হবিগঞ্জে অর্ধশতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
jugantor
হবিগঞ্জে অর্ধশতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

  হবিগঞ্জ প্রতিনিধি  

১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

হবিগঞ্জে দ্বিতীয় দিনের মতো মঙ্গলবার পুরনো খোয়াই নদীতে অর্ধ শতাধিক স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। ভেঙে ফেলা হচ্ছে বিশাল অট্টালিকা। উচ্ছেদকৃতদের অনেকেই নিজেরাই নিজেদের স্থাপনা ভেঙে ফেলছেন।

জানা গেছে, হবিগঞ্জ শহরের বুকচিরে বয়ে যাওয়া খোয়াই নদী এক সময় জেলা শহরের দুঃখের অন্যতম কারণ ছিল। নদীতে সামান্য পানি বৃদ্ধি পেলেই ডুবে যেত ঘরবাড়ি। আবার বড় বড় নৌকাও চলত এ নদীতে। শহরবাসীর এ দুঃখ লাঘবের উদ্দেশ্যে ১৯৭৬ থেকে ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত দুই দফায় ৫ কিলোমিটার এলাকা নদীর গতিপথ পরিবর্তন করা হয়। আর তখন থেকেই দফায় দফায় নদীটি দখল করে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। মাঝে মাঝে শুধু দু-একটি স্থাপনা উচ্ছেদ হয়েছে। কিন্তু সঙ্গে সঙ্গেই সেখানে আবার অন্যদল এসে দখল করে নিয়েছে। অবশেষে জেলা প্রশাসন শহরবাসীর দীর্ঘদিনের প্রতিক্ষিত খোয়াই নদীটি উদ্ধারে সোমবার থেকে উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছে।

হবিগঞ্জে অর্ধশতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

 হবিগঞ্জ প্রতিনিধি 
১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

হবিগঞ্জে দ্বিতীয় দিনের মতো মঙ্গলবার পুরনো খোয়াই নদীতে অর্ধ শতাধিক স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। ভেঙে ফেলা হচ্ছে বিশাল অট্টালিকা। উচ্ছেদকৃতদের অনেকেই নিজেরাই নিজেদের স্থাপনা ভেঙে ফেলছেন।

জানা গেছে, হবিগঞ্জ শহরের বুকচিরে বয়ে যাওয়া খোয়াই নদী এক সময় জেলা শহরের দুঃখের অন্যতম কারণ ছিল। নদীতে সামান্য পানি বৃদ্ধি পেলেই ডুবে যেত ঘরবাড়ি। আবার বড় বড় নৌকাও চলত এ নদীতে। শহরবাসীর এ দুঃখ লাঘবের উদ্দেশ্যে ১৯৭৬ থেকে ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত দুই দফায় ৫ কিলোমিটার এলাকা নদীর গতিপথ পরিবর্তন করা হয়। আর তখন থেকেই দফায় দফায় নদীটি দখল করে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। মাঝে মাঝে শুধু দু-একটি স্থাপনা উচ্ছেদ হয়েছে। কিন্তু সঙ্গে সঙ্গেই সেখানে আবার অন্যদল এসে দখল করে নিয়েছে। অবশেষে জেলা প্রশাসন শহরবাসীর দীর্ঘদিনের প্রতিক্ষিত খোয়াই নদীটি উদ্ধারে সোমবার থেকে উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছে।