মনিরামপুরে জমি লিজ নিয়ে মাটি উত্তোলন

হুমকিতে সড়ক ফসলি জমি

  মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মনিরামপুরে এক প্রভাবশালীকে কৃষি জমি লিজ দিয়ে চরম বিপাকে পড়েছেন ৩ জমি মালিক। মাছের ঘের তৈরির কথা বলে জমি লিজ নিয়ে সেই জমি থেকে স্কেভেটর ও ড্রেজার মেশিন দিয়ে মাটি-বালু উত্তোলন করে গভীর খাদ বানিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। উত্তোলিত মাটি-বালু নিজেদের ইটভাটায় নেয়াসহ অন্যত্র বিক্রি করা হচ্ছে বলেও তাদের অভিযোগ। এর ফলে পাশের পাকা সড়ক ও চারপাশের ফসলি জমি খাদে বিলীন হওয়ার উপক্রম হওয়ায় জমি মালিকরা নিষেধ করায় ভয়ভীতি দিয়ে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে এক জমি মালিকের কাছ থেকে স্ট্যাম্প করে নেয়া হয়েছে। এ নিয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে অভিযোগের ভিত্তিতে বালু উত্তোলন না করার কয়েকবার অঙ্গীকার করেও প্রভাব খাটিয়ে জোর করে একই কাজ করেছেন লিজকারী। জমি মালিকরা ফের অভিযোগ করায় বৃহস্পতিবার ড্রেজার মেশিন, পাইপসহ মাটি-বালু উত্তোলনের যন্ত্রাংশ জব্দ করেছেন এসিল্যান্ড। জানা যায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক গাউছুল আজমের ছোট মসিউল আজম উপজেলার ৪ ফুট মাটি কেটে নেয়ার মাছের ঘের তৈরির শর্তে কাশিমনগর গ্রামের মুনছুর রহমানের কাছ থেকে ২০১৭ সালের ১৪ এপ্রিল থেকে ১৫ বছরের জন্য ২১১ শতক, আতিয়ার রহমান গংয়ের কাছ থেকে ২০১৭ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে ৭ বছরের জন্য ২ একর ২৯ শতক ও বেনজির গংয়ের কাছ থেকে ৩ একর ৪ শতক জমি লিজ নেয়। পরে মাছের ঘের না করে ওই জমি থেকে মাটি-বালু উত্তোলন করে নিজের বড় ভাই গাউসুল আজমের ইটভাটায় নেয়াসহ অন্যত্র বিক্রি করতে থাকেন তিনি। জমি মালিক মুনছুর কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ধানি জমিটুকু লিজ দিয়ে এখন সেখান থেকে মাটি-বালু উত্তোলন করায় প্রায় ২৫-৩০ হাত গভীর খাদ হয়ে গেছে। শুরু থেকে নিষেধ করা সত্ত্বেও তাকে ভয় দেখিয়ে জোর করে এ কাজ করতে থাকেন মসিউল আজম। আতিয়ার রহমান নামের অপর এক জমি মালিক অভিযোগ করে বলেন, বালু উত্তোলন করায় জমি দিতে রাজি না হওয়ায় তাকে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে বাড়ি থেকে উঠিয়ে জোর করে স্ট্যাম্প করে নেয়া হয়েছে। এখনও তাকে স্ট্যাম্পটি ফেরত দেয়া হয়নি। বেনজরি আহম্মেদ নামে অপর এক জমি মালিক বলেন, কোনোভাবেই মাছের ঘেরের পরিবর্তে অন্য কিছু করতে দেয়া হবে না। উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ কুমার দে বলেন, মাছের হ্যাচারির জন্য অনুমতি নিতে হয়। তিনি সদ্য যোগদান করলেও এ ধরনের অনুমতি নেয়া হয়নি বলে নিশ্চিত করেন। জানতে চাইলে জোর করে স্ট্যাম্প করা বিষয়টি অস্বীকার করে মসিউল আজম বলেন, যে খাদ হয়েছে তা মাটি দিয়ে সমান করে দেয়া হবে জমি মালিকদের।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
bestelectronics

 

 

mans-world

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
close
close
.