নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মাছ শিকার

বরিশাল মোকামে হাজার হাজার মণ ইলিশ

  বরিশাল ব্যুরো ১৯ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বঙ্গোপসাগরে চলছে রূপালী ইলিশ শিকার। বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরার ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞা মানছেন না জেলেরা। তাই তারা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সাগরে মাছ ধরছেন। কিন্তু ওই মাছ উপকূলীয় এলাকায় বিক্রি করতে সমস্যা হওয়ায় ট্রলারবোঝাই করে হাজার হাজার মণ ইলিশ নিয়ে আসা হচ্ছে বরিশাল ইলিশ মোকামে।

বিভাগীয় মৎস্য কার্যালয় সূত্র জানায়, দুই মাস মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীর ১৯০ কিলোমিটার অভয়াশ্রমে ইলিশ মাছ শিকার নিষিদ্ধ ছিল। ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য সরকার ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত ৬৫ দিন সাগরে ইলিশ শিকার নিষিদ্ধ করে। এ নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার হুশিয়ারি দেয়া হয়েছে। সাগরে ইলিশ শিকার বন্ধ থাকায় গত প্রায় এক মাস ধরে প্রতিদিন গড়ে অভ্যন্তরীণ নদী থেকে আহরিত একশ’ থেকে দেড়শ’ মণ ইলিশ আসছিল বরিশাল মোকামে। কিন্তু রোববার হঠাৎ করে সাগরে মাছ ধরা ২২টি ট্রলার আসে পোর্ট রোড মোকামে। প্রতিটি ট্রলারই ছিল ইলিশবোঝাই। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আড়তদাররা জানান, সাগরে মাছ শিকারে নিষেধাজ্ঞা থাকায় পটুয়াখালীর মহিপুর ও হাজীপুর, বরগুনার পাথরঘাটা এবং ভোলার ইলিশ মোকামে প্রশাসনের কঠোর তদারকি রয়েছে। এ কারণে ইলিশ বোঝাই ট্রলারগুলো নির্বিঘেœ চলে আসছে বরিশাল মোকামে। প্রশাসনিক তদারকি না থাকায় রোববার ২২টি এবং সোমবারও বরিশাল মোকামে এসেছে ৩টি সামুদ্রিক ট্রলার। সোমবার বরিশাল ইলিশ মোকামে গিয়ে দেখা গেছে, সাগর থেকে আসা ট্রলার থেকে ইলিশ মাছ নামানো হচ্ছে। শ্রমিকরা ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন ইলিশ মাছ নামানো ও পরিমাপের কাজে। এ বোটগুলো সব সাগর থেকে এসেছে বলে জানান জেলে ও স্থানীয়রা। রোববার ওই সব ট্রলার থেকে প্রায় দেড় হাজার মণ এবং সোমবারও প্রায় ৪শ’ মণ ইলিশ এসেছে বরিশাল মোকামে। বরিশাল জেলা মৎস্য শ্রমিক ইউনিয়নের এক নেতা জানান, একবার জাটকা রক্ষার নামে মাছ ধরা বন্ধ করা হয়। একবার মা ইলিশ রক্ষার নামে মাছ ধরা বন্ধ করা হয়। এরপর আবার দুই মাস সাগরে ইলিশ ধরা বন্ধের ঘোষণায় জেলেরা হতাশ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×