ইন্দুরকানীতে স্বজনদের কান্না থামছে না
jugantor
ইন্দুরকানীতে স্বজনদের কান্না থামছে না
নিখোঁজ ৬ জেলে

  ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) প্রতিনিধি  

১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বঙ্গোপসাগরে পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলার পাড়েরহাট বন্দরের একটি ট্রলার ডুবির ঘটনায় ৬ জেলের ৪ দিন ধরে সন্ধান পাওয়া যায়নি। পরিবারে চলছে আহাজারি। জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে পটুয়াখালীর কুয়াকাটার পূর্ব পাশে বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের প্রভাবে ঝড়ের কবলে পড়ে মাছ শিকারে যাওয়া পাড়েরহাট বন্দরের এফবি আল সাত্তার ট্রলারটি ডুবে যায়। এ সময় ট্রলারের ১৯ জন জেলের মধ্যে ১৩ জনকে পার্শ্ববর্তী অন্য ট্রলারের জেলেরা জীবিত উদ্ধার করে। অপর ৬ জেলেকে চারদিন ধরে এখনো উদ্ধার করতে পারেনি। তারা হলেন কালাইয়া গ্রামের মৃত হাবিব মল্লিকের ছেলে বাদশা মল্লিক ওরফে আলমগীর, নাজিরপুর উপজেলার শেখ মাটিয়া ইউনিয়নের মো. হারুন পশারির ছেলে মো. ফায়েক পশারি, একই এলাকার দলিল উদ্দিন হাওলাদারের ছেলে মো. মনির হাওলাদার, মো. আনোয়ার হোসেন, পিরোজপুর সদর উপজেলার সিকদার মল্লিক ইউনিয়নের জুজখোলা গ্রামের সঞ্জয়সহ ৬ জন। উদ্ধারকৃত জেলেরা জানান, আমরা সবাই ট্রলারে কেবিনে একই জায়গায় ঘুমিয়ে ছিলাম। আমরা উঠতে পেরেছি তাদের সন্ধান পাচ্ছি না।

ইন্দুরকানীতে স্বজনদের কান্না থামছে না

নিখোঁজ ৬ জেলে
 ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) প্রতিনিধি 
১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বঙ্গোপসাগরে পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলার পাড়েরহাট বন্দরের একটি ট্রলার ডুবির ঘটনায় ৬ জেলের ৪ দিন ধরে সন্ধান পাওয়া যায়নি। পরিবারে চলছে আহাজারি। জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে পটুয়াখালীর কুয়াকাটার পূর্ব পাশে বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের প্রভাবে ঝড়ের কবলে পড়ে মাছ শিকারে যাওয়া পাড়েরহাট বন্দরের এফবি আল সাত্তার ট্রলারটি ডুবে যায়। এ সময় ট্রলারের ১৯ জন জেলের মধ্যে ১৩ জনকে পার্শ্ববর্তী অন্য ট্রলারের জেলেরা জীবিত উদ্ধার করে। অপর ৬ জেলেকে চারদিন ধরে এখনো উদ্ধার করতে পারেনি। তারা হলেন কালাইয়া গ্রামের মৃত হাবিব মল্লিকের ছেলে বাদশা মল্লিক ওরফে আলমগীর, নাজিরপুর উপজেলার শেখ মাটিয়া ইউনিয়নের মো. হারুন পশারির ছেলে মো. ফায়েক পশারি, একই এলাকার দলিল উদ্দিন হাওলাদারের ছেলে মো. মনির হাওলাদার, মো. আনোয়ার হোসেন, পিরোজপুর সদর উপজেলার সিকদার মল্লিক ইউনিয়নের জুজখোলা গ্রামের সঞ্জয়সহ ৬ জন। উদ্ধারকৃত জেলেরা জানান, আমরা সবাই ট্রলারে কেবিনে একই জায়গায় ঘুমিয়ে ছিলাম। আমরা উঠতে পেরেছি তাদের সন্ধান পাচ্ছি না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন