চরফ্যাশনের বেতুয়া লঞ্চঘাট

পন্টুন না থাকায় দুর্ভোগ

  চরফ্যাশন (দক্ষিণ) প্রতিনিধি ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চরফ্যাশন বেতুয়া লঞ্চঘাটে লঞ্চে ওঠা-নামার পন্টুন না থাকায় দৈনিক ৩ লঞ্চে ৫-৬ হাজার যাত্রীর ঢাকা যাতায়াতে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় তারা দুর্ভোগের শিকার বলে ভুক্তভোগীর অভিযোগ।

রোববার বিকালে বেতুয়া লঞ্চঘাট ঘুরে দেখা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে যাত্রীদের লঞ্চে ওঠা-নামার একমাত্র পন্টুনটি ভেঙে মেঘনা নদীতে ডুবে গেছে। ঈদুল আজহায় হাজার হাজার ঘরমুখী ও ঢাকার যাত্রীদের চরম ভোগান্তির মধ্যে যাতায়াত করতে হচ্ছে। ভোলা বরিশাল বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি পড়েনি বেতুয়া লঞ্চঘাটের দিকে। বর্ষার কাদামাটি ও পন্টুন না থাকায় যাত্রীদের ভোগান্তির শেষ নেই। দুর্ভোগ লাঘবে দ্রুত লঞ্চঘাটে নতুন পন্টুন ও ব্রিজটি মেরামতের দাবি করেন তারা।

কর্তৃপক্ষের অব্যবস্থাপনা ও জোয়ারে প্রবল স্রোত এবং ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে পন্টুনটি ভেঙে বিচ্ছিন্ন হয়ে অর্ধডুবন্ত অবস্থায় পড়ে আছে। লঞ্চ যাতায়াতের সময় পন্টুনের পাশেই ব্লকের ওপর দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে বর্ষা মৌসুমে জোয়ারের পানিতে ভিজে যাত্রীদের চলাচল করতে হয়। লঞ্চে উঠে পোশাক বদলাতে হয়। ঢাকা থেকে ঘাটে এসেও অনেকে ভেজা শরীর নিয়ে বাড়ি ফেরে। ওঠা-নামার সময় দুর্ঘটনাও ঘটছে বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে ঘাট ইজারাদার কর্তৃপক্ষ বলেন, ফারহান, কর্ণফুলী ও তাসফির ৩টি লঞ্চ দৈনিক যাতায়াত করছে। কিছু দিন পরপর পন্টুনটি ভেঙে যাওয়ায় যাত্রীসাধারণের চরম দুর্ভোগ হচ্ছে। এলাকার জনসাধারণ স্থায়ী একটি লঞ্চঘাটের দাবি করেন। লঞ্চযাত্রী আকলিমা আক্তার বলেন, আমি চরকুকড়িমুকড়ি থেকে আসছি। আমার ৫ জন ঢাকা যাচ্ছি। লঞ্চে উঠতে গিয়ে পরণের পোশাক ভিজে গেছে। এভাবে কেউ যাতায়াত করতে পারে না। চরফ্যাশন পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কামরুল সিকদার বলেন, পন্টুন ভেঙে যাওয়ায় যাত্রীদের দুর্ভোগের সীমা নেই। ভোলা জেলা পোর্ট অফিসার মো. কামরুজ্জামান বলেন, আমি বিষয়টি নৌ-সংরক্ষণ পরিচালনা আঞ্চলিক অফিসার রফিকুল আসলামকে জানিয়েছি। ঈদের আগে লোক পাঠানো হয়েছিল কিন্তু ঈদের আগে সম্ভব না হওয়ায় খুব দ্রুতই নতুন করে পন্টুনটির কাজ সম্পাদন করা হবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×