ে দিয়ে যাবে বোঝার উপায় নেই। বৈচিত্র্যময় বান্দরবানের অন্যতম পর্যটন স্পট ‘নীলাচল’র সৌন্দর্যবর্ধনে ভাস্কর্য, পর্যবেক্ষণ টাওয়ার, কটেজ, গোলঘর, অবকাঠামো তৈরিসহ নানা কারুকাজ চলমান রয়েছে। জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত নীলাচল ট্যুরিস্ট স্পটটি দেশি-বিদেশি পর্যটকদের কাছে আরও বেশি আকর্ষণীয় করে তুলতে এই উদ্যোগ নেয়ার কথা জানিয়েছে প্রশাসন। আকর্ষণীয় স্পটটি দূর থেকে দেখে মনে হয় যেন নীলাচল হাতছানী দিয়ে ডাকছে পর্যটকদের। জানা গেছে, প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত নীলাচল পর্যটন স্পটের সৌন্দর্যবর্ধনে ইতিমধ্যে কয়েক কোটি টাকা ব্যয়ে বিভিন্ন ধরনের অবকাঠামো নির্মাণসহ নানা উন্নয়ন কাজ করা হয়েছে। পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড, পৌরসভা এবং নীলাচলের নিজস্ব আয়ের অর্থে সৌন্দর্যবর্ধনের কাজগুলো সম্পন্ন করা হয়েছে। স্থানীয় সরকার বিভাগের (এলজিইডি) অর্থায়নে নীলাচল সড়কটি সংস্কার এবং প্রশস্তকরণ করা হয়েছে। নীলাচল হয়ে চিম্বুক সড়কে যাওয়ার পরিত্যক্ত সড়কটি পুননির্মাণের কাজ চলমান রয়েছে। জেলা প্রশাসনের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) মো. কামরুজ্জামান বলেন, বর্ষায় নীলাচলের সৌন্দর্য আরও বেশি ফুটে উঠে। পর্যটকদের আকর্ষণ বাড়াতে নীলাচল ট্যুরিস্ট স্পটের আয় থেকে নতুনভাবে সৌন্দর্যবর্ধন-পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা এবং সংস্কার কাজ করা হচ্ছে। ঝাড়-জঙ্গলগুলো পরিষ্কার এবং রঙের কাজ করা হচ্ছে। বান্দরবান ভ্রমণ পর্যটকদের জন্য সম্পূর্ণ নিরাপদ। কোনো ধরনের ঝুঁকি নেই এখানে। বর্ষায় মেঘ ছুঁয়ে যায় নীলাচল ট্যুরিস্ট স্পট। এদিকে নীলাচলের সৌন্দর্যবর্ধনের চলমান উন্নয়ন কাজের প্রশংসা করেছেন বেড়াতে আসা পর্যটকরাও। ট্যুরিস্ট দম্পতি শায়লা শারমিন ও রোমেন ইমতিয়াজ বলেন, নীলাচল ট্যুরিস্ট স্পটে কয়েক বছর আগেও একবার এসেছিলাম। পাহাড়ের চূড়ায় গড়ে তোলা নীলাচলের সৌন্দর্য অন্যরকম সুন্দর। অন্য স্পটগুলোর সঙ্গে মেলানো কঠিন। স্পটটি সকালে একরকম, বিকাল বেলায় আরেকরকম। রাতের সৌন্দর্যের কথা ভাষায় বোঝানো সম্ভব নয়। প্রশাসনকে ধন্যবাদ রাতের সৌন্দর্য উপভোগের জন্য রাত আটটা পর্যন্ত নীলাচল ভ্রমণ উন্মোক্ত করার জন্য। শৈল্পিক ছোঁয়ায় অবকাঠামোগত উন্নয়নে আগের চেয়ে অনেকটায় বদলে গেছে নীলাচল ট্যুরিস্ট স্পটটি। তবে সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ করতে গিয়ে সবুজ নীলাচল যেন ইট-পাথরের জঞ্জালে পরিণত না হয়।

এদিকে পর্যটন স্পট নীলাচলে রয়েছে প্রকৃতির অপার সমাহার। ট্যুরিস্ট স্পটটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় সহস্রাধিক ফুট পাহাড়ের উচ্চতায়। জেলা শহর থেকে নীলাচলের দূরত্ব ৪ কিলোমিটার। বান্দরবান-কেরানীহাট-চট্টগ্রাম সড়কের যৌথখামারপাড়া মুখ থেকে গাড়ি এবং হেঁটেও সহজে নীলাচল স্পটে যাওয়া যায়। পর্যটকের সুবিধার্থে নীলাচলে তৈরি করা হয়েছে পর্যবেক্ষণ টাওয়ার, পাহাড়ের কিনারা ঘেঁষে রেলিং ঘেরা সুদৃশ্য চত্বর, লাভ পয়েন্ট, ওয়াকওয়ে, শিশুদের বিনোদনের জন্য তৈরি বিভিন্ন ক্রীড়াসামগ্রী এবং পর্যটকদের বিশ্রামের জন্য বসার সিট, ছবি তোলার জন্য বিভিন্ন পয়েন্ট, গোলঘর ও দৃষ্টিনন্দন সিঁড়ি।

এগুলোও সৌন্দর্যবর্ধনের ছোঁয়ায় পুরোপুরি পাল্টে গেছে। কটেজ তৈরির কাজও চলছে জোরেশোরে। ইতিমধ্যে পর্যটন স্পটের ভিন্ন চেহারা দেখে মুগ্ধ হচ্ছেন পর্যটকরা।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×