কক্সবাজারে ক্ষতবিক্ষত সড়ক যেন মরণফাঁদ

  শফিউল্লাহ শফি, কক্সবাজার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পর্যটন এলাকা হিসেবে খ্যাত কক্সবাজারের যোগাযোগ ব্যবস্থা খুবই নাজুক। পর্যটন এলাকাসহ শহরের প্রধান সড়ক ও বিভিন উপ-সড়কের বর্তমান অবস্থা এতই খারাপ যে যানবাহন দিয়ে চলাচল দূরের কথা হেঁটে চলাচল করার সাহস হারিয়ে ফেলছে পথচারীরা। ক্ষত-বিক্ষত রাস্তা যেন এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। রাস্তার অবস্থা দেখে পর্যটকসহ স্থানীয়রা কোমরে হাত দিয়ে দীর্ঘ নিঃশ্বাস ফেলে সিদ্ধান্ত নেয় কোন পাশ দিয়ে হাঁটা যাবে। এমতাবস্থায় বরাবরের মতোই আশার বাণী ছুড়ে দেন কক্সবাজার পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান।

তিনি বলেন, আগামী এক থেকে দেড় মাসের মধ্যে নতুন ৫টি বড় প্রকল্পের আওতায় কক্সবাজার পৌর এলাকায় ৮৭ কোটি টাকার কাজ শুরু হবে। কক্সবাজার পৌরসভার গুরুত্বপূর্ণ বেশকিছু সড়ক উপ-সড়কের দীর্ঘদিন নাজুক অবস্থা বিরাজ করছে। এ থেকে পরিত্রাণের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। সরেজমিন কক্সবাজার পর্যটন এলাকার কলাতলীসহ পার্শবর্তী এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, পর্যটন স্পট সংশ্লিষ্ট রাস্তা ও উক্ত এলাকায় নির্মিত ফাইভ স্টার, থ্রি স্টা এবং টু স্টার মানের হোটেল-মোটেলগুলোর সামনে এমন কিছু রাস্তা রয়েছে যা দেখলে কখনো মনে হবে না এটি পর্যটন শহর কক্সবাজার! মনে হবে কোনো ডোবা বা ময়লা-আবর্জনা পুকুরে মাগুর মাছের চাষ চলছে।

এদিকে যেসব রাস্তার বেহাল অবস্থা হয়েছে এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য পর্যটন এলাকার লাবনী ও সি-ইন পয়েন্টের মাঝামাঝি হোটেল সি-গালের সামনের পর্যটন এলাকার প্রধান রাস্তাটি। প্রতি বছর বর্ষা এলেই রাস্তা খুঁজে পাওয়া যায় না। সাগরের ন্যায় ঢেউ ওঠে এই রাস্তায়। পাশাপাশি শহরের প্রধান সড়কসহ উপ-সড়কগুলো খানা-খন্দে পরিণত হয়েছে। স্থানীয়দের মতে, শুধু প্রধান সড়ক কিংবা পর্যটন এলাকা নয় শহরের বৌদ্ধ মন্দির, বড় বাজার, আইবিপি রোড, ভিআইপি সার্কিট হাউস, বার্মিজ মার্কেট, ফুলবাগ সড়ক, টেকপাড়া, মাছবাজার, কস্তুরাঘাট, আলীর জাহাল, রুমালিয়ারছড়া, নুনিয়ারছড়া, পাহাড়তলী ও বাহারছড়াসহ বিভিন্ন সড়কে খানাখন্দ রয়েছে।

কক্সবাজার মেরিন ড্রাইভ আবাসিক হোটেল ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক মুকিম খান বলেন, রাস্তার বেহাল অবস্থা সারা কক্সবাজারের সুনাম একেবারেই প্রশ্নবিদ্ধ করছে।

কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ নুরুল আলম জানান, ইতোমধ্যে মিউনিসিপ্যাল গভার্নেন্স অ্যান্ড সার্ভিসেস প্রজেক্ট (এমজিএসপি) প্রকল্পের আওতায় পৌরসভার উন্নয়ন কাজগুলো বাস্তবায়নে ই-জিপি সিস্টেমে টেন্ডারও সম্পন্ন করা হয়। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী এক থেকে দেড় মাসের মধ্যে প্রকল্পগুলোর কাজ শুরু হবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×