দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনায় সেবা বঞ্চিত রোগীরা

শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল

  শরীয়তপুর প্রতিনিধি ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

শরীয়তপুর আধুনিক সদর হাসপাতালটি নামেই আধুনিক। হাসপাতালে আধুনিকতার কোনো ছোঁয়া লাগেনি। নানা অনিয়ম, দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনার কারণে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের এখন দুরবস্থা। বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার পর্যন্ত ছুটি ছাড়া ডাক্তাররা জেলার বাইরে চলে যান। ফলে রোগীরা চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। কোনো নিয়মশৃঙ্খলা নেই এ হাসপাতালে। অফিস চলাকালীন সময় ডাক্তাররা রোগীদের সময় না দিয়ে ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধিদের সঙ্গে সময় কাটায়। হাসপাতালের বিছানাগুলো ময়লা, বাথরুমগুলো দুর্গন্ধযুক্ত, ওয়ার্ডের মেঝে স্যাঁতসেঁতে। প্রয়োজনীয় সংখ্যক চিকিৎসক ও নার্স নেই। প্রয়োজনীয় চিকিৎসার সরঞ্জাম নেই এ হাসপাতালে। নেই চিকিৎসকদের আবাসিক ব্যবস্থা।

সদর হাসপাতাল সূত্র ও রোগীরা জানান, শরীয়তপুর আধুনিক সদর হাসপাতালটি ১৯৯০ সালে ৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। এরপর ২০১৭ সালে এটাকে ২৫০ শয্যার হাসপাতাল হিসেবে উন্নীত করা হয়েছে। কিন্তু ২৫০ শয্যার কোনো লোকবল বা সুযোগ-সুবিধা দেয়া হয়নি। দীর্ঘ ১৫ বছরেও শরীয়তপুর আধুনিক সদর হাসপাতালের ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন, লোকবল ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা বাড়েনি। ফলে ২৫০ শয্যার হাসপাতাল হিসেবে কার্যক্রম চালু করতে পারছে না। হাসপাতালে ২৫০ শয্যার চালু থাকলেও প্রতিদিন গড়ে রোগী ভর্তি হয় কমপক্ষে ২শ’ থেকে প্রায় ২৫০ জন। এ হাসপাতালে ডাক্তারের জন্য অনুমোদিত পদ রয়েছে ৪৯টি। অথচ কর্মরত ডাক্তার আছে ১৭ জন। এর মধ্যে কেউ আছে ডেপুটেশনে, কেউ আছে ছুটিতে আবার কেউ বিনা ছুটিতেই নিজ নিজ এলাকায় প্রাকটিস করছেন। ২/১ জন ডাক্তার সপ্তাহে ২ দিন থাকেন হাসপাতালে। বাকি ৫ দিনই থাকেন না। বিশেষ করে জুনিয়র কনসালটেন্ট ও সার্জারি ডাক্তার অনিয়মিতভাবে কর্মস্থলে থাকেন। এ হাসপাতালে ভারপ্রাপ্ত কার্ডিওলজিস্টসহ বেশিরভাগ স্থলে ভারপ্রাপ্তরা কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। সদর হাসপাতাল ঘুরে দেখা যায় নামমাত্র ২/১ জন ডাক্তার জরুরি বিভাগ, বহির্বিভাগসহ রোগী দেখার দায়িত্ব পালন করছেন। বাকিদের অনেককে হাসপাতালে পাওয়া যায়নি। ১০০ শয্যার এ হাসপাতালে সিনিয়র কনসালটেন্ট সার্জারি, কার্ডিও, মেডিসিন বিশেষজ্ঞসহ মেডিকেল অফিসার নেই। দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন বিভাগের সিনিয়র কনসালটেন্টসহ এসব পদ শূন্য রয়েছে।

সদর হাসপাতালের অব্যবস্থাপনার কথা স্বীকার করে মোস্তফা খোকন বলেন, শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নানা সমস্যায় জর্জরিত। প্রয়োজনের তুলনায় ডাক্তার অনেক কম। ৫০ শয্যার লোকবল দিয়েই চলছে ১০০ শয্যার হাসপাতাল। এখানে অনেক যন্ত্রপাতির অভাব রয়েছে। ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও সেবা দিতে পারছি না। কর্মীর অভাবে হাসপাতাল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা সম্ভব হচ্ছে না। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বার বার জানানো হয়েছে।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter