গোবিন্দগঞ্জে দাদন ব্যবসায়ীর কবলে সাধারণ মানুষ

পাওনা পরিশোধের পরেও পালিয়ে বেড়াচ্ছেন গ্রহীতারা

  গাইবান্ধা প্রতিনিধি ২৫ জুন ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দাদন ব্যবসায়ী

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় সংঘবদ্ধ দাদন ব্যবসায়ী চক্রের খপ্পরে পড়ে টাকা পরিশোধের পরেও দাদন গ্রহীতারা নানা হয়রানি ও আর্থিকভাবে সর্বস্বান্ত হচ্ছেন।

দাদন ব্যবসায়ীদের এই অবৈধ কারবার বন্ধ ও তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণে জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও র‌্যাব কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানিয়েছেন এলাকার মানুষ।

সোমবার গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে দাদন ব্যবসায়ীদের হাতে নির্যাতিত ও আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত ভুক্তভোগীদের পক্ষে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার গোবিন্দনগর গ্রামের শিক্ষক সফির উদ্দিন ও তার সহযোগী শিক্ষক মো. সাহারুল ইসলাম ও ছায়ফুল ইসলাম এ দাবি জানিয়েছেন। লিখিত বক্তব্যে তারা উল্লেখ করেন- চক গোবিন্দ চাষকপাড়া গ্রামের মো. আবদুল হান্নান সরদার, গোবিন্দগঞ্জ মহিলা দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক আসাদুজ্জামান, উপজেলা সদরের উত্তর বাসস্ট্যান্ড এলাকার পলাশ স্টিল ফার্নিচারের মালিক প্রদীপ কুমার দেব, সোনাতলা শাখাইল গ্রামের শাহীন মিয়াসহ অর্ধশত দাদন ব্যবসায়ী দীর্ঘদিন ধরে অধিক সুদে এবং চক্রবৃদ্ধি হারে সুদ নিয়ে দাপটের সঙ্গে দাদন ব্যবসা চালিয়ে এতদাঞ্চলে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে।

সংবাদ সম্মেলনের আয়োজক উপজেলার উত্তর ছয়ঘড়িয়া গ্রামের সফির উদ্দিন, বালুয়া গ্রামের সাহারুল ইসলাম, প্রধানপাড়া গ্রামের ছায়ফুল ইসলামসহ অন্যরা অত্যাধিক প্রয়োজনে নিরুপায় হয়ে দাদন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে দাদনের টাকা গ্রহণ করেন এবং নিয়মিত সুদ ও দণ্ডসুদ প্রদান করার পরও গত ২৫ মে গৃহীত সমুদয় টাকা পরিশোধ করেন।

কিন্তু তা সত্ত্বেও তাদের কাছ থেকে নেয়া চুক্তিপত্র ফেরত চাইলে দাদন ব্যবসায়ীরা তা ফেরত দিচ্ছে না। উপরন্তু দাদনের ওই চুক্তিপত্র ও তাদের দেয়া স্বাক্ষরিত চেকের পাতা জিম্মি করে রেখে সংশ্লিষ্টদের কাছে অতিরিক্ত টাকা দাবি করছে। সে টাকা দিতে অস্বীকার করলে ওই সংঘবদ্ধ চক্রটি দাদন গ্রহীতাদের অপহরণ, গুম, মারপিট করাসহ নানা ধরনের হুমকি প্রদান করে আসছে। ফলে এ সমস্ত অসহায় মানুষ দাদন ব্যবসায়ীদের ভয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। এমনকি কর্মস্থলেও যেতে পারছেন না। ফলে দাদন ব্যবসায়ীদের ভয়ে বিদ্যালয়ে যেতে না পারায় শিক্ষক সাহারুল ইসলামকে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×