জাদুকাঁটা নদীতে বালু লুটের মহোৎসব

  হাবিব সরোয়ার আজাদ,তাহিরপুর ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের জাদুকাঁটা নদীতে ড্রেজার মেশিনে প্রতি রাতেই চলছে বালু লুট। বেড়িবাঁধে বালু ভরাটের ভুয়া অজুহাত তৈরি করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নাম ভাঙিয়ে নদীর পাঠানপাড়া-মিয়ারচর ও সোহালা-সত্রিশ গ্রামের দু’তীরেই দেড় মাস ধরে বালু লুটেরাদের সঙ্গে পুশিদের গোপন সমঝোতায় অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে চলছে রাতে বালু লুটের রমরমা বাণিজ্য।’

অভিযোগ রয়েছে, পুলিশের দায়িত্বশীল কয়েক কর্তা ব্যক্তির বিশেষ নজরদারি থাকা সত্ত্বেও বারবার বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির কিছু অসৎ সদস্যের বিরুদ্ধে জাদুকাঁটা মাহারাম নদীর একাধিক পয়েন্টে বালু লুটে প্রতিনিয়ত লাখ লাখ টাক উৎকোচ নেয়ার অভিযোগ রয়েছে।স্থানীয় এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার জাদুকাঁটা নদীর প্রায় দেড় থেকে ১ কিলোমিটার নৌপথজুড়ে পাঠানপাড়া-মিয়ারচর ও সোহালা-সত্রিশ গ্রামের দু’তীরেই প্রতি রাতে ১০ থেকে ১২টি ড্রেজার মেশিনে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে বলগেটে (বড় স্টিলবডি নৌকা) লোড করে দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করা হচ্ছে। প্রতি রাতেই তাহিরপুর থানার বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির এসআই’র তদারকিতে এসব ড্রেজারে বালু লুটের উৎসব চলে আসছে।’

অনুসন্ধানে জানা গেছে, প্রতিটি ড্রেজার মেশিনের বিপরীতে এসআই সাইফুল অগ্রিম বাবদ ৪ থেকে ৫ হাজার টাকা করে উৎকোচ নিয়েছেন।’ আর সপ্তাহের ৬ দিন বালু লুটের জন্য প্রতিটি ড্রেজার মালিকের সঙ্গে ৪ হাজার টাকা করে গোপন চুক্তিতে ব্যক্তিগত দুই সোর্সের মাধ্যমে উৎকোচের টাকা আদায় করাচ্ছেন।

তাহিরপুর থানার বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির এসআই সাইদুর রহমানের কাছে রোববার ড্রেজার মেশিনে বালু লুট ও উৎকোচ নেয়ার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি অস্বীকার করে বলেন, ‘একটি বেড়িবাঁধে বালু ভরাটের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একটি ড্রেজারের সাহায্যে কয়েকদিন বালু উত্তোলনের মৌখিক অনুমতি দিয়েছিলেন, এর বাইরে কোনো ড্রেজার নদীতে চলেনি।’

এ ব্যাপারে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পুর্ণেন্দু দেব রোববার যুগান্তরকে জানান, হাওরের বেড়িবাঁধের স্বার্থে কয়েকদিনের জন্য একটি ড্রেজারে বালু উত্তোলনের জন্য মৌখিক নির্দেশনা দিয়েছিলাম। কয়েকদিন আগেই বাঁধে বালু ভরাটের কাজ শেষ হয়ে গেছে। এখন নদীতে অন্য কোনো ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করা হয়ে থাকলে তা আমার জানা নেই।

pran
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
bestelectronics

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter