পায়রা নদীতে সেতু নির্মাণে মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

দক্ষিণাঞ্চলের ৩০ লক্ষাধিক মানুষের স্বপ্নপূরণ

  আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে মংলা সমুদ্রবন্দরের সংযোগ সহজীকরণ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনী সংসদীয় আসন আমতলী-তালতলীর সঙ্গে জেলা শহর বরগুনার যোগাযোগের জন্য পায়রা নদীর ওপর সেতু নির্মাণের প্রস্তাব চূড়ান্তভাবে অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। উন্নয়নের মহাসড়কে যুক্ত হতে যাচ্ছে আমতলী-বরগুনা। আমতলীর পায়রা নদীর এ সেতুটি নবম বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু নামে পরিচিত হবে। এ অঞ্চলের মানুষের প্রাণের দাবি ছিল পায়রা নদীতে সেতু নির্মাণ। সেতু নির্মিত হলে দক্ষিণাঞ্চলের ৩০ লক্ষাধিক মানুষের স্বপ্নপূরণ হবে। দক্ষিণাঞ্চলের যোগাযোগ, ব্যবসা-বাণিজ্য, শ্রমবাজার, জাতীয় অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে পায়রা নদীর সেতু হবে নতুন দিগন্তের শুভ সূচনা। পায়রা সমুদ্রবন্দর ও মংলা সমুদ্রবন্দরের মাঝে তৈরি হবে একটি মেলবন্ধ। অল্প খরচে পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে মোংলা সমুদ্রবন্দরে পণ্য আনা নেয়া করা যাবে। দক্ষিণাঞ্চলের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে। বরগুনার ও আমতলীর মাঝে সাড়ে তিন কিলোমিটার পায়রা নদীর ফেরি পাড় হতে যানবাহনগুলোকে এখনও ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হয়। সেতু নির্মাণ হলে ওই সড়কে চলাচলে মানুষের আর ভোগান্তি পোহাতে হবে না । পায়রা সেতু নির্মাণের খবরে আনন্দের বন্যা বইছে আমতলী উপজেলার সাধারণ জনগণের মাঝে। মন্ত্রিপরিষদে পায়রা নদীতে ব্রিজ নির্মাণে চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়ায় সোমবার আমতলী পৌর মেয়র মতিয়ার রহমানের উদ্যোগে আনন্দ র‌্যালি বের হয়। হাজার হাজার মানুষের অংশগ্রহণে আনন্দ র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে পায়রা নদীর তীর ফেরিঘাটে মেয়র মো. মতিয়ার রহমানের সভাপতিত্বে। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ইউপি চেয়ারম্যান মোতাহার উদ্দিন মৃধা, অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম, শহীদুল ইসলাম মৃধা, একেএম নুরুল হক তালুকদার, বোরহার উদ্দিন মাসুম তালুকদার ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. রেজাউল করিম, শাহজাদা আকন প্রমুখ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×