এসএসসির ব্যবহারিক পরীক্ষা

আদমদীঘিতে ঘুষ না দেয়ায় খাতা ছুড়ে ফেলে দিলেন শিক্ষক

  বগুড়া ব্যুরো ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বগুড়ার আদমদীঘিতে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে এসএসসির ব্যবহারিক পরীক্ষায় ঘুষবাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। সংশ্লিষ্ট বিষয়ের ওই শিক্ষকের মাধ্যমে খাতা তৈরি না করা ও দাবি করা ঘুষ না দেয়ায় অর্ধশত পরীক্ষার্থীর খাতা ছুড়ে ফেলাসহ অকথ্য ভাষায় গালিগালাজের লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রশ্নপত্র ফাঁসের রেশ না কাটতেই উপজেলার সান্তাহারের স্বনামধন্য বিপি উচ্চ বিদ্যালয়ে এমন ন্যক্কারজনক ঘটনায় অভিভাবকদের মাঝে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে, আগামী ৩ মার্চ ওই বিদ্যালয়ে বিজ্ঞান বিভাগের ২০০ পরীক্ষার্থীর ‘তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি’ বিষয়ের ব্যবহারিক পরীক্ষার দিন ধার্য আছে। রোববার শিক্ষক মাহফুজুর রহমান মুকুল ১৫০ জনের কাছে জনপ্রতি ৩০০ টাকা করে নেন। এ টাকার বিনিময়ে ব্যবহারিক খাতা প্রস্তুত করে দেন ওই শিক্ষক। অবশিষ্ট ৫০ পরীক্ষার্থী নিজেরা খাতা প্রস্তুত করে জমা দিতে গেলে ওই শিক্ষক প্রতিজনের কাছে ৫০০ টাকা করে দাবি করেন। পরীক্ষার্থীরা অপারগতা জানালে শিক্ষক তাদের অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন। একপর্যায়ে তিনি খাতাগুলো তাদের মুখের ওপর ছুড়ে দিয়ে বিদ্যালয় থেকে চলে যান। বিষয়টি জানতে পেরে অভিভাবকরা স্কুলে আসেন এবং ঘুষ গ্রহণকারী শিক্ষকের অপসারণ দাবি করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে থাকেন। পরে ১৮ জন পরীক্ষার্থী স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি কছিম উদ্দিন আহমেদের কাছে লিখিত অভিযোগ করে। অভিযুক্ত শিক্ষক মাহফুজুর রহমান মুকুল পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এটা তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.